মাকে বাঁশ দিয়ে পিটিয়ে মারার অভিযোগ উঠল ছেলের বিরুদ্ধে


মঙ্গলবার,০১/০১/২০১৯
355

বাংলা এক্সপ্রেস---

ঝাড়গ্রাম: মদ খাওয়ার জন্য বৃদ্ধা মায়ের কাছে টাকা চেয়েছিল ছেলে। মায়ের কাছে টাকা না থাকায় মাকে বিধবা ভাতার টাকা ব্যাঙ্ক থেকে তুলে দিতে বলেছিল ছেলে। কিন্তু ছেলেকে টাকা না দেওয়ায় মাকে বাঁশ দিয়ে পিটিয়ে মারার অভিযোগ উঠল ছেলের বিরুদ্ধে। রবিবার ঝাড়গ্রাম থানার বেলিয়া গ্রামের বাড়ির উঠান থেকে এক বৃদ্ধার মৃতদেহ উদ্ধার করল পুলিস। পুলিস জানিয়েছে, মৃতার নাম, সুরুবালা মাহাত (৭২)। তাঁর বাড়ি লোধাশুলি গ্রাম পঞ্চায়েতের বালিয়া গ্রামে। ওই পুলিস ছেলেকে গ্রেপ্তার করেছে। ধৃত ওই ছেলের নাম সন্তোষ মাহাত।

ঝাড়গ্রাম ব্লকের লোধাশুলি গ্রাম পঞ্চায়েতের বেলিয়া গ্রামে একটি মাটির বাড়িতে থাকতেন সরুবালাদেবী ও তাঁর ছেলে সন্তোষ মাহাত। স্থানীয় ও পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে, সন্তোষ মাহাত দু’বার বিয়ে করেছিলেন। বছর ১৫ আগে প্রথম স্ত্রী মারা যাওয়ার পর ফের আরও একবার বিয়ে করেছিলেন। দ্বিতীয় পক্ষের একটি ছেলে রয়েছে। গত এক মাস আগে দ্বিতীয় পক্ষের স্ত্রীকে মারধর করে ছেলে সহ স্ত্রীকে বাড়িতে থেকে তাড়িয়ে দেন। ছেলে মদ্যপ অবস্থায় মাকে প্রায় মারধর করত। এমনকি সুরুবালাদেবীর বড় মেয়ে ছবিরানি মাহাতকে মারধর করত। মারধরের পর থেকে তাঁর দিদি পাশেই একটি আলাদা বাড়িতে থাকতেন।

জানা গিয়েছে, সুরুবালাদেবীর নামে বাংলা আবাস যোজনায় সরকারি প্রকল্পে দু’ই কিস্তিতে ৪৫ হাজার টাকা করে মোট ৯০ হাজার টাকা তাঁর অ্যাকাউন্টে ঢুকেছিল। প্রথম কিস্তির টাকার তুলে বাড়ি কিছুটা তৈরি করেছিল সুরুবালাদেবী। মদ খাওয়ার জন্য মাকে মারধর করে বাড়ি তৈরির দ্বিতীয় কিস্তির সমস্ত টাকা নিয়ে নিয়েছিল ছেলে। যারফলে আর বাড়ি তৈরি করতে পারেননি বৃদ্ধা। টাকার জন্য মা ও ছেলের মধ্যে প্রায়ই ঝামেলা হত।

প্রতিদিন মদ খেয়ে এসে মাকে মারধর করত। সম্প্রতি ওই বৃদ্ধার অ্যাকাউন্টে বিধবা ভাতার টাকা ঢুকেছিল। সেকথা জানতে পেরেছিল ছেলে। শনিবার তাঁর মাকে ব্যাঙ্ক থেকে টাকা তুলে আনতে বলেছিল ছেলে। টাকা না তোলায় শনিবার রাতে মাকে বাঁশ দিয়ে ব্যাপক মারধর করে। চিৎকার-চেঁচামেচির আওয়াজ পেয়ে তাঁর দিদি ছবিরানি মাহাত প্রতিবেশিদের ডেকে ছিলেন। কিন্তু প্রতিবেশিরা ভয়ে কেউ বেরিয়ে আসেনি। শনিবার রাতে সেই চিৎকার-চেঁচামেচির আওয়াজ পেয়েছিল প্রতিবেশিরা। প্রতিবেশিদের বক্তব্য, ছেলে প্রতিদিনই মাকে মারধর করত।

কিন্তু বাঁশপেটা করে যে মেরেই ফেলবে তা কেউ বুঝতে পারেনি। এদিন সকালে মাটির বাড়ির উঠানের সামনে ওই বৃদ্ধাকে মৃত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন প্রতিবেশিরা। বৃদ্ধার দেহের পাশে বাঁশটি পড়েছিল। খবর পেয়ে পুলিস এসে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়। মারার পরই ছেলে অবশ্য পাশের ডালকাটি গ্রামে পালিয়ে যায়। এদিন ডালকাটি গ্রাম থেকে তাঁকে ধরে থানায় নিয়ে যায় পুলিস। মৃতার মেয়ে ছবিরানি মাহাত বলেন, শনিবার মাকে মাকে বিধবা ভাতার টাকা তুলে আনতে বলেছিল। মা টাকা না তোলায় প্রচুর মারধর করে। যারফলে মায়ের মৃত্যু হয়েছে। ঝাড়গ্রামের পুলিস সুপার অরিজিৎ সিনহা বলেন, বাঁশ দিয়ে ছেলে মাকে মেরেছে। খবর পেয়ে আমরা মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। ওই ছেলেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। রাতের বেলায় মাকে যে মারধর করছিল তা প্রতিবেশিরা দেখেছে। ঘটনার তদন্ত চলছে।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট