বাঁশ ত্রিপলের ছাউনি, প্রান হাতে ব্যবসা হাওড়া গ্রামীণের বহু বাজার


সোমবার,১১/০২/২০১৯
94

আক্তারুল খাঁন---

হাওড়া: দক্ষিণ-পূর্ব রেলের কুলগাছিয়া স্টেশনের ধার বরাবর প্রায় ২০০ ফুটের বেশি এলাকা জুড়ে ছোট ছোট খুপরি। খুপরি গুলোতে বিদ্যুৎ সংযোগ রয়েছে। অথচ শর্ট সার্কিট হলে তা রোখার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেই। কিন্তু সকাল থেকে রাত অবধি শয়ে শয়ে লোক বিকিনিকি করেন এই বাজারে।এই বাজার গত এক বছরে আরও বেড়েছে। কুলগাছিয়া বাজারের ব্যবসায়ীদের তথ্য অনুযায়ী, আগে রেললাইনের ধারে ১০০ মিটার অংশে বাজার বসত।

এখন আগের তুলনায় অন্তত ২০০ মিটার বেড়েছে। এই বাজার ক্রেতা-বিক্রেতা দুই পক্ষের জন্যই বিপজ্জক।কুলগাছিয়া লেভেল ক্রসিং থেকে পূর্ব দিকে রেললাইনের পাশে কাঁচা সবজি সহ হরেক রকম পণ্যের সমারোহ।হাওড়া খড়গপুর শাখায় ৫ মিনিট পর পর ট্রেন চলাচল করে। রেলপথের ধারে ঝুঁকি নিয়ে চলে বিক্রিবাট্টা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ক্রেতা জানান, বাজার রেললাইন ঘেঁষা হওয়ায় প্রায় সময়ই ট্রেনে কাটা পরে মানুষের মৃত্যু হয়।

এত কিছু হওয়া সত্বেও রেলের তরফে উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয়নি এবং পুরো বাজারের দোকানগুলো প্লাস্টিক ও পলিথিন দিয়ে তৈরি যেকোনো সময় লাগতে পারে আগুন। তবে কুলগাছিয়া বাজার নয়, হাওড়া গ্রামীণ এলাকাজুড়ে বিভিন্ন জায়গায় ঘুরলে নজরে আসবে এই রকম বহু বাজার। ব্যাঙের ছাতার মতো এই রকম বাজার গড়ে উঠেছে কোথাও রেলের জায়গা, কোথাও পূর্ত দফতরের জায়গা আবার কোথাও গ্রাম পঞ্চায়েত বা পঞ্চায়েত সমিতির জায়গা। অথচ কোথাও কোনো অগ্নিনির্বাপণের ব্যবস্থা নেই-ই, উল্টে অত্যন্ত বিপদজনক অবস্থা ওইসব জায়গা গুলোতে। কারণ যেসব দাহ্য পদার্থ দিয়ে সেগুলো তৈরি হয়েছে যে কোন সময় বড়সড় দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে। অথচ কোনও দেখভাল নেই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের।

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

জানা অজানা

সাহিত্য / কবিতা

সম্পাদকীয়


ফেসবুক আপডেট