যিনি যেমন কর্ম করবেন তাঁকে তেমন ফল ভোগ করতে হবে : দেব


শনিবার,২০/০৪/২০১৯
184

বাংলা এক্সপ্রেস---

পশ্চিম মেদিনীপুর: যিনি যেমন কর্ম করবেন তাঁকে তেমন ফল ভোগ করতে হবে৷ তাই ভারতী ঘোষ তাঁর কৃতকর্মের ফলই ভোগ করছেন বলে দাবি করলেন দেব৷ ঘাটাল লোকসভার গত ৫ বছরের সাংসদ দেব ওরফে দীপক অধিকারী এবারও একই কেন্দ্রে তৃণমূলের প্রার্থী হয়েছেন৷ তাঁর বিরুদ্ধে বিজেপির প্রার্থী হয়েছেন জেলার প্রাক্তন পুলিশ সুপার ভারতী ঘোষ শনিবার মনোনয়ন পত্র জমা দিতে আসেন দেব৷ এদিন সকাল ১১ টা নাগাদ তৃণমূলের ফেডারেশন ভবন থেকে মিছিল বার হয়৷

একটি হুড খোলা গাড়িতে তিনি ছিলেন৷ ব্যান্ড, রণপা , চৌ নাচ , আদিবাসী মহিলাদের পাতা নাচ, মাথায় কলসি নিয়ে নাচ, ঢাক, বাজনা নিয়ে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা এসে পৌঁছায় মেদিনীপুরের কালেক্টরেট চত্বরে৷ ততক্ষনে দোকানের রকে, কার্নিশের ধারে, গাছে ,রেলিং এর ওপর উঠে পড়েছেন বহু মানুষ দেব দর্শনের আশায়৷ দেবের গাড়ি পুলিশের ব্যারিকেডের সামনে থামতেই সেলফি তোলার জন্য, একবার হাত মেলানোর জন্য হুড়োহুড়ি পড়ে যায়৷

কোনোরকমে ভিড় সামলে রাজ্যের জলসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্র , জেলা পরিষদের সভাধিপতি উত্তরা সিংহ হাজরা, ঘাটালের বিধায়ক শঙ্কর দোলই কে নিয়ে জেলা শাসকের কার্যালয়ে মনোনয়ন পত্র জমা দিতে ঢুকেন৷ ভারতী ঘোষ অভিযোগ করেছেন, তিনি যাতে প্রচার চালাতে না পারেন এজন্য সিআইডিকে দিয়ে রাজ্য সরকার এখন জেরার নামে তাঁকে হেনস্তা করেছে৷ সাংবাদিকরা এবিষয়ে দেবের মতামত জানতে চাইলে তাঁর সাফ জবাব, ‘ উনি দেড় বছর লুকিয়ে না থেকে, পালিয়ে না বেড়িয়ে সিআইডিকে সহযোগিতা করলে এই দিনটা ওনাকে দেখতে হতো না৷’

এরপরই তাঁকে বলতে শোনা যায়, ‘ উনি যেমন কর্ম করেছেন তেমনি ফল ভোগ করছেন ৷ বিরোধী দলের অনেকেই তো প্রার্থী হয়েছেন তাঁদের সবাইকে তো সিআইডি জেরা করতে যাচ্ছে না ৷ ‘তাঁর নাম করেই দেব বলেন, ‘ ভারতী দেবী জেলার এসপি ছিলেন৷ আইনকানুন ভালোই জানেন৷ ওনার বিরুদ্ধে যে চার্জ গুলো রয়েছে এবিষয়ে তদন্তে সহযোগিতা করলেই ভালো৷ না হলে ফল ভুগতে হবে৷ ‘তাঁকে এভাবে ম্যারাথন জেরা করে রাজ্য সরকার ও তৃণমূল হিংসা চরিতার্থ করছে বলে অভিযোগ করেছেন ভারতী ঘোষ৷

এবিষয়ে দেব বলেন, ‘ মানুষকে বোকা বানানো এতো সহজ নয়৷ নির্বাচনের আগে সিবিআই এরাজ্যে যা করছিলো সেটা তাহলে কি ছিল? তিনি টাকা কমাতে রাজনীতিতে আসেননি৷ রাজনীতিতে স্বচ্ছতা, শালীনতাবোধ, শিষ্টাচার, সৌজন্যতা যাতে ফিরে আসে এজন্যই তিনি কাজ করছেন বলে জানান দেব৷ কার প্রতি এবং কোন দলের প্রতি মানুষের আসা ভরসা আছে তা ২৩ তারিখেই বোঝা যাবে বলে তিনি জানান৷

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

জানা অজানা

সাহিত্য / কবিতা

সম্পাদকীয়


ফেসবুক আপডেট