সামনেই লোকসভা নির্বাচন কিন্তু তারও আগে দাসপুরে হল এক বিশেষ নির্বাচন


বুধবার,২০/০২/২০১৯
268

বাংলা এক্সপ্রেস---

পশ্চিম মেদিনীপুর: সামনেই লোকসভা নির্বাচন কিন্তু তারও আগে দাসপুরে হল এক বিশেষ নির্বাচন। যে নির্বাচনে ভোটার রয়েছে ভোট প্রার্থী ও রয়েছে কিন্তু নেই কোন রাজনৈতিক উত্তাপ, নেই কোন বাক-বিতণ্ডা নেই কোনো চাপানউতোর। বরং ভোট দিতে চরম উৎসাহী ভোটার থেকে ভোট কর্মীরা। এমনই চিত্র ধরা পড়ল পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার দাসপুর থানার পাঁচবেড়িয়া ইন্দুভূষণ স্মৃতি শিক্ষানিকেতনের শিশু সংসদ নির্বাচনের।

নির্বাচনের কিছুদিন আগে থেকেই ভোটে অঙ্গ হিসেবে তৈরি হচ্ছিল অগ্রিম নির্বাচনী তালিকা, ব্যালট পেপার,ভোট কক্ষ। চরম উৎসাহে স্কুল প্রাঙ্গণে লম্বা লাইন দিয়ে ভোট দিতে দেখা গেল কচিকাঁচাদের। ব্যালটেই ছাপ মেরে নিজের পছন্দে প্রধানমন্ত্রী শিক্ষা মন্ত্রী পরিবেশ মন্ত্রী সবই বেছে নিল খুদে পড়ুয়ারা। এখানে ভোটদানের প্রতীক ছিল বই, খাতা, পেন্সিলের মত শিক্ষার সঙ্গে যুক্ত বস্তুগুলি।

শিশু সংসদ নির্বাচনে মনোনীত করা হবে প্রধানমন্ত্রী, খাদ্যমন্ত্রী, শিক্ষামন্ত্রী, স্বাস্থ্যমন্ত্রী, পরিবেশ মন্ত্রীর মত গুরুত্বপূর্ণ পদে। যারা সারা বছর স্কুলের মানোন্নয়নে নজর দেবে। শিক্ষা থেকে স্বাস্থ্য কিংবা মিড ডে মিল এর মত পরিষেবাতে যেন কোনো ঘাটতি না হয় সে ব্যাপারে কড়া নজর থাকবে মন্ত্রীদের। এদিনের ভোটে অংশ নেয় প্রথম থেকে চতুর্থ শ্রেণি পর্যন্ত ১৮৪ জন ছাত্র-ছাত্রী।

গণতান্ত্রিক দেশে ভোটদানের অধিকার নিয়ে প্রচারে নেমেছে রাজ্য প্রশাসনগুলি। ভোটার দিবসে বিশেষত উঠতি ভোটারদের উৎসাহ দিতে কলেজে কলেজে প্রশাসনিক তরফে বিভিন্ন সময় শিবির করা হয় কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রীয় পরিকাঠামোয় এধরনের ভোট নেহাতই বিরল দৃশ্য।

স্কুলের প্রধান শিক্ষক দীপক মাইতির দাবি, গণতান্ত্রিক দেশে নির্বাচনের গুরুত্ব বোঝাতেই খুদে পড়ুয়াদের এই শিশু সংসদ নির্বাচন। স্কুল শিক্ষকদের অনুরোধ এই অভিভাবকরা এসেছিলেন শিশুদের নির্বাচন দেখতে। শিশুদের এই শান্তিপূর্ণ এবং উৎসাহ পূর্ণ নির্বাচনের চিত্র ভবিষ্যতে রাজনীতিবেস্টিত নির্বাচনের কচকচানি আর উত্তেজনায় কি ইতি টানবে সেটাই বড় প্রশ্ন।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট