রেল লাইনের উপর ওভার ব্রিজ তৈরি হোক দাবি বেলদা বাসির


শুক্রবার,০১/০২/২০১৯
392

বাংলা এক্সপ্রেস---

পশ্চিম মেদিনীপুর: সামনে লোকসভা নির্বাচন। শুধু এ বছরের লোকসভা নয় বিগত বেশ কয়েকটি লোকসভা থেকে বেলদাবাসীর দাবি কেশিয়াড়ি মোড় রেল গেটের উপর তৈরি হোক ওভারব্রিজ। সেই ওভার ব্রিজ তৈরির ভাবনা কার্যত এখন চাপা পড়ে গিয়েছে। তারপরে দিনদিন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে বেলদার জনসংখ্যার চাপ। রেলওয়ে সূত্রে খবর জনসংখ্যা ১ লক্ষেরও বেশি হলে সেই গেট দিয়ে যাওয়া সাধারণ মানুষের কথা মাথায় রেখে ওভার ব্রিজ তৈরি করা হয়।

কিন্তু ২০১৬ সেন্সাস অনুযায়ী ১ লক্ষ ৩০ হাজারেরও বেশি মানুষের যাতায়াত কেশিয়াড়ি মোড় রেল গেট এর মাধ্যমে। বেলদার কেশিয়াড়ি মোড় দিয়ে যাতায়াত করেন সারা দিনে প্রায় ১০ হাজারের বেশি মানুষ। খড়্গপুর এর বাসিন্দা জামশেদ মল্লিক জানিয়েছেন-“প্রতিদিনই কেশিয়াড়ি মোড় দিয়ে কেশিয়াড়ি এবং উড়িষ্যার প্রান্তে ব্যবসা করি।

যাওয়া আসার সময় কেশিয়াড়ি মোড় রেল গেটে দাঁড়িয়ে যেতে হয় বেশ কিছুটা সময় তাই সকলের কথা মাথায় রেখে বেলদার কেশিয়াড়ি মোড়ে যদি রেল গেটের উপর ওভার ব্রিজ তৈরি করা হয় তবে সকলের সুবিধা হবে।”বেলদা তে শুধু উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় কিংবা অন্যান্য প্রাথমিক বিদ্যালয় নয় বেলদা তে খুব শিগগিরই চালু হতে চলেছে মাল্টি সুপার হাসপাতাল।

আর এই হসপাতালে বেলদা ও তার পার্শবর্তী অঞ্চল গুলির বহু রোগী এখানে আসেন চিকিৎসার জন্য ।বেলদা সংলগ্ন স্থান দিয়ে গিয়েছে খড়গপুর সােনাকনিয়া ৬০ নম্বর জাতীয় সড়ক। আবার বেলদা কেশিয়াড়ি মোড় থেকে কেশিয়াড়ি সংলগ্ন রাস্তা ও বেলদা থেকে কাঁথি গামি রাজ্য সড়ক রয়েছে। যেখানে প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনা ঘটছে আরি দুর্ঘটনাগ্রস্ত লোকেদের কে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার জন্য নিয়ে আসা হচ্ছে সেই বেলদা গ্রামীণ হসপিটালে। যা আগামী দিনে মুখ্যমন্ত্রী বন্দোপাধ্যায়ের প্রচেষ্টায় বেলদা সুপার ফেসিলিটি হসপিটাল হতে যাচ্ছে।

এদিকে বেলদা সংলগ্ন দাঁতন ২ নম্বর ব্লকের সাউরি ৫ নম্বর অঞ্চল থেকে দাঁতন ১ নম্বর ব্লক ও নারায়ণগড় ব্লকের সম্পূর্ণ অঞ্চলের লোকেরা ও কেশিয়াড়ী ব্লকের কিছু অঞ্চল এই বেলদা হসপিটাল এর উপরে নির্ভরশীল। আনুমানিক প্রায় ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে তৈরি হতে চলা সুপার ফেসিলিটি হসপিটাল এর বর্তমান বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে বেলদা ও তার পার্শ্ববর্তী অঞ্চলের গর্ভবতী মায়েরা ও জাতীয় সড়কের দুর্ঘটনাগ্রস্ত রোগীদেরকে হসপিটালে নিয়ে আসার সময় বেলদা কেশিয়াড়ি মোড়ের থাকা রেলগেট টি।

ওই গর্ভবতী মা কিংবা দুর্ঘটনাগ্রস্ত রোগীদের ইমারজেন্সি (তৎকালীন )সময়ে ট্রেন চলাচলের জন্য পড়ে থাকা রেল গেটের কাছে আটকে থাকলে কি সমস্যা পড়তে হয় তা ওই এম্বুলেন্সে থাকা রোগীর পরিবার পরিজনেদের থেকে আর ভালো কে বোঝে । তবে সমস্যাটা সবাই উপলব্ধি করলেও সমাধান কিন্তু হয়নি বা হওয়ার চেষ্টা দেখা যায়নি ।এদিকে রেলের পরিসংখ্যান অনুযায়ী ওভার ব্রিজ করার জন্য যে জনসংখ্যার যাতাযাত এর প্রয়োজন তা অনেক আগেই পেরিয়েছে ।তা সত্ত্বেও রেলের তরফ থেকেও কোন উদ্যোগ লক্ষ করা যায়নি।

এদিকে জনপ্রতিনিধিদেরও সমস্যাটির লক্ষ্যের বাইরে। তবে কি এই সমস্যা চিরকালই থাকবে ?তাহলে প্রশ্ন একটাই সাধারণ রোগীদের সঙ্গে ইমারজেন্সি রোগীদের আরো ভালো পরিষেবা দিতে প্রায় ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হতে চলা বেলদা সুপার ফেসিলিটি হসপিটাল তৈরি করে লাভ কি? যেখানে রোগী হসপিটালে আসার আগেই ইমার্জেন্সি সময়ে ট্রেন চলাচলের জন্য রাস্তায় আটকে থাকতে হয়!

কে বলতে পারে ওই ক্ষণিক সময় হয়তো গর্ভবতী মা কিংবা দুর্ঘটনাগ্রস্ত রোগীটি আজীবন এই পৃথিবী ত্যাগ করতে পারে।হয়তো ওই ক্ষণিক সময় টি রোগীটিকে পুনর্জন্ম দিতে পারতো! তাই এই মুমূর্ষু রোগীদের কথা ভেবে বেলদার কেশিয়াড়ি মোড়ের রেল গেটের উপর দিয়ে একটি ওভার ব্রিজ তৈরি হোক দাবি করছেন এলাকাবাসীরা। সত্যিই কি এই দাবি পূরণ হবে এলাকাবাসীর! এই দিকে নজর দিবেন জনপ্রতিনিধিরা। ওই মুমূর্ষু রোগীদের পরিবারের কথা আদৌ তাদের কাছে পৌছবে কি ।এখন সেই দিকে তাকিয়ে সবাই ।

বর্তমান দিনে সাধারণ মানুষের সাচ্ছন্দের কথা মাথায় রেখে রেলের সংখ্যা বাড়িয়েছে রেল কর্তৃপক্ষ।ফলে রেলগেট পড়ে থাকলে অনেকটা সময় আটকে যেতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে। বেলদা হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত চিকিৎসক ড. সুদীপ সিং জানিয়েছেন-“বেলদা তে তৈরি হচ্ছে নারায়ণগড় ব্লকের অন্যতম সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল। প্রসূতি থেকে শুরু করে দুর্ঘটনায় আহতদের আসার সময় রেলগেট পড়ে থাকার কারণে বেশ কিছুটা সময় লেগে যাচ্ছে।

ফলে যদি প্রশাসনিক দপ্তর থেকে কেশিয়াড়ি মোড় রেল গেটের উপর ওভার ব্রিজ তৈরি করা হয় তাহলে অসুস্থ রোগীদের খুব উপকার হবে।” বেলদা পৌরসভা তে রুপান্তরিত হওয়ার একটা পরিকল্পনা রয়েছে । তার আগে কিছু সমস্যা কাটা হয়ে দাঁড়াচ্ছে পৌরসভা তৈরিতে।

বেলদার বাসিন্দা বিশিষ্ট ব্যক্তি অরুণ দেব জানিয়েছেন-“দেউলী থেকে আসতে কিংবা বেলদা দিক থেকে কেশিয়াড়ি যেতে কেশিয়াড়ি মোড় রেল গেটে আটকে যেতে হয় বেশ অনেকক্ষন। বিধায়ক কিংবা সংসদ পাশাপাশি পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা প্রশাসন যদি উদ্যোগ নিয়ে রেল গেটের উপর দিয়ে ফ্লাই ওভারব্রিজ তৈরী করে তবে উপকৃত হবে বেলদা বাসী।”
বেলদার জনঘনত্ব দিনদিন বাড়ছে স্থানীয়দের দাবি বেলদার এই রেল গেটের উপর তৈরি হোক ওভারব্রিজ। যেখানে জনসংখ্যার চাপ, যানযটের পাশাপাশি মুমুর্ষ রোগীর জীবন বাঁচতে পারে।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট