বিহারে ভোট আসতেই, সব দলের মুখে ফুলঝুড়ি


রবিবার,২৬/০৭/২০১৫
142

খবরইন্ডিয়াঅনলাইনঃ     সবার চোখ বিহার বিধানসভা ভোটে। শনিবার  মুজফফরপুর থেকে প্রচার শুরু করে দিলেন নরেন্দ্র মোদী। নিশানা করলেন জেডিইউ নেতা তথা মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার, আরজেডি নেতা লালু প্রসাদ যাদবকে। পাল্টা জবাব দেন নীতীশ-লালুও।  বিহারের বিধানসভা ভোটের আগে এদিনের জনসভা থেকে নীতীশকে তীব্র আক্রমণ করে মোদী বলেন, পছন্দ না হলে আমার গলা টিপতে পারতেন, বিহারের উন্নয়নের গলা কেন টিপলেন? ওনার ডিএনএতে সমস্যা রয়েছে।

মোদীকে পাল্টা জবাবে নীতীশের প্রশ্ন, আডবাণী, মুরলী মনোহর জোশীর সঙ্গে উনি কী করেছেন?

উন্নয়নের প্রশ্নেও এ দিন নীতীশকে নিশানা করেন মোদী। প্রশ্ন করেন, উনি বলেছিলেন বিদ্যুতের ব্যবস্থা করবেন। সব জায়গায় বিদ্যুৎ‍ পৌঁছেছে? অথচ নীতীশ কুমার সব জায়গায় ভোট চাইতে পৌঁছে গিয়েছেন।

 

এক্ষেত্রেও পাল্টা সরব হন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর দাবি, আগের থেকে বিদ্যুতের অবস্থা ভাল হয়েছে। ১৪ মাসের মোদী সরকারের থেকে দেশ কিচ্ছু পায়নি বলেও পাল্টা অভিযোগ করেন নীতীশ।

১৭ বছরের সঙ্গী জেডিইউ এখন বিজেপির শত্রু। আর একসময়ের শত্রু নীতীশ-লালু এখন বন্ধু। জেডিইউ-আরজেডির এই জোট নিয়েও এ দিন কটাক্ষ করতে ছাড়েননি মোদী। বলেন, কে সাপ, কে বিষ  নিজেরাই ঠিক করে নিন!

 

বিহারে গিয়ে নীতীশ কুমারের পাশাপাশি এ দিন লালু প্রসাদ যাদবকেও আক্রমণ করেন নরেন্দ্র মোদী। বলেন, আর জে ডি মানে রোজানা জঙ্গলরাজ কা ডর!

লালুও অবশ্য পাল্টা জবাব দিতে ছাড়েননি। বলেছেন, আচ্ছে দিনের প্রতিশ্রুতি কী হল?  প্রধানমন্ত্রী মানুষকে বোকা বানাচ্ছেন।

 

সব মিলিয়ে আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে বিহার নির্বাচনী প্রচারের পারদ এখন তুঙ্গে।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট