রাজীব গান্ধী স্মরণে


সোমবার,২০/০৮/২০১৮
443

বাংলা এক্সপ্রেস---

রাজীব রত্ন গান্ধী ২০শে আগস্ট, ১৯৪৪ -সালে জন্মগ্রহণ করেন । তিনি ছিলেন ভারতের সপ্তম প্রধানমন্ত্রী। তিনি ইন্দিরা নেহেরু ও ফিরোজ গান্ধীর জ্যৈষ্ঠ পুত্র। ১৯৮৪ সালের ৩১শে অক্টোবর মায়ের মৃত্যুর দিন মাত্র চল্লিশ বছর বয়সে তিনি দেশের কনিষ্ঠতম প্রধানমন্ত্রীরূপে কার্যভার গ্রহণ করেন। ১৯৮৯ সালের ২রা ডিসেম্বর সাধারণ নির্বাচনে পরাজয়ের পর পদত্যাগ করার আগে পর্যন্ত তিনি ভারতের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন।রাজীব গান্ধী ভারতের একটি বিশিষ্ট রাজনীতিক পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।

তিনি, ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের নেতা ও স্বাধীনোত্তর ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী, জওহরলাল নেহরুর পৌত্র ছিলেন।যদিও তাঁরা একই পদবি ব্যবহার করতেন তবু মহাত্মা গান্ধীর সঙ্গে রাজীব গান্ধীর কোনো পারিবারিক সম্পর্ক ছিলন। রাজিবের পিতা, ফিরোজ ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস পার্টির একজন নবীন সদস্য ছিলেন এবং এলাহাবাদে পার্টির কাজের সুবাদে ইন্দিরা এবং তাঁর মা কমলা নেহরুর সঙ্গে তাঁর বন্ধুত্ব হয়। ১৯৮০ সালে তাঁর কনিষ্ঠ ভ্রাতার মৃত্যুর পর তাঁর মা এবং ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস পার্টির রাজনীতিকদের দ্বারা তাঁকে রাজনীতিতে প্রবেশ করার জন্য রাজি করানোর চেষ্টা করা হয়।

তিনি এবং তাঁর স্ত্রী উভয়েই এই প্রস্তাবের বিরোধিতা করেন এবং প্রকাশ্যেই জানান যে তিনি তাঁর ভাইয়ের আসন থেকে প্রতিদ্বন্দিতা করবেন না।১৯৬৭ সালে যখন তাঁর মা প্রধানমন্ত্রী তখন তিনি ইন্ডিয়ান এয়ার্লাইন্সে একজন পেশাদার বিমানচালক হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন। তিনি কখনই রাজনীতিতে আগ্রহ প্রকাশ করেননি এবং নিয়মিত ভাবে দিল্লিতে প্রধানমন্ত্রী নিবাসে তাঁর মায়ের সঙ্গেও বসবাস করতেন না। ১৯৭০ সালে তাঁর স্ত্রী তাঁদের প্রথম সন্তান রাহুল গান্ধীর এবং ১৯৭২ সালে তাঁদের দ্বিতীয় সন্তান প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর জন্ম দেন। গান্ধী রাজনীতিতে নিরুত্সাহী হলেও, তাঁর কনিষ্ঠ ভ্রাতা সঞ্জয় তাঁদের মায়ের একজন নিকট পরামর্শদাতা হয়ে উঠেছিলেন।আজ মহান এই মানুষ এর জন্মদিন।ভারতের রাজনীতিতে তার অবদান শ্রদ্ধার সাথে স্মরণীয়।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট