দীর্ঘ সময় বাদে নিজের জেলাতে প্রবেশের অনুমতি পেলেন বিজেপির জেলা সভাপতি


রবিবার,১৮/১১/২০১৮
343

বাংলা এক্সপ্রেস---

অবশেষে আদালতের অনুমতি পেয়ে শুক্রবার সন্ধ্যায় রায়গঞ্জের রবীন্দ্রপল্লীর বাড়িতে পৌঁছান শঙ্কর বাবু। শর্তসাপেক্ষে জেলায় প্রবেশের অনুমতি পেয়ে শনিবার দীর্ঘ সময় পর দলীয় কার্যালয়ে এলেন বিজেপির জেলা সভাপতি শঙ্কর চক্রবর্তী। আর তাঁকে ঘিরেই এদিন উন্মাদনা দেখা গেল দলীয় নেতা কর্মী ও সমর্থকদের মধ্যে। মালা পড়িয়ে এদিন শঙ্কর চক্রবর্তীকে দলীয় কার্যালয়ে স্বাগত জানান সকলে। নেতা কর্মীদের মধ্যে শুভেচ্ছা বিনিময়ের পর শঙ্কর বাবু বলেন, দলের কর্মীরাই আমার শক্তি আমার অনুপ্রেরণা। এই সময়কালে জেলার বিজেপি কর্মীরা যেভাবে তাঁকে শক্তি জুগিয়েছেন তাতে তিনি ৫৪ বছরও জেল খাটতে পারেন। আগামী লোকসভা ভোটে রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রে বিজেপি প্রার্থীকে জয়ী করে উৎসবে মাতবেন উত্তর দিনাজপুর জেলার বিজেপি কর্মী সমর্থকেরা।

উল্লেখ্য, দাড়িভিটে দুই ছাত্রের গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যুর ঘটনার পর আন্দোলনে নামে বিজেপি। দাড়িভিটে প্রকাশ্যে পুলিশের বিরুদ্ধে উস্কানি মূলক মন্তব্য করার অভিযোগে প্রথমে শঙ্কর বাবুকে গ্রেফতার করা হয়। এরপর বিজেপির ডাকা বনধে বাস ভাঙচুর করে সরকারি সম্পত্তি নষ্ট করার পৃথক একটি মামলা রুজু করা হয় শঙ্কর বাবুর বিরুদ্ধে। দুটি মামলাতেই জামিন পান শঙ্কর বাবু। এদিকে ২৯ অগস্ট রায়গঞ্জে অনুমতি ছাড়া মিছিল, সরকারি কাজে বাধা ও মারধর করার মামলায় আদালত শর্তসাপেক্ষ জামিন মঞ্জুর করে শঙ্কর বাবুর। জেলায় প্রবেশের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয় এবং প্রতি সপ্তাহে একদিন ইংরেজবাজার থানায় হাজির হওয়ার নির্দেশও দেওয়া হয় শঙ্কর বাবুকে।

দলীয় কার্যালয়ে শঙ্কর, আপ্লুত নেতা-কর্মীরা এরপর গত শুক্রবার জেলায় প্রবেশের ক্ষেত্রে আদালতের জারি করা নিষেধাজ্ঞা থেকে রেহাই পান উত্তর দিনাজপুর জেলা বিজেপির সভাপতি শঙ্কর চক্রবর্তী। শক্রবার শর্তসাপেক্ষে জেলায় ঢোকার অনুমতি পান তিনি। আগামী ২৬ নভেম্বর মামলার পরবর্তী শুনানি পর্যন্ত জেলায় কোনও রাজনৈতিক সভা, মিছিল যোগ দিতে পারবেন না তিনি। রায়গঞ্জের মুখ্য বিচারবিভাগীয় আদালতের এমন শর্ত মেনেই জেলার ঢোকার ছারপত্র পান শঙ্কর বাবু।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট