কোপায় কোয়াটার -এ টাইব্রেকার হল


শনিবার,২৭/০৬/২০১৫
297

খবরইন্ডিয়াঅনলাইনঃ     হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে কোপার কোয়ার্টার ফাইনালের ম্যাচটির প্রতি মুহূর্তেই ছিল টানটান উত্তেজনা। সাজানো পাসগুলো কলম্বিয়ার রক্ষণ থেকে ফিরে আসার পর হতাশায় ছেঁয়ে গিয়েছিল মেসি, মারিয়া, আগুয়েরোদের চোখ-মুখ। পুরো ৯৪ মিনিটেই এমন দৃশ্য দেখেছে লাখ লাখ দর্শক। এরপর ম্যাচে ফিরেছে চরম নাটকীয়তা। টাইব্রেকারে ৫-৪ গোলে জিতেছে আর্জেন্টিনা। নিশ্চিত করেছে সেমিফাইনাল। মাঝখানে ১২ মিনিটের বেশি সময় ধরে চলা খেলার প্রতিটি মুহূর্তই ছিল শ্বাসরুদ্ধকর।

জুনিগার এই শটটি ফিরিয়ে দিয়ে চমকে দেন আর্জেন্টাইন গোলরক্ষক রোমেরো।

সংশ্লিষ্ট খবর

তেভেজের গোলে শেষ হাসি আর্জেন্টিনার

পেনাল্টি শুটআউটের শুরুটা সামলান আর্জেন্টিনার গোলরক্ষক সার্জিও রোমেরো। প্রতিপক্ষের গোলরক্ষক অসপিনার সঙ্গে বুকে বুক মিলিয়ে গোলপোস্টে যান রোমেরো। এরপর দুই গোলরক্ষক ১৪ বার মুখোমুখি হন প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়ের।

কলম্বিয়ার হয়ে প্রথম শটটি নেন দলের স্ট্রাইকিংয়ের প্রাণভোমরা হামেস রদ্রিগেজ। তাঁর বলটা ঠেকাতে জালের এপাশ-ওপাশ পায়চারী করে স্থির হন রোমেরো। তবে রদ্রিগেজের লক্ষ্যভেদী শট ঠিকই জাল খুঁজে পায়। গোলের পর রোমেরোকে আলিঙ্গন করেন রদ্রিগেজ।

আর্জেন্টিনার হয়ে প্রথম শট নেন অধিনায়ক মেসি। তৎপর গোলরক্ষক অসপিনার দিকে কিছুক্ষণ তাকিয়ে বাঁ পায়ে বল জালে জড়ান তিনি।

কলম্বিয়ার স্ট্রাইকার ফ্যালকাওয়ের ডান পায়ের শট গোলপোস্টের ডান দিক দিয়ে জালে জড়ায়।

আর্জেন্টাইন ডিফেন্ডার গ্যারাইয়ের দ্রুতগতির শটও জাল খুঁজে নেয় প্রতিপক্ষের।

ডান পায়ে নেওয়া কলম্বিয়ান ডিফেন্ডার কুয়াদ্রাদোর উঁচু হয়ে যাওয়া শটটি ঠেকাতে ব্যর্থ হন রোমেরো।

আর্জেন্টাইন মিডফিল্ডার বানেগার দুর্বল শটও লক্ষ্যভেদ করে জালে জড়ায়।

আর্জেন্টিনার জন্য আনন্দের মুহূর্তটি আসে। স্ট্রাইকার মুরিয়েলের শট গোলপোস্টের অনেক উপর দিয়ে গ্যালারিতে জায়গা করে নেয়। আনন্দে ফেটে পড়েন রোমেরোসহ আর্জেন্টিনার খেলোয়াড়-দর্শকরা।

স্ট্রাইকার লাভেজ্জির গোলে এগিয়ে যায় আর্জেন্টিনা। আর্জেন্টাইন শিবিরে তুমুল উচ্ছ্বাস।

মিডফিল্ডার কারদোনার শটটি প্রায় ফিরিয়ে দিয়েছিলেন রোমেরো। শেষ মুহূর্তে তাঁর হাত ছুঁয়ে বল জড়িয়ে যায় জালে।

. মিডফিল্ডার বিগলিয়া গোল করতে পারলেই ম্যাচ জিতে যেত আর্জেন্টিনা। কিন্তু তাঁর ডান পায়ের শটটি গোলপোস্টের বাইরে দিয়ে যাওয়ার পর হতাশ হয়ে বসে পড়েন। এরপর দুই দলই গোল মিস করে।

মিডফিল্ডার জুনিগার শটটি ফিরিয়ে দিয়ে নায়ক বনে যান রোমেরো। বাম দিকে তাক করা বলটি সহজেই ফিরিয়ে দেন রোমেরো। গত বিশ্বকাপে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ম্যাচের মতোই এ ম্যাচেও দুর্দান্ত ভূমিকা রাখেন তিনি।

এ যাত্রায়ও আর্জেন্টিনাকে হতাশ করলেন ডিফেন্ডার রোহো। বাম পায়ে নেওয়া তাঁর শট গোলপোস্টের অনেক উপর দিয়ে চলে যায়।

রোহোর পথ ধরেন কলম্বিয়ার ডিফেন্ডার মুরিল্লোও। ডান পায়ে নেওয়া তাঁর শট গোলপোস্টের বহু উপর দিয়ে চলে যায়। স্বস্তি ফিরে আর্জেন্টিনার খেলোয়াড়দের।

তেভেজের চমক। গুটি গুটি পায়ে এসে নিশানা ঠিক করলেন তেভেজ। তাঁর লক্ষ্যভেদী শট খুঁজে নিল প্রতিপক্ষের জাল। ৫-৪ গোলে জিতে সেমিফাইনালে পৌঁছে গেল আর্জেন্টিনা।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট