কেকেআর দলে নতুন চমক” নাইট রাইডার্স শিবিরে স্টার্ক এর প্রত্যাবর্তন


শনিবার,২৭/০১/২০১৮

শুভ বিশ্বাস:

নিলামের শুরুতে কলকাতা শিবিরে নতুন চমক, কলকাতা নাইট রাইডার্সে এলেন অসি পেস তারকা মিচেল স্টার্ক।এই তারকা পেসবলার কে পেয়ে উচ্ছসিত নাইট শিবির। ৯ কোটি ৪০ লক্ষ টাকায় স্টার্ককে কিনেছে শাহরুখ খানের দল। তবে দলে জায়গা পেলেন না মনীশ পাণ্ডে।

মণীশ পাণ্ডেকে ছেড়ে দিলেও ক্রিস লিনকে দলে রেখে দিল কলকাতা। ৯ কোটি ৬০ লক্ষ টাকায় অস্ট্রেলিয়ার এই ডানহাতি মারকুটে ব্যাটসম্যানকে কিনে নিল কেকেআর। গত মরশুমেও শাহরুখের দলেই ছিলেন লিন। ১ কোটির বেস প্রাইস থাকা মণীশের দাম দরাদরিতে পৌঁছয় ১১ কোটিতে। শেষ পর্যন্ত তাঁকে কিনে নেয়।  সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।

মনীশের মত তারকা প্লেয়ার কে নিয়ে উচ্ছসিত হায়দ্রাবাদ। নিলামে অন্যান্য দল নিজেদের শিবির  বেশ কিছুটা গুছিয়ে নিলেও প্রথম তিন রাউন্ডে স্টার্ক এবং লিন ছাড়া কোনও ক্রিকেটারকেই দলে নেয়নি কেকেআর। কেকে আর এর নিলামে হয়ত এটা নতুন স্ট্যাটেজি। আগের বছর সহজেই নজর কেড়েছিলেন তারকা প্লেয়ার মনীশ পাণ্ডে তাকে চলতি মরশুমে দলে না নিয়ে কি ঠিক করল নাইট শিবির তা নিয়ে এক বড় প্রশ্নচিহ্ন রয়েছে। ভারতীয়দের মধ্যে এখনও পর্যন্ত সবথেকে বেশি দামে বিক্রি হলেন কেএল রাহুল ও মণীশ শর্মা। বেঙ্গালুরু কেএল রাহুলকে রাখেনি।

তাঁকে ১১  কোটি টাকা দিয়ে কিনে নিল পঞ্জাব। অজিঙ্ক রাহানের বেস প্রাইস ২ কোটি। ৪ কোটি দর দেয় কিংস ইলেভেন। রাজস্থান রয়্যালস রেখে দেয় রাইট টু ম্যাচের মাধ্যমে। দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ফাফ ডুপ্লেসির বেস প্রাইস দেড়কোটি। কিংস ইলেভেন তাঁকে ১.৬০ কোটি টাকা দিয়ে কেনার চেষ্টা করে। কিন্তু চেন্নাই সুপার কিংস রাইট টু ম্যাচ কার্ড ব্যবহার করে রেখে দেয় তাঁকে।করুণ নায়ারকেও ৫ কোটি ৬০ লক্ষ টাকায় দলে নেয় প্রীতি জিন্টার দল। সাড়ে সাত কোটি টাকায় ইংল্যান্ডের ক্রিস ওকসকে কিনে নেয় রয়্যাল চ্যালেঞ্জাস ব্যাঙ্গালোর। তবে শেষমেশ  যুবরাজ সিং কে কিনে নেয় কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। তবে কেকে আর শিবিরে নতুন চমক দেখা যাবে চলতি মরশুমে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

জানা অজানা

সাহিত্য / কবিতা

সম্পাদকীয়


ফেসবুক আপডেট