Motivation Trainer ‘কৌশিক দাস’ এর একান্ত সাক্ষাৎকার


সোমবার,০৩/০৭/২০১৭
2052

সাক্ষাৎকার : উৎসাহমূলক প্রশিক্ষণের বা ‘মোটিভিশন ট্রেনিং’-এর ক্ষেত্রে একটি সুপ্রশিদ্ধ নাম হল ‘কৌশিক দাস’। বিশেষ করে বাংলা ভাষায় মোটিভেশন ট্রেনিং-এ কৌশিক দাস- একমাত্র ট্রেনার, যিনি পশ্চিমবঙ্গ তথা সমগ্র ভারতবর্ষে একটি অতি পরিচিত নাম। ‘নিউজ বেলাশেষে’ এর পক্ষথেকে আমরা কৌশিক দাসের সাক্ষাৎকার নিয়েছিলাম। যা এই পর্বে প্রকাশিত হল।

প্রশ্ন: আপনি কোন কোন ধরণের ট্রেনিং দেন?
উ: Motivation এ ট্রেনিং এর অনেকগুলি দিক আছে তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল ১. মাইন্ড পাওয়ার,২. ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে ওয়ার্কসপ করা, ৩. দল গঠন ও দলগত ভাবে কাজ করা। ৪. ব্যক্তিগত ও পেশাদারী উন্নতি, ৫. ইতিবাচক মনোভাবের মাধ্যমে সাফল্য। ৬. লক্ষ্য ঠিক করা এবং কাজের
অগ্রাধিকার ম্যানেজ করা। ৭. কার্যকর যোগযোগ দক্ষতা নেতৃত্ব দক্ষতা ও শৈলী ইত্যাদি।

প্রশ্ন: আপনার অভিজ্ঞতা সম্পর্কে যদি বলেন?
উ: ভারতে Direct Selling Industry ১৬ বছরের বেশী কাজ করার অভিজ্ঞতা আছে। আমি IRDA- এর একজন প্রশিক্ষক। আমার Calcutta Stock Exchange এর সাথে কাজ করার অভিজ্ঞতা আছে। আমি Calcutta Stock Exchange এর একজন Certified  প্রশিক্ষক। এছাড়াও আমি Banking & Finance Management একজন প্রশিক্ষক হিসাবে কাজ করি।

প্রশ্ন: বর্তমানে আপনি কোন বিষয়ে নিয়ে ব্যস্ত আছেন?
উ: বর্তমানে আমি বিভিন্ন Direct Selling কোম্পানীতে একজন Business প্রশিক্ষক এবং  বিভিন্ন (Motivation) উৎসাহমূলক প্রশিক্ষনের সাথে যুক্ত। Direct Selling Business  এর উল্লেখযোগ্য নাম হল- FLABIA FRESH Pvt ltd( INDIA) এবং শিক্ষাকেন্দ্র “ National Institute Of Digital Education  ” এর সাথে কাজ করছি।

প্রশ্ন: বাংলা ভাষায় আপনি ছাড়া আর কেওকি এই ট্রেনিং নিয়ে কাজ করছে ?
উ: আমি যথটা জানি বাংলাতে খুব কম ব্যক্তি উৎসাহমূলক (Motivation) প্রশিক্ষন নিয়ে কাজ করছে । তবে হিন্দি ও ইংরেজি ভাষায় অনেকেই আছেন।

প্রশ্ন: একজন Teacher এবং একজন Trainer এর মধ্যে কি কোনো পার্থক্য আছে?
উ: অবশ্যই হ্যাঁ, একজন Teacher শুধুমাত্র পুঁথিগত শিক্ষাদান করেন কিন্তু একজন Trainer বাস্তবের উপর দাড়িয়ে জীবনের কীভাবে লক্ষে যাওয়া যায়। কীভাবে জীবনে সফল হওয়া যায় তা শেখায়।

প্রশ্ন: উৎসাহমূলক (Motivation) ট্রেনিং নেওয়া কেন দরকার?
উ: জীবন সফল হওয়ার জন্যে কতগুলি শর্তপূরণ করতে হয়। সময়টাকে কীভাবে সঠিকভাবে
কাজে লাগানো হয়, তা শেখানো হয়। তাই জীবনে সফল হতে, জীবনের বাস্তব চরিত্রকে বুঝতে
এই ট্রেনিং এর বিকল্প নেই।

প্রশ্ন: কোথায় কখন আপনার ট্রেনিং হচ্ছে সাধারণ মানুষ তা জানতে পারে কীভাবে?
উ: আমি ২০১৬ সালে অক্টোবর মাসে ভারতের একটি অতি পরিচিত কম্পিউটার প্রশিক্ষন ব্রান্ড এর সাথে এই বিষয়ে একটি চুক্তি সাক্ষরিত করেছি। চুক্তি অনুযায়ী Motivation এর উপর আমার কাছ থেকে ট্রেনিং নিতে গেলে “ National Institute Of Digital Education  ” সাথে যোগাযোগ করতে হবে।নাইড এর ওয়েবসাইটে www.nideindia.in অথবা ৯৭৩৩৩৭৭৪৪৪ এই নম্বরে যোগাযোগ করতে পারেন।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট