ভারত – দক্ষিণ আফ্রিকা ওয়ানডেতে রেকর্ড -এর পাহাড়


সোমবার,২৬/১০/২০১৫
318

   খবরইন্ডিয়াঅনলাইনঃ  ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের পঞ্চম ওয়ানডেতে রেকর্ডের বন্যা বইয়ে গেছে!

মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে রবিবার  সিরিজ নির্ধারণী এই ম্যাচে আগে ব্যাট করে কুইন্টন ডি কক, ফাফ ডু প্লেসিস ও এবি ডি ভিলিয়ার্সের সেঞ্চুরিতে ৪ উইকেটে ৪৩৮ রানের পাহাড় গড়ে দক্ষিণ আফ্রিকা।

জবাবে ২২৪ রানেই অলআউট হয়ে যায় মহেন্দ্র সিং ধোনির দল। ২১৪ রানের বিশাল জয়ে পাঁচ ম্যাচ সিরিজ ৩-২-এ জিতে নেয় প্রোটিয়ারা।

এবার সংখ্যায় সংখ্যায় এই ম্যাচের বেশ কিছু রেকর্ড

এই ম্যাচে করা দক্ষিণ আফ্রিকার ৪৩৮ রান ভারতের মাটিতে যেকোনো দলের সর্বোচ্চ স্কোর। আগের সর্বোচ্চ স্কোরটি ছিল শ্রীলঙ্কার, ২০০৯ সালে রাজকোটে ৪১১ রান করেছিল লঙ্কানরা। আর ওয়ানডেতে ইতিহাসে যৌথভাবে তৃতীয় সর্বোচ্চ স্কোর। ওয়ানডের শীর্ষ ছয়টি দলীয় সর্বোচ্চ স্কোরের চারটিই দক্ষিণ আফ্রিকার। ওয়ানডের দলীয় সর্বোচ্চ রানের রেকর্ডটি শ্রীলঙ্কার, ২০০৬ সালে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ৯ উইকেটে ৪৪৩ রান।

ওয়ানডেতে এবার নিয়ে ছয়বার ৪০০ রানের বেশি স্কোর গড়ল দক্ষিণ আফ্রিকা, যা যেকোনো দলের সর্বোচ্চ। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পাঁচবার রয়েছে ভারতের। অস্ট্রেলিয়া ও শ্রীলঙ্কার রয়েছে দুবার করে। ওয়ানডে ইতিহাসে সব মিলিয়ে ১৭ বার ইনিংসে ৪০০ বা তার বেশি রান হয়েছে।

ওয়ানডে ইতিহাসে এবার নিয়ে দ্বিতীয় বারের মতো এক ইনিংসে তিন ব্যাটসম্যান সেঞ্চুরি করলেন। আগের কীর্তিটিও দক্ষিণ আফ্রিকারই। এ বছরের জানুয়ারিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সেঞ্চুরি করেছিলেন হাশিম আমলা, রাইলি রুশো ও ডি ভিলিয়ার্স। ওই ম্যাচেই ওয়ানডেতে দ্রুততম সেঞ্চুরির নতুন রেকর্ড গড়েন ডি ভিলিয়ার্স, ৩১ বলে সেঞ্চুরি।

৩৫৮- ওয়াংখেড়েতে যেকোনো দলের আগের সর্বোচ্চ এটি। ২০১১ বিশ্বকাপে কানাডার বিপক্ষে নিউজিল্যান্ড এই স্কোর গড়েছিল। দিবা-রাত্রির ম্যাচে ওয়াংখেড়েতে ওই একবারই কোনো দল তিনশোর বেশি রান করেছিল।

ডি ভিলিয়ার্সের ২২টি ওয়ানডে সেঞ্চুরির ৫টিই এসেছে ২৫ ওভারের পর ব্যাটিংয়ে নেমে, যা কোনো ব্যাটসম্যানের সর্বোচ্চ। ২৫ ওভারের পর ব্যাটিংয়ে নেমে একের অধিক সেঞ্চুরি আছে আর মাত্র একজন ব্যাটসম্যানের-বিরাট কোহলি, দুটি।

দক্ষিণ আফ্রিকা তাদের ইনিংসে ছক্কা হাঁকিয়েছে ২০টি, যা ওয়ানডেতে এক ইনিংসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। আর সর্বোচ্চ ২২টি, ২০১৪ সালে কুইন্সটাউনে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ২২টি ছক্কা হাঁকিয়েছিল নিউজিল্যান্ড।

হাশিম আমলা ছয় হাজার রান পূর্ণ করেছেন ১২৩ ইনিংসে, যা ওয়ানডেতে ক্রিকেটে সবচেয়ে কম ইনিংসে ছয় হাজার রান পূর্ণ করার নতুন রেকর্ড। আমলা ভেঙে দিয়েছেন কোহলির ১৩৬ ইনিংসে করা ছয় হাজার রানের রেকর্ডটি। এখন দ্রুততম দুই হাজার, তিন হাজার, চার হাজার, পাঁচ হাজার ও ছয় হাজার- সবগুলো রেকর্ডই আমলার দখলে।

এদিন ১০ ওভার বল করে ১০৬ রান খরচ করেন ভারতীয় পেসার ভুবনেশ্বর কুমার, যা ওয়ানডেতে এক ইনিংসে কোনো ভারতীয় বোলারের সবচেয়ে বেশি রান দেওয়ার রেকর্ড। আর ওয়ানডে ইতিহাসে সবচেয়ে খরুচে বোলারদের তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে আছেন ভুবনেশ্বর। সবার ওপরে আছেন অস্ট্রেলিয়ার পেসার মিক লুইস। ২০০৬ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ১০ ওভার বল করে ১১৩ রান দিয়েও উইকেটশুন্য ছিলেন তিনি।

ভারতের বিপক্ষে কুইন্টন ডি কক পাঁচটি সেঞ্চুরি করেছেন মাত্র ৯ ইনিংসে, যা কোনো দলের বিপক্ষে সবচেয়ে কম ইনিংসে পাঁচটি সেঞ্চুরির রেকর্ড। আগের রেকর্ডটি ছিল পাকিস্তানের সালমান বাটের, ১৮ ইনিংসে। সেটাও ভারতের বিপক্ষেই।

তৃতীয় উইকেটে ডি ভিলিয়ার্স ও ডু প্লেসিস মিলে ১৬৪* রানের জুটি গড়েন, যা ভারতের বিপক্ষে তৃতীয় উইকেটে দক্ষিণ আফ্রিকার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সংগ্রহ। সর্বোচ্চ ১৭৩* রান, ২০১০ সালে আহমেদাবাদে সে জুটিতেও ছিলেন ডি ভিলিয়ার্স, তার সঙ্গী ছিলেন জ্যাক ক্যালিস। এটাই ভারতের সবচেয়ে বড় পরাজয়।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট