পরীক্ষাকেন্দ্রে আধাসামরিক বাহিনী


শনিবার,২৮/০২/২০১৫
285

খায়রুল আনাম, বোলপুর, বীরভূমঃ মাধ্যমিক পরীক্ষা সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন করার জন্য জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সমস্ত ধরনের সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয়েছিল। স্পর্শকাতর পরীক্ষাকেন্দ্র চিহ্নত করে সেখানে সিসিটিভি ক্যামেরা বসানো থেকে নানান ফরমান জারির কথা বলা হলেও, জেলায় মাধ্যমিক পরীক্ষায় টুকলির অবাধ মুক্তাঞ্চল বজায় থাকলো অন্যান্য বছরগুলির মতো। বহু পরীক্ষাকেন্দ্রের পাঁচিল টপকে, কার্নিশে উঠে টুকলি সরবরাহের চিত্র দেখা গিয়েছে খোলা চোখে। রামপুরহাট মহকুমা এলাকাতেই এই চিত্র সবচেয়ে বেশি দেখা গিয়েছে। নলহাটির ভগলদিঘি স্কুলে রামপুরহাট মহকুমাশাসক উমাশঙ্কর এস নিজে পরীক্ষাকেন্দ্র পরিদর্শনে গিয়ে ছাত্রদের জামা – প্যান্ট পরীক্ষা করে টুকলির সন্ধান করেছেন। ওই স্কুলে পরীক্ষা নিয়ে বিশৃঙ্ঘলা এমন একটা মাত্রায় পৌঁছায় যাতে সেখানে আধাসামরিক বাহিনী মোতায়েন করতে হয়েছে। নলহাটির মেহেগ্রাম স্কুলে টুকলি করতে বাধা দিতে গেলে পরীক্ষাকেন্দ্রের ভিতরেই এক ছাত্রীর সঙ্গে নজরদারী শিক্ষিকার বচসা বেধে যায়। সেন্টার সুপার ভাইজারের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। এদিকে জানা গিয়েছে, জেলায় বাংলা পরীক্ষার দিন ১২৪ জন ও ইংরেজি পরীক্ষার দিন ১৪৬ জন পরীক্ষাথী পরীক্ষায় অনুপস্থিত ছিলো। জেলায় এবার মাধ্যমিক পরীক্ষায় ছাত্রদের চেয়ে ছাত্রীদের সংখ্যা বেশি। জেলায় মোট ৪০ হাজার ২৫২ জন পরীক্ষাথী ৩০ টি মূল সেন্টার ও ১০৮ টি অতিরিক্ত সেন্টারে পরীক্ষায় বসেছে। এদের মধ্যে ছাত্রীর সংখ্যা ২১ হাজার ২০৫ জন ও ছাত্রের সংখ্যা ১৯ হাজার ৪৭ জন। জেলায় মোট রেগুলার পরীক্ষাথী ৩৫ হাজার ১১২ জন, সিসি ৪ হাজার ৯৭৪ জন ও কম্পাটমেন্টাল ৩৪১ জন।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট