আলুর দাম হঠাৎ বেড়ে যাওয়ায় ক্ষুব্ধ সাধারণ মানুষ


সোমবার,২১/০৫/২০১৮

বাংলা এক্সপ্রেস---

পঞ্চায়েত নির্বাচন শেষ হবার পরেও যেমন নির্বাচনের ফলাফল নিয়ে চায়ের দোকানে চুলচেরা বিশ্লেষণ চলছে আর সেই আলোচনায় এখন আবার  স্থান করে নিয়েছে সবার প্রিয় আলু। মাত্রকয়েক দিন আগেও যে আলুর দাম বাজারে ছিল ৯টাকা থেকে ১০টাকা।সেই আলুর দাম একলাফে দ্বিগুন হয়ে যাবার ফলে অর্থাৎ ২০টাকা কেজি হবার কারনে সাধারণ ক্রেতারা বড়ই সমস্যার মধ্যে পড়েছে বলে জানা যায়।উত্তরদিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ,হেমতাবাদ,ইটাহার ও কালিয়াগঞ্জর আলু ব্যবসায়ীদের আলুর দাম হটাৎ করে এক লাফে বেড়ে যাবার কারন কি প্রশ্ন করলে আলু ব্যবসায়ীরা বলেন এর আসল কারন কি আমরা আলু ব্যবসায়ী হয়েও বলতে পারবো না। তবে আলুর দাম যে আরো বাড়বে খুব শীঘ্রই তা বলার অপেক্ষা রাখেনা।উত্তরদিনাজপুর জেলার ছোট ছোট সব্জি দোকানদারদের বক্তব্য তারা পরেছে সমস্যার মধ্যে।

তাদের দোকানের আলু বিক্রি আগের তুলনায় অনেক কমে গেছে।যে ক্রেতারা এক কেজি আলু নিতো কদিন আগেও তারা এক লাফে দাম বেড়ে যাওয়ার কারণে এখন তারা হাফ কেজি আবার কেও কেও আড়াইশো নিয়ে যাচ্ছে।আলুর দাম বেড়ে গেলেও প্রশাসন নীরব দর্শক মাত্র।আলুর দাম বেড়ে যাবার ফলে দরিদ্র মানুষেরা চরম অসুবিধার মধ্যে দিন কাটাচ্ছে।অবিলম্বে প্রশাসন থেকে ব্যবস্থা না নিলে এইসমস্যার সমাধান অসম্ভব হয়ে  দাঁড়াবে বলে ক্রেতা ও বিক্রেতা উভয়েরই একইকথা। কালিয়াগঞ্জের মহেন্দ্রগঞ্জ বাজারের

একজন সাধারন ক্রেতা মহাদেব ভট্টাচার্য ক্ষুব্ধ হয়ে বললেন আমাদের রাজ্যসরকারের দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি নিয়ে কোন হেলদোল নেই।  সরকার শুধু নির্বাচন নিয়েই ব্যাস্ত থাকলে সাধারণ মানুষের এই হাল ছাড়া আর কি হতে পারে?কালিয়াগঞ্জ পৌর বাজারে এক প্রশ্নের উত্তরে সুবিমল চৌধরী বলেন উত্তরদিনাজপুর জেলায় নাকি একটি টাস্কফোর্স আছে শুনেছি তবে তাদের যে কাজের জন্য রাখা হয়েছে সে দায়িত্ব তারা আদৌ পালন করেনা।ফলে সাধারণ মানুষের যাহবার তাই হচ্ছে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি যে ভাবে হতে চলেছে তাতে ট্যাক্স ফোর্সের কি যায় আসে।কমিটিতে নাম রেখে দিয়েছে বলেই বাজারে বাজারে ঘুরতে হবে তারকি মানে আছে।

তবে যেভাবে লাফিয়েলাফিয়ে আলুর  দাম বৃদ্ধি পাচ্ছে খুব শিগ্রই আলু নিয়ে যে বাজার গরম হবেএতে কোন সন্দেহ নেই।তাই বাজার গরমহবার আগেই জেলার  খাদ্য দপ্তর যদি আলুর দাম বৃদ্ধি রোধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেওয়া যায় তাহলে  হয়তো কিছুটা সুরাহা হলেও হতে পারে বলে অনেকেই মনে করছে। প্রকাশ থাকে যে,এক শ্রেণীর হিমঘরে রাখা আলুর ব্যবসায়ীরা হিমঘর থেকে আলু বের করে বাজারে না ছাড়াই আলুর দাম বৃদ্ধির মূল কারণ বলে জানা যায় ।

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

জানা অজানা

সাহিত্য / কবিতা

সম্পাদকীয়


ফেসবুক আপডেট