প্রিয় বিহীন শ্রীকলোনীর শ্রী


বৃহস্পতিবার,২৬/০৪/২০১৮
297

পিয়া গুপ্তা ,উত্তর দিনাজপুর : প্রিয়দা আসবে ফিরে উত্তরদিনাজপুরে।কালিয়াগঞ্জের শ্রীকলনীর বাড়িতে।আবার সকলকে বলবে তোরা কেমন আছিস?প্রিয় দার হাত ধরে আবার গতি ফিরবে কালিয়াগঞ্জ কংগ্রেসের ।
সব আপন জন ই চেয়েছিল তাদের প্রিয়দা আসবে ফিরে কালিয়াগঞ্জের শ্রীকলনীর বাড়িতে।কিন্তু না এসে পৌছায় দুঃসাংবাদ।প্রয়াত হয়েছেন প্রিয়রঞ্জন দাশমন্সী। অসুস্থ  থাকায়  আসতেন না ঠিকই কিন্তু তার প্রিয়জনদেরআশা ছিলই তিনি আসবেন ই ফিরে ।আজ সব কিছুই অতীত হয়ে গেছে আর তাই জীবনে অনেক হেরে যাওয়ার লড়াইমিরাক্কাল ঘটিয়ে হেরে যাওয়ার লড়াইয়ে জিতেযাওয়ার অভ্যাস ছিল প্রিয়রঞ্জনের। কিন্তু নিজের জীবনের লড়াই এ কোন মিরাক্কাল ঘটল না।
পাশের বাড়ির ছেলে বৈদ্যের (প্রিয়রঞ্জন  দাশমুন্সি )মৃত্যু সংবাদে  সব যেন নিমেষে কেড়ে নিয়েছিল তার পরিজনদের।প্রিয় দার অসুস্থতার পর থেকেই অভিভাবক হীন জেলার কংগ্রেস মহল যেন ধীরে ধীরে গতি হারিয়ে দেয় ।যে কংগ্রেস বাগান কে একটু একটু করে হাতে গড়ে তুলেছিলেন তাদের  প্রিয় দা।তার মৃত্যু যেন জেলার কংগ্রেসের সেই বাগান কে নষ্ট করে দেয় ।রাজনৈতিক জীবন থেকে পারিবারিক জীবন সবাই তাকে ভীষণ ভালোবাসতেন।তার কালিয়াগঞ্জের পৈতৃক সেই ভিটে
বাড়িতে এখনো রয়েছে রান্নার সব কিছুইসরাঞ্জম। বাড়িতে যিনি রান্না করতেন তিনি মনেমনে ভাবছেন প্রিয়দার মনের মতো রান্না কি আর  হবে এই বাড়িতে ?রাজ্যের গন্ডী ছড়িয়ে জাতীয় রাজনিতিতে এক উজ্জল জ্যেতিস্কের মতোই থেকে গিয়েছেন প্রিয়দার কালিয়াগঞ্জের বাড়ির যিনি রান্নারদায়িত্বে ছিলেন তিনি বলেন দাদার প্রিয় ছিল মুসুড়ির ডাল,লাল শাখ, রুইমাছের ঝোল  ওআলুর সাথে ডাটা দিয়ে পাতলা  ঝোলআজ সব কিছুই অতীত হয়ে গেছে ।প্রতিবেশীরাও ছিলেন আপন জন। চায়েরদোকানে আড্ডা থেকে আত্মীয়তা। প্রিয়রঞ্জনসবার কাছে বড্ড ভালো মানুষ।মুখের জরায় আর ঝপসা চশমায় বাধক্য ভোলেনি  প্রিয় কে।
কালিয়াগঞ্জ কংগ্রেসের সভাপতি  সুজিত দত্ত জানান নির্বাচনের সময় নেতা নেত্রীদের আনা গোনায চাঁদের হাটে যেন সরগরম করতো প্রিয় দার বাড়ীর চারিদিকে।সবাই কি ভাবে নামবেন নির্বাচনের ময়দানে ।কি থাকবে প্রচারে প্রধান ইস্যু ।কিভাবে প্রতি পক্ষ কে বধ করবেন।সব কিছুই বাড়ির অন্দর মহলে বসে প্রিয় দাদা সবাই কে ঠিক করে দিতেন।একেক জন একেক দায়িত্ব তুলে নিতেন।শুধু তাই নয় এই জেলা ছাড়িয়ে অন্য জেলার নেতারাও দাদার পরামর্শ নিতে যে বাড়িতে ছুটে আসতেন আজ সেই বাড়ি রয়ে গিয়েছে ।পাড়ার নাম ও শ্রী কলোনীই আছে।অথচ যার শ্রীর মাধ্যমে একটা সময় যে পাড়ার  শ্রীকলোনির শ্রীবৃদ্ধি হয়েছিল সেই মানুষ টা আজ আর নেই।তার চলে যাওয়ায় আজ জেলার কংগ্রেস মহল অভিভাবকহীন অস্তিত্ব সংকটে ভুগছে।
Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট