পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা যুব সভাপতি রমা প্রসাদ গিরির উদ্যোগে আবারও স্কুলে


রবিবার,০৫/০৮/২০১৮
321

বাংলা এক্সপ্রেস---

পশ্চিম মেদিনীপুর: আর্থিক অনটনের জন্য মাধ্যমিকের পর ছেলেকে আর পড়াতে না পেরে মুদি দোকানে কাজে ঢুকিয়ে দেয় বাবা, কিন্তু ছেলের অদম্য ইচ্ছায় নিজে হাজির হয়ে যায় পার্টি অফিসে। সেখান থেকে স্কুল এবং স্কুলের প্রধান শিক্ষকের সৌজন্যে আবার ভর্তি হল একাদশ শ্রেণিতে। ঘটনাটি পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার মেদিনীপুর শহরের বেড়বল্লভপুর এলাকায়।

বাবা পেশায় ভ্যান চালক, পড়ানোর মতো ক্ষমতা নেই। তাই মাধ্যমিকের পরেই ছেলেকে মুদি দোকানে কাজে ঢুকিয়ে দেয়। কিন্তু মন মানে না ছেলের। তাই বাধ্য হয়ে পড়ার জন্য হাজির হয় সরাসরি পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা যুব তৃনমূলের পার্টি অফিসে। সেখানে সাক্ষাৎ হয় জেলা যুব সভাপতি রমা প্রসাদ গিরির সাথে। সেখানে গিয়ে বলে, সে পড়তে চায়। সাথে সাথেই যুব সভাপতি তখনই দুই যুবককে দিয়ে সৌরভ দে নামের এই ছাত্রকে ২ যুবক কে দিয়ে পাঠিয়ে দেয় মেদিনীপুর টাউন স্কুল এ। ভর্তির যাবতীয় খরচ তিনিই নেবেন বলে জানান।

কিন্তু স্কুলে গিয়ে পুরো কাহিনী বলার পর স্কুলের প্রধান শিক্ষক বিবেকানন্দ চক্রবর্তী নিজেই সেই ছাত্রকে বিনামূল্যে ভর্তি ফি ছাড়া ভর্তি করিয়ে নেন এবং জানিয়ে দেন স্কুল থেকেই তার বই-খাতার ব্যবস্থাও করে দেওয়া হবে। পাশাপাশি যদি কোনো গৃহ শিক্ষকের প্রয়োজন হয় সেদিকে যেনো নজর দেওয়া হয়। সেই মতো আজকে স্কুলে গিয়ে ভর্তি হয় মেদিনীপুর শহরের বেড় বল্লভপুরের সৌরভ দে। তার পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাস দেন স্থানীয় তৃণমূল নেতা সুশময় মুখার্জী, কাউন্সিলার কল্পনা মুখার্জী প্রমুখ। এতে খুশি এই ছাত্র। প্রায় দু’মাস আগে স্কুলে ভর্তির প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। এমতাবস্থায় যেখানে আর পড়ার কোনো আশাই ছিল না, সেখানে নতুন করে একসাথে ভর্তি এবং বই খাতা পেয়ে খুশি এই ছাত্র। আগামী দিনে পড়াশোনা নিয়মিত করে যেতে চাই সে।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট