নরক যন্ত্রণা নিয়েই সংকটে অস্তিত্ব হাওড়ার সাঁকরাইল বাস ষ্ট্যান্ড


বৃহস্পতিবার,৩০/০৮/২০১৮
295

আক্তরুল খাঁন---

হাওড়া: দীর্ঘ সময় হতে চলল আমতা- সাঁকরাইল রুটটি। একসময়ের লাল সরে এসেছে এখন সবুজ। তবুও বর্ষা আসলেই কাদা মেখে দারিদ্র্যতার লক্ষণ এঁকে দাঁড়িয়ে থাকে বাসগুলো। যাত্রী সংখ্যা ও পরিচিতির দিকদিয়ে আমতা- সাঁকরাইল ৭৭ নম্বর রুটটি হাজারো মানুষের মাধ্যম। ভোর ৫ টা থেকে রাত ৯ টা অবধি থাকে মানুষের সমাগম। প্রথম ১০ টি পরে বেড়ে এখন রুটে বাস হয়েছে ৩০ টিতে ঠেকেছে। গ‍্যারেজ বা খারাপ হয়ে দু তিনটি বাস ছাড়া প্রতিদিন নিয়োম করে ১০ মিনিট অন্তর সব বাসই চলাচল করে।ভাড়া সাধ‍্যের মধ্যে আগে ছিল ১১ টাকা এখন বেড়ে হয়েছে ১৪ টাকা। হাওড়া থেকে ট্রেনে সাঁকরাইলে এসে ওখান থেকে ৭৭ নম্বর বাস ধরে ২৬ কিমি দূরত্বে সহজে পৌঁছানো আমতায়।বাসে মহিলা, সিনিয়র সিটিজেন, প্রতিবন্ধীদের রয়েছে নির্দিষ্ট সিট নেয় শুধু ছাদওয়ালা বাস ষ্ট্যান্ড।ঝড় বৃষ্টি ও রোদে রেহাই দেয়না যাত্রীদের। গোড়ালি ডুবে যাওয়া লাল মাটির কাদা পার করে বাসে ওঠেন যাত্রীরা। অসুবিধা হলেও শুনবার মতোন কেউ নেই ফলে ফাঁপরে পড়ছেন যাত্রীরা।

এমন জনপ্রিয় বাস রুটে এই রকম হাল কেন?বাস ষ্ট্যান্ডে সিন্ডিকেট থাকলেও দেখেও যেন দেখে না। সকাল থেকে রাত ৯ টা অবধি যখনি আসবেন মিলবে বাস। বৃষ্টিতে ভিজে পায়ে কাদা মেখে নয়তো রোদে দাঁড়িয়ে বাসে চড়তে হয়।কথা হচ্ছিল অনুপ হালদার নাম এক নৃত্য যাত্রীর সঙ্গে সমস‍্যার কথা বলতে গিয়ে অনেক কিছুই বলতে থাকে। আগের থেকে এখন বাসের পরিসেবা ভালো পেয়েছি। কিন্তু বাসষ্ট্যান্ডটি আজও পরিবর্তন হল না। একটু বৃষ্টি হলেই কাদামাটি প‍্যাচপ‍্যাচে হয়ে থাকে।আমতা- সাঁকরাইল বাস ইউনিয়ন সূত্রে জানাগেছে। ৭৭ নং রুটটি সাঁকরাইল ছাড়িয়ে চলে যেতে পারে অঙ্কুরহাটি। বর্তমানে যে জায়গায় টিতে বাস গুলো দাঁড়ায় সেই জায়গায়টি রেলের।সেই কারনে বাস ষ্ট্যান্ড করা হচ্ছে না। আপাতত নরক যন্ত্রণা নিয়েই অস্তিত্ব সাঁকরাইল বাস ষ্ট্যান্ড।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট