পুলিশ একে একে অবৈধ মাদক কারবারিদের ধরতে শুরু করেছে


শনিবার,২৭/১০/২০১৮
189

প্রসেনজিৎ দাস---

আগরতলা: রাজ্যব্যাপী নেশা-বিরোধী আন্দোলনে পুলিশ একে একে অবৈধ মাদক কারবারিদের ধরতে শুরু করেছে। শুক্রবার গভীর রাতে পুলিশ উদয়পুর মহকুমার অন্তর্গত বাগমা ফাঁড়ির ওসি বিমল দেববর্মার আস্তানায় হানা দিয়ে তাকে গ্রেফতার করেছে। মাদক কারবারির সঙ্গে যুক্ত থাকার তথ্য প্রমাণ পেয়েই গ্রেফতার করা হয়েছে বাগমা পুলিশ ফাঁড়ির ওসি বিমল দেববর্মাকে। এসডিপিও সৌম্য দেববর্মার নেতৃত্বে এই অভিযানে ছিলেন পিআরবাড়ি থানার ওসি আশিস দাস। জানা গেছে, ফেন্সিডিল কারবারের সঙ্গে জড়িত অভিযুক্ত বাগমা ফাঁড়ির ওসি বিমল দেববর্মাকে গ্রেফতার করে পিআরবাড়ি থানায় রাখা হয়েছে।

এদিকে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বিমল দেববর্মার কৃষ্ণনগরের বাড়িতেও শনিবার হানা দিয়েছে পুলিশের দল। এই অভিযানে ছিলেন সদর এসডিপিও সুমন মজুমদার এবং পশ্চিম থানার ওসি সুব্রত চক্রবর্তীর নেতৃত্বে এক বিশাল পুলিশ বাহিনী। অভিযানে পুলিশ বিমল দেববর্মার বাড়ি থেকে বেশ গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র উদ্ধার করেছে। ওই সব নথিপত্র নিজেদের কবজায় নিয়েছে পুলিশ। অন্য এক সূত্রে জানা গেছে, পুলিশ বিমল দেববর্মার কৃষ্ণনগর বাসভবন থেকে যে সমস্ত নথিপত্র সংগ্রহ করেছে সেগুলিকে ভিত্তি করে তদন্ত প্রক্রিয়া এগিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। প্রসঙ্গত, নতুন সরকার ক্ষমতায় আসার পর অবৈধ নেশা ও মাদক কারবারিদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে। আর সেজন্যই একে একে জালে উঠতে শুরু করেছে মাদক কারবারিরা।

এদিকে নেশা কারববারের সঙ্গে জড়িত অভিযোগে একজন পুলিশ অফিসারের গ্রেফতারের ঘটনায় রাজ্যে প্রতিক্রিার সৃষ্টি হয়েছে। অনেকে বিস্ময় ব্যক্ত করে বলেছেন, দেশ তথা সমাজ রক্ষার দায়িত্ব যাঁরা পালন করবে, অপরাধমুক্ত ত্রিপুরা গড়ার মুখ্য ভূমিকা যাঁরা পালন তাদের মধ্যে বিমল দেববর্মার মতো অফিসাররা সমাজের কলঙ্ক। মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লবকুমার দেব ক্ষমতায় বসেই নেশা কারবারিদের বিরুদ্ধে যে জেহাদ ঘোষণা করেছেন স্বাভাবিকভাবেই বিমল দেববর্মাদের পর আরও নেশা কারবারির কিং জালে উঠবে বলে মনে করা হচ্ছে। সূত্রে জানা গেছে, খুব শীঘ্রই এক এক করে নেশা কারবারের সাথে যুক্ত পুলিশ অফিসারদের গ্রেফতার করা হবে।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট