ইতালির পর এবার সিঙ্গাপুর গ্র্যান্ড প্রিক্সও হ্যামিলটনের


রবিবার,২৩/০৯/২০১৮
329

বাংলা এক্সপ্রেস---

২০১৮ সাল নিজের মেজাজেই শুরু করলেন লুইস হ্যামিলটন। ইতালির গ্র্যান্ড প্রিক্স জেতার পর সিঙ্গাপুর গ্র্যান্ড প্রিক্সও জিতলেন তিনি। তিনি হারালেন সাবাস্তিয়ান ভেটেলকে। ২০১৮ সালে হ্যামিলটন ভেটেলের থেকে ৪০ পয়েন্টে এগিয়ে আছে। ভেটেলের ম্যাচ হারের অন্যতম কারন ছিল ফেরারি টিমের আলট্রা সফট টায়ার নেওয়া। কিন্তু ম্যাচ শেষে ভেটেল তাঁর টিমের পাশেই দাঁড়িয়েছেন।

মারসিডিসের কর্তা টোটো উলফ জেতার জন্য হ্যামিলটনের পোল ল্যাপ পসিশনকেই কৃতিত্ব দিচ্ছেন। তিনি স্কাই স্পোর্টসকে একটি সাক্ষাতকারে বলেন, আমার দেখা ফর্মুলা ওয়ানে সবথেকে ভাল ল্যাপ। প্রথম দিকে রেডবুল, ফেরারির থেকে পিছিয়ে থেকেও মাক্স ভারটাপেনের কাছে তিন সেকেন্ডে এগিয়ে যান এবং শেষ পর্যন্ত ভেটেলের কাছে ম্যাচ জিতে যান। এটি জেতার সাথে সাথে ২০১৮ সালে তাঁর সপ্তম জয় হল।

এই গ্র্যান্ড পিক্স জেতার সাথে সাথে হ্যামিলটন ৪০ পয়েন্ট এ এগিয়ে যায়। এখন মাত্র ছটি রাউন্ড বাকি আছে। এই ছটি চ্যাম্পিয়নশিপ ও যদি ভেটেল জেতে তাহলেও মাত্র ২ পয়েন্টে ভেটেল এগিয়ে থাকবে। খেলার শেষে ভেটেল বলেছেন, আমরা খেলার সময় আক্রমণাত্মক নীতি নিয়েছিলাম যদি সেটা কাজ করত তাহলে আমরা জিতে যেতাম কিন্তু তা কাজ করেনি। তাই আমাদেরকে পরের দিকে দেখতে হবে।

মার্সাডেসের আশঙ্খা ছিল লো স্পিড কর্নারের জন্য তাদেরকে সমস্যায় পড়তে হতে পারে। কিন্তু সমস্ত দুর্বলতাকে তারা কাটিয়ে উঠতে পেরেছিল। উলফ বলেন, এটি খুব তাৎপর্যপূর্ণ ছিল কারন আমরা দুর্বলতাকে বুঝতে পেরে সিঙ্গাপুর গ্র্যান্ড প্রিক্সে তা কাটিয়ে উঠতে পেরেছিলাম। তিনি আরও বলেন, আমরা সমস্ত বুদ্ধি দিয়ে সিঙ্গাপুরে খেলেছিলাম, বছর শেষে দেখা যাক ফলাফল কি দাঁড়ায়!

হারের পর ভেটেল বলেন, আমাদের পরিকল্পনা কাজ করিনি বলে আমাদেরকে এখন সমালোচনার মুখে পরতে হচ্ছে কিন্তু আমরা যেটা করেছি সেটার পাশেই থাকছি। ভেটেল তৃতীয় অবস্থানে থেকে রেস শেষ করেছেন এবং তিনি ৪০ পয়েন্টে হ্যামিলটনের থেকে পিছিয়ে আছে যেটা ২০১৮ সালের সবথেকে বেশি মার্জিনে পিছিয়ে থাকার রেকর্ড।

যদিও ভেটেল ভুল শুধরে ফিরে আসার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, এই বছরে অনেক সুযোগ আছে ভাল স্কোর করার। তিনি মেনে নিয়েছেন যে তাঁদের পয়েন্ট হারানোর অনেক কারন আছে। কিন্তু এই বছরের অনেক সময় বাকি আছে। সুতরাং অনেক স্কোর করার সুযোগ আছে। তিনি বলেন, যে ট্রাক গুলতে খেলা হয় সেগুলকে আমাদের ভয় নেই এবং আমাদের গাড়ি গুলো সব জায়গাতে ভাল কাজ করছে।

প্রথম দিকে ভেরস্তাপেনের থেকে এগিয়ে থাকলেও ফেরারি টিম হামিলটনের উপর আক্রমন করতে চেয়েছিলেন সেটাই ভেটেলের বড় ভুল হয়েছিল। ফেরারি হামিলটনের টায়ারকে হাল্কা ভাবে দেখেছিল। এরপর রেডিওতে হামিলটনের একটা মন্তব্য ভেটেল ভুল শুনেছিলেন। হামিলটন বলতে চেয়েছিলেন তাঁর টায়ারে অনেক শক্তি আছে কিন্তু ভেটেল ভেবেছিলেন তাঁর টায়ারে আর কোন শক্তি নেই। তাই হামিলটনের কাছ থেকে লিড নিতে ভেটেল তাঁর স্পীড বাড়িয়ে দেয় এবং এখানেই ভেটেলের খেলা শেষ হয়ে যায়।

এরপর ভেটেল সেরজিও পেরেযের কাছেও অনেক সময় নষ্ট করেন। সেখানে তাঁর হার আরও স্পষ্ট হয়ে যায়। ভেটেল বলেন, আমাদের মধ্যে কতটা গ্যাপ ছিল আপনারা সেটা বুঝতে পারছেন। আমরা জেতার চেষ্টা করেছিলাম কিন্তু লুইস খুব গতিতে ছিলেন। যখন কেউ আগে চলে যায় তখন সেই সমস্ত খেলা নিয়ন্ত্রিত করতে থাকে এবং আমরা আর আগে যেতে পারেনি।

ভেটেল আরও বলেন, আমরা আক্রমণাত্মক ছিলাম ম্যাচ জেতার জন্য কিন্তু সেটা হিতে বিপরীত হয়ে গিয়েছিল। এটার সাথে সাথে আমরা দ্বিতীয় স্থানটিও হারিয়ে ফেলি। আমরা এখানে এসেছিলাম শক্তিশালী দল হিসাবে কিন্তু এই রেসটাতে যতটা শক্তিশালী হওয়া উচিত ছিল ততটা ছিলাম না। কালকের দিনটা আমাদের জন্য ভাল হতে পারত কিন্তু যেটা হয়েছে সেটা ইতিহাস, আমাদেরকে সামনের দিকে দেখতে হবে।
অনেকে বলেছিল যে ফেরিরারির গাড়ি ছিল দ্রুত গতির কিন্তু হ্যামিলটন শেষ পাঁচটা রেসের মধ্যে চারটিতেই জিতেছিল। ফেরারির চারটি সুযোগ হাতছাড়া হয়েছিল কিন্তু কোন ভাবে হামিলটন ও মার্সেডেসের কৃতিত্ব অস্বীকার করা যাবে না। বেলজিয়াম গ্র্যান্ড প্রিক্সে যে দুর্বলতাগুল মার্সেডেসের টিমের ছিল সিঙ্গাপুরে সেই ভুলগুলো শুধরে খুব ভাল খেলেছিল।

এই রেসটাতে হেরে ভেটেল হামিলটনের থেকে ৪০ পয়েন্টে পিছিয়ে আছে। ২০১৮ সালে আর ছটি রেস বাকি আছে। প্রত্যেক রেস ভেটেলকে বড় ব্যাবধানে জিততে হবে। ফেরারি টিম আশাবাদি হলেও কাজটা যে সহজ নয় তা ভেটেল নিজেও জানেন।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট