পার্থ চ্যাটার্জীর জনসভায় সিপিএম ও বিজেপির পঞ্চায়েত মেম্বার সহ বেশ কিছু কর্মীর তৃনমূলে যোগদান


শনিবার,০২/০২/২০১৯
270

বাংলা এক্সপ্রেস---

ঝাড়গ্রাম: বিজেপীর কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃীতিইরানির সভার পরেই মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে ঐ একই জায়গায় পাল্টা সভা করলো পার্থ চট্টপাধ্যায়। সিপিএমের নব নির্বাচিত পঞ্চায়েত মেম্বার মহাশীষ মাহাত সহ ৩৫০ জন এবং জাম্বনী ব্লকের জয়ী পঞ্চায়েত মেম্বার সবিতা খিলাড়ি সহ ৫০০ জন কর্মী তৃনমূলে যোগদান করে। সভা মঞ্চ থেকে তাদের দলীয় পতাকা তুলে দেন দলের মহাসচিব তথা রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন সিপিএমের অন্যতম নেতা মহাশিষ মাহাত জামবনী ব্লকের চিচিড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের বিজেপির সদস্য সরস্বতী গিরি, কেন্দডাংরি অঞ্চলের বিজেপির প্রধান সবিতা খিলাড়ী তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন। আরও এক ডজন জনপ্রতিনিধি ও নেতাদের বিশ্রামে রেখেছি। যারা বিজেপি থেকে তৃণমূলে যোগ দিতে চাই। দিলীপবাবুর ঘুম এবার বন্ধ হবে। কারণ পরিবারেরও ভাঙন আসছে।

ঝাড়গ্রামের গড়শালবনীর একই মাঠেই হয় সভা। উপস্হিত ছিলেন দলের মহাসচিব তথা রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও একাধিক নেতৃত্ব। পার্থ বাবু আগেই হুঁশিয়ারী দিয়েছিলেন যে সেদিন শুধু ঝাড়গ্রাম জেলার মানুষ মাঠ ভরিয়ে তুলবে তাদের বাইরের জেলা থেকে লোকজন কে নিয়েই সভায় মাঠ ভরাতে হবেনা বিজেপির মত। তৃণমূলের এই সভাকে ঘিরেই প্রত্যেক ব্লকের অঞ্চলে অঞ্চলে চলছিল জোরকদমে মিটিং মিছিল।

জেলার চারটি বিধানসভা থেকে কাতারে কাতারে লোক মাঠ ভরিয়ে তোলে। মানুষ মুখিয়ে ছিল আজকের জনসভাকে ঘিরে। রাজনৈতিক মহল বলছিল শুধু সময়ের অপেক্ষা রাজ্যের শাসক দল ও নেত্রী সম্পর্কে যা অসভ্য ভাষায় কথা বলেগেছিলেন কেন্দ্রের বস্ত্র মন্ত্রী তার মোক্ষম জবাব দেবে জনগন।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট