তৃণমূলের প্রতিষ্ঠা দিবসে দলের একাংশের বিরুদ্ধে তোলাবাজির অভিযোগ আনলেন রেজ্জাক, পাল্টা অভিযোগ আরাবুলের


মঙ্গলবার,০১/০১/২০১৯
316

সাদ্দাম হোসেন মিদ্দে---

ভাঙড়: প্রতিষ্টা দিবসের দিনেও গোষ্ঠি দ্বন্দ্বের ছায়া থেকে বেড়িয়ে আসতে পারলো না ভাঙড় তৃণমূল কংগ্রেস। এ বছর ২১ তম জন্মজয়ন্তী দিবস পালন করছে তৃণমূল কংগ্রেস। এই উপলক্ষে রেজ্জাকপুত্র তথা দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলা পরিষদ সদস্য মুস্তাক আহমেদ তার অফিসে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। সেখানেই পশ্চিমবঙ্গ সরকারের খাদ্য পক্রিয়াকরণ ও উদ্যান পালন দপ্তরের মন্ত্রী এবং ভাঙড়ের বিধায়ক আব্দুর রেজ্জাক মোল্লা গোষ্ঠি দ্বন্দ্বের কথা প্রকাশ্যে স্বীকার করে নিয়েছেন। একই সঙ্গে দলের একাংশের বিরুদ্ধে তোলাবাজি ও সিন্ডিকেটরাজের গুরুতর অভিযোগ করেন তিনি। নাম না করে আরাবুল ইসলাম ও ব্লক সভাপতি ওহিদুল ইসলামের দিকে ইঙ্গিত করে তাঁর এই অভিযোগ।

রেজ্জাক মোল্লা বলেন, তোলাবাজি করা, সিন্ডিকেটরাজ চালানো ও কাটমানি নেওয়া নেতাদের থেকে দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।নতুবা তাদের সঙ্গে আমাদের পার্থক্য কিসের। প্রতিষ্ঠা দিবস পালনের তাহলে মানে কি। ভাঙড়ের রাস্তাঘাটেরও বেহাল দশার কথা স্বীকার করে নতুন বছরে জামিরগাছি থেকে নিউটাউন অবধি বাগজোলা খালপাড় সড়কের মেরামতের প্রতিশ্রুতি দেন রেজ্জাক মোল্লা। ভাঙড়-লাউহাটি এবং ভাঙড়-বোয়ালঘাটা রাস্তার কাজ ইতি মধ্যে শুরু হয়ে গিয়েছে বলেও তিনি জানান। পাশাপাশি জমি পাওয়া গেলে ভাঙড়ে হিমঘর করার প্রতিশ্রুতিও দিয়েছেন বিধায়ক। খাদ্য পক্রিয়াকরণ দপ্তরের মাধ্যমে ভাঙড়ের সবজি বিদেশে রপ্তানির ব্যাবস্থা হয়েছে বলেও রেজ্জাক মোল্লা জানান।

এদিন তৃণমূলের এক ব্লক স্তরের নেতা হাবিবুর রহমান বিশ্বাসও নাম না করে ভাঙড়ের প্রাক্তন বিধায়ক আরাবুল ইসলাম ও তৃণমূলের ব্লক সভাপতি ওহিদুল ইসলামকে হুশিয়ারি দিয়েছেন। তিনি বলেন, আমি তোলা তুলে দিতে পারিনি বলে দলের ব্লক সভাপতি আমাকে দল থেকে সরিয়ে দেওয়ার চক্রান্ত করছে। অন্যদিকে, ২০১৬ সালে ভাঙড়ের স্বনামধন্য এক নেতা রেজ্জাক মোল্লাকে হারানোর জন্য অনেক চেষ্ঠা করেছিলেন বলেও তোপ দাগেন তিনি।

নিউটাউন লাগোয়া হাতিশালা সিক্সলেন মোড়ে, মঙ্গলবার ২০০ মিটারের মধ্যে তৃণমূলের প্রতিষ্ঠা দিবসের মোট তিনটি অনুষ্ঠান হয়। মুস্তাক আহমেদের অনুষ্ঠিন ছাড়াও এদিন আরো দুটি অনুষ্ঠান হয়। একটি তৃণমূল শ্রমিক সংগঠণের ব্লক সভাপতি জুলফিক্কার মোল্লার ও আরেকটি সংখ্যালঘু সেলের ব্লক সভাপতি হাজি ইসমাইল মোল্লার। একদিকে যখন রেজ্জাক মোল্লা, মুস্তাক আহমেদ, নান্নু হোসেনরা মঞ্চ করে বক্তব্য রাখছেন তখন একই সময়ে ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে বক্তব্য রাখেন আরাবুল ইসলাম, ওহিদুল ইসলাম, জুলফিক্কার মোল্লারা। এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে তৃণমূলের নিচুতলার কর্মীদের মধ্যে। এক কর্মী বলেন আমরা বুঝে উঠতে পারছিনা কারা প্রকৃত তৃণমূল। কাদের সঙ্গে থাকবো আমরা।

রেজ্জাক মোল্লার তোলাবাজের অভিযোগ সম্পর্কে আরাবুল ইসলাম বলেন, যারা অভিযোগ করছে তারাই নিজেরা তোলাবাজ।তোলাবাজি করার জন্য তারা বিভিন্ন জায়গায় অফিস খুলছে। ওদের পিছনে লোক নেই। হাবিবুর রহমানের অভিযোগের বিষয়ে আরাবুল পুত্র হাকিমুল ইসলাম বলেন, হবিবার রহমান জমি আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত, তাই তাকে দলে ডাকা হয়না। এবিষয়ে ভাঙড় ২ ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি ওহিদুল ইসলাকে ফোন করা হলে তিনি কিছু বলতে চাননি।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট