আশি ও নব্বই দশকের খেলোয়াড়দের নিয়ে তিন দিন ব্যাপী ফুটবল খেলা আয়োজন করলো পৌরসভা


শনিবার,১৫/০৯/২০১৮
405

পিয়া গুপ্তা---

বাঙালির সেরা খেলা ফুটবল। সেই খেলার বয়স কখনো যে বাধা হয়ে দাড়ায় না তা আবার প্রমাণ করে দেখিয়ে দিলো সেই আশি ও নব্বই দশকের খেলোয়াড়রা। আজ কালিয়াগঞ্জ পৌরসভার উদ্যোগে পৌর উৎসব সূচনায় তিন দিন ব্যাপী ফুটবল প্রতিযোগিতায় মাঠ কাঁপালেন সেইসব খেলোয়াড়রা। যারা একদিন কাঁপিয়েছিল মাঠ। কিন্তু বয়সের ভারে আজ তারা সবাই খেলা ছেড়ে দিয়েছিল, ভেবেছিল তাদের জীবন থেকে হয়তো পায়ে বলের যাদু শেষ হয়ে গিয়েছে। কিন্তু তরুণ কালিয়াগঞ্জ পৌরসভার পৌরপতি কার্তিক চন্দ্র পালের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় আজ তারা আবারও মাঠে ডাক পেলেন সেই ফুটবল খেলায়। ফলে যার-পর-নাই খুশি সেইসব কাল জয়ী মাঠকাঁপানো পুরনো ফুটবল খেলোয়াড়রা।

ফুটবল নিয়ে দু পায়ের জাদুতে আজও তারা মাঠ কাপালেন অগণিত দর্শকদের সামনে। শুধু তাই নয় আজ তাদের খেলা উপভোগ করলেন স্বয়ং উত্তর দিনাজপুর জেলার জেলাশাসক অরবিন্দ কুমার কালিয়াগঞ্জের রশিদপুর স্টেডিয়ামে বসে। একদিকে রোদের প্রচন্ড উত্তাপ, অপরদিকে গতকাল রাতে প্রচন্ড বৃষ্টি হওয়ায় মাঠ ছিলো ভেজা কোথাও কোথাও ছিল ছিপছিপে জল। তবুও কুছ পরোয়া নেহি বয়স যতই হোক না কেন একটাই প্রচলিত কথা আজও সবার মনে মনে থাকে সব সময় যে পুরনো চাল ভাতে বাড়ে। সেই কথাটা আজও অক্ষরে অক্ষরে পালন করলো তারা। মাঠের এ প্রান্তে থেকে ওপর প্রান্ত যেভাবে তারা মাঠ কাপালেন তা দেখলে মনে হবে অল্প বয়সী যুবকদেরও তারা হার মানিয়ে দিবে।

কালিয়াগঞ্জ সত্তর, আশি, নব্বই দশকে যে সমস্ত ফুটবল খেলোয়াড় দুপায়ের ফুটবলের জাদুতে মাঠ কাঁপতো। আজ সেই সমস্ত খেলোয়াড়রা দুই দলে ভাগ হয়ে মাঠে নেমেছিলেন কালিয়াগঞ্জ পৌরসভার উদ্যোগে আয়োজিত পৌর উৎসবে তিনদিনব্যাপী নকআউট পর্যায় ফুটবল প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী খেলায়। প্রতিযোগিতা সূচনালগ্নে এদিন সমস্ত খেলোয়াড়দের সম্বর্ধনা দেওয়া হয়। এদিন অন্যন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নর্থ বেঙ্গল এন্ড গেমস এর অন্যতম সদস্য অসীম ঘোষ, কালিয়াগঞ্জ পৌরসভার পৌরপতি কার্তিক চন্দ্র পাল কালিয়াগঞ্জ পৌরসভার উপ পৌর পতি বসন্ত রায় কালিয়াগঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি দিপা সরকার কালিয়াগঞ্জ পুলিশের টাউন বাবু অতনু চক্রবর্ত্তী সহ আরো বিশিষ্ট ব্যক্তিরা।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট