মনোনয়ন দাখিলের অভিযোগ দুটি আসনে 


বুধবার,২৫/০৪/২০১৮
552

বাংলা এক্সপ্রেস, দক্ষিন দিনাজপুরঃ অভিযোগ উঠল মনোনয়ন জমা নিয়ে বির্তকে জড়ানো গতবারের জয়ী জেলা পরিষদের তৃণমূল প্রার্থী মনোরমা দাসের বিরুদ্ধে। মনোরমা দাস জেলা পরিষদ আসন ও পঞ্চায়েত সমিতির আসন থেকে মনোনয়ন জমা দেওয়ায় বিডিও-র কাছে তার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হল কংগ্রেসের তরফ থেকে। পুরো ঘটনাটি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন বিডিও।

জানা গিয়েছে, গতবার জেলা পরিষদের ১০ নং আসন থেকে জয়ী হন তৃণমূল প্রার্থী মনোরমা দাস। তবে এবার দল তাকে টিকিট দেয়নি। তৃণমূলের হয়ে টিকিট না পেলেও তিনি গত ৯ই এপ্রিল গতবারের জয়ী আসন তৃণমূলের প্রতীকেই মনোনয়ন জমা করেন। এদিকে ওই একই আসনে তৃণমূলের হয়ে মনোনয়ন জমা করেন শিপ্রা নিয়োগী পাল। দলীয় গোষ্ঠী-কোন্দল প্রকাশ্যে আসায় ড্যামেজ কন্ট্রোলে নামেন সাংসদ অর্পিতা ঘোষ।
এদিকে মনোরমা দাসের বিরুদ্ধে আগেই অভিযোগ পড়ে মহকুমা শাসকের কাছে। চলতি ঠিকাদারী লাইসেন্স থাকায় তিনি মনোনয়ন দাখিল করতে পারেন কী করে? আর এই অভিযোগ দায়ের করেন তৃণমূলের বিরোধী গোষ্ঠী। এরপর

১২ই এপ্রিল অর্পিতা ঘোষের উপস্থিতিতে দাখিল করা মনোনয়ন তুলে নেন মনোরমা দেবী।
এদিকে জেলা কংগ্রেসের পক্ষ থেকে মঙ্গলবার বিডিও-র কাছে অভিযোগ জানানো হয়, মনোরমা দাস জেলা পরিষদের ১০ নং আসন ও পঞ্চায়েত সমিতির ২নম্বর আসনে মনোনয়ন দাখিল করেন। একজন ব্যক্তি দুটি আসনে মনোনয়ন কোনোভাবেই দিতে পারেন না। তাহলে তিনি কী করে মনোনয়ন দিলেন। যদিও পরে জেলা পরিষদের হয়ে দাখিল করা মনোনয়ন তুলে নেন তিনি।

এবিষয়ে ভাটপাড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের কংগ্রেস কমিটির সভাপতি সূর্যনাথ পাহান জানান, ত্রিস্তর পঞ্চায়েত নির্বাচনে একই ব্যক্তি দুটি আসনে মনোনয়ন জমা দিতে পারেন না। তবে ভাটপাড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান তথা তৃণমূল নেতা লগিন দাসের স্ত্রী মনোরমা দাস জেলা পরিষদ ও পঞ্চায়েত সমিতির আসন থেকে মনোনয়ন জমা করেন যা পঞ্চায়েত আইনের পরিপন্থী। আর এই বিষয়েই তিনি বিডিও-র কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন।
মনোরমা দাস জানান, জেলা পরিষদ আসনে দাখিল করা মনোনয়নপত্র দলের নির্দেশ অনুযায়ী অনেক আগেই তিনি তুলে নিয়েছেন। অন্যদিকে পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন বালুরঘাটের বিডিও সুস্মিতা সুব্বা।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট