হিরো কিপার পরিচয়ে


মঙ্গলবার,১৭/০২/২০১৫
306

পূর্ণেন্দু চক্রবর্তীঃ আর তো মাত্র কয়েকটা দিন। তার পরেই শুরু হয়ে যাচ্ছে ২০১৫ বিশ্বকাপ ক্রিকেট। তামাম দুনিয়া এই ক্রিকেট যুদ্ধ দেখতে উন্মুখ হয়ে বসে থাকবে। অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের যৌথ প্রয়াসের বিশ্বকাপ ক্রিকেট এক নতুন উদ্মাদনা পাহাড় তৈরী করবে। ভাঙাগড়ার শিহরনে ক্রিকেটাররা মেতে থাকবেন। স্বপ্নপূরনের খেলায় কোন দল বাজিমাত করবে তা নিয়ে আগাম ব্যাখ্যা করার কারও সাধ্যি নেই। বিশ্ব জয়ের উইকেটে কোন দল কোন ঘোড়া হিসেবে দাপিয়ে বেড়াবে তা নিয়ে বিতর্কের বিষয় হতে পারে। প্রতিটি দল আশাবাদী চ্যালেঞ্জকে মোকাবিলা করার। বাইজ গজের ক্রিকেট ব্যাটসম্যান আর বোলারদের ভূমিকা অবশ্যই বড় জায়গায় পৌঁছে যায়। খেলার চরিত্রকে বদলে দিতে তাঁদের যোগ্যতাকে তারিফ করতে হয়।
কিন্তু যেকোনও ক্রিকেট ম্যাচে কিপার অর্থাৎ উইকেট রক্ষকের অসাধারণ ভূমিকা নিয়ে সেইভাবে চোখে পড়ে না। দক্ষ কিপারের তৎপরতার বিপক্ষ দলের ভাবনা কোন সময় খান খান হয়ে যায়, তা টেরটিও পাওয়া যায় না। তাঁরাই হয়ে ওঠেন তুরুপের তাস। একটা ক্যাচ বা একটা স্টাম্পিং জয়কে সুনিশ্চিত করে দেয়। আর বিপক্ষ দলের কাছে চিন্তার ভাঁজ গাঢ় হয়ে ওঠে দুরন্ত কিপিং -এর জন্য। তাই এবারের বিশ্বকাপ কিপারদের ক্রিকেট হিসেবে চিহ্নত হতে পারে। সেই বাজিমাত -এ ভারতের উইকেট রক্ষক অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনিকে কঠিন লড়াই-এ ফেলতে পারে দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক এবি ডেভেলিয়াস। উইকেটের পিছনে দাঁড়িয়ে সেরা ফিনিসার হিসেবে কে কাকে টেক্কা দেবেন এই প্রশ্নের উত্তর সহজে পাওয়া যাবে না। ধোনির হাতে ২২৯ ক্যাচ ২৫৪ ম্যাচে। আর স্টাম্পিং ৮৫ । এবির হাতে ১৭৯ ম্যাচে ১৫০ ক্যাচ। স্টাম্পিং মাত্র ৪ । ধোনির ৮২৬২ রানকে তাড়া করে এবি’র ব্যাটে এসেছে ৭৪৫৯ রান ধোনি ও এবি’র পাশাপাশি চোখ থাকবে শ্রীলঙ্কার কুমার সঙ্গকারার দিকে। তাঁর ব্যাটে কখনও সখনও ঝলসে ওঠে। ৩৯৭ ম্যাচে ১৩৬৯৩ রান আর হাতের তালুতে বন্দি হয়েছেন ৩৯৭ জন ক্রিকেটার। স্টাম্পিং ৯৬ । নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক ব্রেন্ডন ম্যাকালাম একজন দক্ষ উইকেট রক্ষক। বিধ্বংসী ব্যাট যে কথা বলে, ম্যাকালাম ২৪০ ম্যাচে ৫৪৮০ রান করেছেন। ২৫৩ জন হাতে ধরা পড়েছেন। স্ট্যাম্প আউট হয়ে প্যাভেলিয়নে ফেরত গেছেন ১৫ ক্রিকেটার। এবারের বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডের হয়ে কিপারের গ্লাভস পড়বেন লিউক বঞ্চিও। তাঁর নামের পাশে রয়েছে ৪০ ম্যাচ। ৯১২ রান। স্টাম্পিং ৫ এবং ক্যাচ ৫৬। বাংলাদেশের মুশাফিকুর রহিম শুধু উইকেট রক্ষক নন – দলের স্তম্ভ । ১৪০ ম্যাচে ১৪০ ক্যাচ ও স্টাম্পিং ৩৬ সমেত ৩১৫৩ রান। ওয়েস্টইন্ডিজ দলের সেই দাপট না থাকলেও, দলের ভরসার নাম কিপার দীনেশ রামদিন। ১৫৪ ক্যাচ ধরে ফেলেছেন ১২০ ম্যাচে। ৬ ব্যাটসম্যানের উইকেট ভেঙে দিয়েছেন। করেছেন ১৮০৪ রান। তাই যে কোনও ম্যাচে কিপাররা জয়ের নায়ক হিসেবে শিরোনামে উঠে আসেন। তাঁরাই হয়ে ওঠেন ব্যতিক্রমী। সুপার হিরো – হিরো কিপার এবারের বিশ্বকাপ ক্রিকেটে হয়ত সেই পরিচয় উজ্জ্বল হয়ে উঠবে। সৌজন্যঃ দৈনিক স্টেটসম্যান

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট