কানাডা থেকে এসে পূর্ব বর্ধমানের কালনার আশ্রমপাড়া গ্রামের ছেলেকে বিয়ে


মঙ্গলবার,২৩/১০/২০১৮
710

বাংলা এক্সপ্রেস---

প্রেমের টানে সুদূর কানাডা থেকে এসে পূর্ব বর্ধমানের কালনার আশ্রমপাড়া গ্রামের ছেলেকে বিয়ে করলো এক যুবতী। তাও আবার বাঙালি নিয়ম মেনে। বিয়ে করেন কালনার আশ্রমপাড়ার যুবক টিংকু রায়কে। বাড়ির মতেই বিয়ে করে খুশি ক্যাথরিন আওলেট নামে ওই কানাডাবাসী যুবতী। কানাডার প্রাসাদ ছেড়ে ওই যুবতী এখন টিনের ছাউনি দেওয়া, কিছুটা মাটি আর দরমার বেড়া দেওয়া বাড়ির বৌ। এককথায় বলা যায়, কানাডার প্রাসাদ ছেড়ে এখন কালনার কুঁড়ে ঘরের বৌ ক্যাথেরিন।জানা গিয়েছে,  টিঙ্কু হোটেল ম্যানেজমেন্ট পড়ে ২০১১ সালে দুবাইয়ের একটি হোটেলে চাকরি পান।  কিন্তু কয়েক মাস পরেই সেই চাকরি ছেড়ে দিয়ে দেশে ফিরে আসেন। তারপর স্থানীয় কলেজে যোগের পাঠ শেষ করে, কলকাতায় শুরু করেন যোগের শিক্ষকতা। তিনি  ২০১৬ সালে যোগ দেন ঋষিকেশে।

ঋষিকেশে যোগ শিক্ষক হিসেবে যোগ দিয়ে সেখানে পরিচয় হয় কানাডার বাসিন্দা পেশায় শিক্ষিকা ক্যাথেরিন আওলেট -এর সাথে। সেখানেই অর্থাৎ ঋষিকেশে, চন্দ্রা যোগ স্কুলে যোগ শিক্ষার জন্য কানাডার কুইবেক থেকে এসেছিলেন ক্যাথরিন।ঋষিকেশেই যোগ শিক্ষক টিঙ্কুর সাথে ধীরে ধীরে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে ক্যাথরিনের।  যোগ শিক্ষা শেষ করে ক্যাথরিন দেশে ফিরে যান। তাই বিদেশিনীর প্রেমের টানে একসময় কানাডায় যেতে হয়েছিল টিঙ্কুকে। আবার প্রেমের টানে কয়েক বার টিঙ্কুর সাথেও দেখা করতে আসে এই বিদেশিনী। এক বছরের প্রেমের সম্পর্কের পর টিঙ্কুর সমন্ধে নিজের বাড়িতে জানায় ক্যাথরিন।পরে ক্যাথেরিনের কানাডার বাড়িতে বিয়ের প্রস্তাব দেয় টিঙ্কু। বিয়েতে দুই পক্ষই রাজি হয়। বিদেশিনীর পরিবারের সাথে ভিডিও কলের মাধ্যমে বিয়ের অনুমতি নেয় টিঙ্কু। সবুজ সংকেত পাওয়ার পরই বাঙালি মতে টিঙ্কু নিজের বাড়িতেই বিয়ে সেরে নেই। তাই বলাই যায়, প্রেমের টানে কানাডার যুবতী প্রাসাদ ছেড়ে এখন পূর্ব বর্ধমান

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট