জর্ডান -এর কাছে হার বাংলাদেশের


মঙ্গলবার,০৮/০৯/২০১৫
293

খবরইন্ডিয়াঅনলাইনঃ    শুরুর দিকেই দুই গোল হজম করতে হয়েছে। এরপরও খেলাটা উপভোগ করছিল স্টেডিয়ামে উপস্থিত বাংলাদেশের হাজার দশেক সমর্থক। মাঠের খেলায় দেশের ফুটবলারদের পূর্ণ উৎসাহ নিয়েই সমর্থন যুগিয়েছেন তারা। তবে তাদের উৎসাহেও আকস্মিক ভাটা পড়েছে। দ্বিতীয়ার্ধে ১২ মিনিট খেলা হওয়ার পর হঠাৎ করেই ২ মিনিটের ব্যবধানে পরপর দুটি গোল করেছে জর্ডান। আর সেই দুই গোলই খেলার সব ছন্দ শেষ করে দিয়েছে; হঠাৎই দুর্দান্ত উপভোগ্য এক ম্যাচকে করে দিয়েছে এলোমেলো। শেষ পর্যন্ত মঙ্গলবার বিশ্বকাপ ফুটবল ২০১৮-এর বাছাই পর্বে জর্ডানের বিপক্ষে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ হেরেছে ৪-০ গোলে।

বাংলাদেশ দারুণ আক্রমণাত্মক মনোভাবে খেলা শুরু করেছিল। জুয়েল রানা-এমিলিরা সুযোগ তৈরি করছিলেন। তাতে মনে হয়েছে বাংলাদেশ প্রথমার্ধে দুই গোল খাওয়ার পর হয়তো গোল শোধ করতে পারবে। কিন্তু তা হয়নি। বরং রক্ষণভাগ থেকে নাসিরুল ইসলাম নাসির আঘাত পেয়ে ওঠে গিয়েছিলেন দ্বিতীয়ার্ধে মিনিট দশেক খেলা হওয়ার আগেই। নাসিরের পরিবর্তে নামানো হয়েছিল মো. লিঙ্কনকে। কিন্তু ডিফেন্সে তিনি যথার্থ ভুমিকা রাখতে পারেননি। যে কারণেই বাংলাদেশের রক্ষণভাগ অনেকটাই এলোমেলো হয়ে গিয়েছে। সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে জর্ডান দ্বিতীয়ার্ধের প্রথম ১৫ মিনিটেই ২ গোল আদায় করে নিয়েছে; ম্যাচের ফেরার আশা শেষ হয়ে গিয়েছে বাংলাদেশের।

কিছুটা রক্ষণাত্মক মনোভাবে থাকা আতিকুর রহমান মিশুর একটি ভুল থেকে এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ পেয়েছে জর্ডান। খেলার ১৩ মিনিটে বক্সের মধ্যে পায়ের বদলে হাত দিয়ে বল ছুঁয়েছেন তিনি। এতে চাইনিজ তাইপের রেফারি ইউ মিন সুন জর্ডানের পক্ষে পেনাল্টি দিয়েছেন। সেই পেনাল্টি থেকেই দলের প্রথম গোল করেছেন জর্ডানের আবদাল্লাহ দিব।

গোল খেয়েও দমে যায়নি বাংলাদেশ দল। খেলার ২০ মিনিটে মামুনুলের দুর্দান্ত কর্নার থেকে ইয়াসিন খান হেড নিয়েছিলেন। কিন্তু তা বারের সামান্য ওপর দিয়ে চলে যায়। ওই অবস্থায় সমতায় ফেরার দারুণ একটি সুযোগ মিস হয়েছে ডি ক্রুইফের শিষ্যদের।

৩১ মিনিটে সমতায় ফেরার আরো একবার সুযোগ পেয়েছে মামুনুলরা। ডানপ্রান্ত থেকে গোলরক্ষকসহ একাধিক ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে ক্রস করেছিলেন জুয়েল রানা। সেই বলে শট নিতে এগিয়েছিলেন জাহিদ হাসান এমিলি। কিন্তু শট নেওয়ার আগেই পড়ে যাওয়ায় শটটি জোড়ালো হয়নি। বলও নিশানা খুঁজে পায়নি।

বাংলাদেশ দু-দুটি গোলের সুযোগ মিস করলেও জর্ডান বসে থাকেনি। ৩৩ মিনিটে ব্যবধান ঠিকই দ্বিগুণ করেছে তারা। এ সময় বাম দিকের গোললাইন থেকে বাংলাদেশের ডিফেন্ডাররা ঠিকমতো বল ক্লিয়ার করতে পারেননি। তাই বক্সের মধ্যেই বল পেয়ে গিয়েছেন জর্ডান ফরোয়ার্ড মন্থার আবু আমারা। দুর্দান্ত শটে বাংলাদেশের জাল ভেদ করেছেন তিনি।

প্রথমার্ধের খেলা শেষ হওয়ার আগে আরো একবার গোলের সুযোগ পেয়েছে বাংলাদেশ। ৪৩ মিনিটে বক্সের সামনে বল পেয়ে যান জুয়েল রানা। জর্ডানের গোলরক্ষক সামনে এগিয়ে আসেন। গোলরক্ষক ও ডিফেন্সের চাপ সামলে সামনে এগুতে চাইলেও পারেননি জুয়েল রানা। ওই অবস্থায় সেখান থেকেই শট নিয়েছেন তিনি। তবে ফাঁকা পোস্টেও সেই শট লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়েছে; বল মাঠে বাইরে চলে গিয়েছে পোস্টের পাশ দিয়ে।

দ্বিতীয়ার্ধেও জর্ডানের গোলের সূচনা করেছেন সেই আবদাল্লাহ। ৫৭ মিনিটে ডানপ্রান্ত থেকে ফাদেল হাসানের ক্রসে বাংলাদেশের বক্সের সামনে জটলা থেকে আলতো শটে গোল করেছেন আবদাল্লাহ। দুই মিনিটের ব্যবধানে আরেকবার বাংলাদেশের জালে বল জড়িয়েছেন জর্ডানের ইয়াসিন বাকিত। ৪-০ ব্যবধানে পিছিয়ে পড়ে এলোমেলো হয়ে গিয়েছে বাংলাদেশ দল। শেষ দিকে আতিকুর রহমান মিশুর পরিবর্তে আবদুল বাতেন চৌধুরী কমল মাঠে নামলে আবারও উত্তাপ ছড়াতে থাকে; একাধিক গোলের সুযোগ সৃষ্টি করে বাংলাদেশ। শেষ অব্দি অবশ্য কোনো গোল আদায় করে নিতে পারেনি মামুনুলবাহিনী।

এই হারে বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ‘বি’ গ্রুপে মাত্র এক পয়েন্ট নিয়ে সবার নিচেই থেকে গিয়েছে বাংলাদেশ।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট