কালিয়াগঞ্জে ৭ হাত হনুমান পুজা


মঙ্গলবার,২৯/১২/২০১৫
507

 বিকাশ সাহাঃ   বাঙালীর বারো মাসে তেরো পার্বণেও বর্তমানে শুরু হয়েছে প্রতিযোগিতা। কথাও বা বিগ বাজেটের পূজো। আবার কোথাও বিশাল প্রতিমা তৈরি করে মানুষ কে তাক লাগিয়ে দেওয়ার প্রতিযোগিতা। এমনটায় দেখা গেল কালিয়াগঞ্জে। এদিন মঙ্গলবার রাতে ৭ হাত হনুমান পুজা করে তাক লাগিয়ে দিলেন ২ নম্বর ধনকৈল গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত কুলাইতোর হাট এলাকার রামকৃষ্ণপুর গ্রামের বাসিন্দারা। এই গ্রাম ছাড়া ৭ হাত হনুমান পূজা কালিয়াগঞ্জ ব্লকের মানুষ এযাবতকাল পর্যন্ত দেখেন নি। ফলে এদিনের হনুমান পূজা দেখতে ভীড় জমান পার্শ্ববর্তী গ্রামের কয়েকশ মানুষ। শীতের ঘন কুয়াশাকে উপেক্ষা করে চাদর, মাপলার জড়িয়ে গ্রামবাসীরা এই বিশালাকার হনুমান মূর্তিটিকে দেখতে ছুটে এসেছেন। হনুমানের ছোট আকারের মূর্তিতো বেশ কয়েক জায়গায় পূজা হয়। সেই সব মূর্তি সাধারণ মানুষের দ্বারা পূজিত হলেও এলাকায় তেমন সাড়া ফেলাতে পারেনা। শুধুমাত্র ৭ হাত বলেই সাড়া ফেলে দিয়েছে রামকৃষ্ণপুরের এই হনুমান পূজো। পূজোকে কেন্দ্র করে ৪ দিন ধরে চলবে বাউল গান ও মনোজ্ঞ সংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। বুধবার ও বৃহস্পতিবার পূজা মণ্ডপের সামনে গোটা রাত ব্যাপী চলবে বাঊল গানের আসোর। উত্তর দিনাজপুর জেলা ও কোচবিহার জেলা থেকে বাঊল শিল্পীরা এসে বাঊল গানে মাতিয়ে দেবেন গোটা গ্রাম। শুক্রবার ও শনিবার এখানে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের সাথে সাথে বসবে বিশাল মেলা। মেলা শেষে হনুমান মূর্তির বিসর্জন দেওয়া হবে।
৭ হাত হনুমান পুজা কমিটির সম্পাদক প্রভাত দেবশর্মা বলেন, গ্রামে শান্তি শৃঙ্খলার পরিবেশ বজায় রাখতে গত বছরের মত আবারও আমরা ৭ হাত হনুমান পুজার আয়োজন করেছি। যা গোটা ব্লকে এইবার দিয়ে দ্বিতীয়বার এত বড় মাপের হনুমান পুজা হচ্ছে। গ্রামবাসীদের কাছে চাঁদা তুলে আমরা এই পুজোর আয়োজন করি। পুজোর দিন পিঠে, পায়েস ও লাড্ডু ভোগের আয়োজন করা হয়। যা কয়েকশ গ্রামবাসী প্রসাদ হিসেবে গ্রহন করেন। DSCN8170

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট