বালুরঘাট হাসপাতাল ভাঙচুর


শুক্রবার,২৩/১০/২০১৫
378

 পরিতোষ বর্মণঃ   এক রুগীর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে বালুরঘাট হাসপাতালে ভাঙচুর চালালো মৃতার আত্মীয়রা। চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ তুলে হাসপাতালে ভাঙচুর চালায় মৃতার আত্মীয়রা। মৃত যুবকের নাম মিঠুন সুত্রধর(২৪)। বাড়ি মিলন সংঘ এলাকায়। পুরুষ সার্জিক্যাল ওয়ার্ডের দরজার কাচ সহ রুগী থাকার বেডে ভাঙচুর চালায় তারা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে বালুরঘাট থানার পুলিশ।
পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার বিকেলে বালুরঘাটের উত্তমাশাপল্লী এলাকায় বাইক ও সাইকেলের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। ঘটনায় বাইকে থাকা মিঠুন ও সাইকেল আরোহী সহ মোট তিনজন আহত হয়। স্থানীয় এলাকাবাসিরা তাদের বালুরঘাট হাসপাতালে নিয়ে যান।  প্রাথমিক চিকিৎসারর পর সাইকেল আরোহী ও একজন বাইক আরোহীকে ছেড়ে দেয়। মিঠুনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে মালদা রেফার করে চিকিৎসকরা। মৃতার পরিবারের অভিযোগ,  চিকিৎসার গাফিলতির জন্য তার মৃত্যু হয়েছে। রুগীর অবস্থা খারাপ হয়া স্বতেও কোন চিকিৎসক আসেননি। এরপর তারা হাসপাতালে ভাঙচুর চালায়। পুরো ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। তবে এখন পর্যন্ত থানায় কোন অভিযোগ দায়ের হয় নি।
অন্য দিকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এর দাবি আনেক আগে তাকে রেফার করলেও তার পরিবার তাকে নিয়ে যায় নি।

এক রুগীর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে বালুরঘাট হাসপাতালে ভাঙচুর চালালো মৃতার আত্মীয়রা। চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ তুলে হাসপাতালে ভাঙচুর চালায় মৃতার আত্মীয়রা। মৃত যুবকের নাম মিঠুন সুত্রধর(২৪)। বাড়ি মিলন সংঘ এলাকায়। পুরুষ সার্জিক্যাল ওয়ার্ডের দরজার কাচ সহ রুগী থাকার বেডে ভাঙচুর চালায় তারা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে বালুরঘাট থানার পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার বিকেলে বালুরঘাটের উত্তমাশাপল্লী এলাকায় বাইক ও সাইকেলের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। ঘটনায় বাইকে থাকা মিঠুন ও সাইকেল আরোহী সহ মোট তিনজন আহত হয়। স্থানীয় এলাকাবাসিরা তাদের বালুরঘাট হাসপাতালে নিয়ে যান।  প্রাথমিক চিকিৎসারর পর সাইকেল আরোহী ও একজন বাইক আরোহীকে ছেড়ে দেয়। মিঠুনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে মালদা রেফার করে চিকিৎসকরা। মৃতার পরিবারের অভিযোগ,  চিকিৎসার গাফিলতির জন্য তার মৃত্যু হয়েছে। রুগীর অবস্থা খারাপ হয়া স্বতেও কোন চিকিৎসক আসেননি। এরপর তারা হাসপাতালে ভাঙচুর চালায়। পুরো ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। তবে এখন পর্যন্ত থানায় কোন অভিযোগ দায়ের হয় নি।

অন্য দিকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এর দাবি আনেক আগে তাকে রেফার করলেও তার পরিবার তাকে নিয়ে যায় নি।Paritosh Barman_photo

 

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট