মাটি উৎসবে সম্মানিত হলেন কালিয়াগঞ্জের কৃষক রত্ন প্রাপ্ত তারা প্রসাদ


বুধবার,২০/০১/২০১৬
461

ফের একবার সম্মানিত হলেন কালিয়াগঞ্জের কৃষক রত্ন প্রাপ্ত তারা প্রসাদ। বর্ধমানের মাটি উৎসব-২০১৬ এর মঞ্চে মঙ্গলবার দুপুরে সম্মানিত হন তারা বাবু। উপহার হিসেবে মাটি উৎসবের মঞ্চ থেকেই তারা বাবুর হাতে মোমেন্ট, শাল ও শৌখিন মাটির পাত্র তুলে দেওয়া হয়। বর্ধমান থেকে এদিন বুধবার কালিয়াগঞ্জে এসে তাঁর এই কৃতিত্বের জন্য জেলার এগ্রিকালচার ও হটিকালচার অফিসারদের ভূয়সী প্রশংসা করেন তিনি। তারা বাবু জানান, উত্তর দিনাজপুর জেলার এগ্রিকালচার ও হটিকালচার অফিসাররা যেভাবে জেলার কৃষকদের কৃষি ক্ষেত্রের মানোন্নয়নের জন্য সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন তাঁর ফল স্বরূপ কালিয়াগঞ্জের মত গঞ্জ এলাকার মানুষ হয়ে রাজ্যের অনুষ্ঠানে আমরা সন্মানিত ও পুরস্কৃত হতে পাড়ছি।
উল্লেখ্য ২০১৪ সালে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় সবুজ সাথী অনুষ্ঠানে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর হাতে পিঁয়াজের বীজ নিয়ে চাষ করে ভাল ফলন করার পরথেকেই জেলার এগ্রিকালচার ও হটিকালচার অফিসারদের নজরে পড়েন তারা বাবু। এরপরেই ২০১৫ সালের ২৪ শে জানুয়ারি মুখ্যমন্ত্রীর হাতে কৃষকরত্ন পান তিনি। কৃষকরত্ন হিসেবে ২৫০০০ টাকার চেক, উত্তরীয় ও মানপত্র পেয়েছিলেন । ২০১৫ সালে দক্ষিণ চব্বিশ পরগণা জেলায় অনুষ্ঠিত লিচু উৎসবে তিনি পশ্চিমবঙ্গে দ্বিতীয়স্থান অধিকার করেন। কালিয়াগঞ্জের কাঁকড়া মোড় এলাকায় অবস্থিত তাঁর “প্রসাদ নার্সারির” মানোন্নয়নের জন্য ২০১৫ সালের ২৯ শে ডিসেম্বর গোয়ালপোখরে সরকারী অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী তাঁর হাতে ৩ লক্ষ ১২ হাজার ৫০০ টাকার চেক প্রদান করেন। এরপরে আবার মাটি উৎসবে সন্মানিত হওয়ায় আপ্লুত তারা বাবু।
তারা বাবু জানান, এগ্রিকালচার ও হটিকালচার সম্পর্কে গোটা বছর ধরে প্রসাদ নার্সারিতে জেলা হটিকালচার অফিসার দীপক কুমার সরকারের নেতৃত্বে বিভিন্ন ট্রেনিং এর ব্যবস্থা করা হয়ে থাকে। স্বর্ণজয়ন্তী দল ও উৎসাহী ছেলেরা বছরের বিভিন্ন সময় এগ্রিকালচার ও হটিকালচার ট্রেনিং নেয় এখানে।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট