অধীর চৌধুরী বললেন, মমতার মনে পড়ে ভোটের সময় নন্দীগ্রাম ও সিঙ্গুর


মঙ্গলবার,২২/১২/২০১৫
286

 খবরইন্ডিয়াঅনলাইনঃ    ভোটের স্বার্থেই সিঙ্গুর, নন্দীগ্রাম ইস্যুকে ব্যবহার করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ভোট মিটলে আবার ভুলে যান। সিঙ্গুরের সভা থেকে তৃণমূলনেত্রীকে আক্রমণ অধীর চৌধুরীর। সারদায় জেলবন্দি মদন মিত্রর প্রসঙ্গ টেনেও মুখ্যমন্ত্রীকে একহাত নিয়েছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি।

শিল্প গিয়েছে,  এখন চাষেরও অযোগ্য টাটার ন্যানো প্রকল্পের জমি। এই প্রেক্ষাপটে সিঙ্গুরের মাটিতে দাঁড়িয়েই তৃণমূলের জমি-আন্দোলনকে কাঠগড়ায় তুললেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী। ‘সিঙ্গুর চলো’ কর্মসূচিকে সামনে রেখে রবিবার স্টেশন লাগোয়া বুড়োশান্তি ময়দানে সভা করে জেলা কংগ্রেস। বক্তৃতায় রাজ্য সরকারের সিঙ্গুর-নীতি নিয়ে প্রশ্ন তোলেন অধীর চৌধুরী।

ক্লাব-অনুদানের প্রসঙ্গ টেনে তাঁর অভিযোগ, যে সিঙ্গুরের সব চলে গিয়েছে, আজ তাঁর বাসিন্দাদের সমর্থন কিনতে সস্তায় চালের টোপ দিচ্ছে তৃণমূল সরকার। প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি বলেন, সিঙ্গুরে না কৃষি, না শিল্প হল। চা বাগান ও জঙ্গলমহলের মতো এখানে চাল দিল। চালই ওর কাছে শেষ কথা। ক্লাবকে টাকা দিয়ে যেমন সমর্থন কেনে, তেমনই চাল কেনে। সিঙ্গুরের কৃষকরা মমতার ওপর ভরসা রাখতে পারেন না।

সূত্রের খবর, শনিবার, কালীঘাটের দলীয় বৈঠকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বার্তা দেন, এখনও তিনি বিশ্বাস করেন, মদন মিত্র চুরি করেননি। এই প্রসঙ্গ টেনেও এদিন তৃণমূলনেত্রীকে নিশানা করেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি। এই প্রসঙ্গে অধীর চৌধুরী বলেন, মদন চুরি করেছে বলছে বিশ্বাস করি না, কিছুদিন আগে বলেছিলেন চোরেদের সঙ্গে সম্পর্ক নেই। চোরদের আগলে রাখতে চাইছে। দিদি প্রস্তুত থাকুন, সিবিআই জেরা করবে।

সিঙ্গুর হোক কিংবা সারদা,  সেদিকেই নজর রাজনৈতিক মহলের।

 

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট