ভাঙড়ে তৃণমূল নেতা-কর্মীদের বাড়ীতে গিয়ে হুমকির অভিযোগে এফআইআর বিকাশের বিরুদ্ধে


সোমবার,০৬/০৫/২০১৯
603

সাদ্দাম হোসেন মিদ্দে---

বাংলা এক্সপ্রেস ডেক্স, ভাঙড় : যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্রের বাম প্রার্থী বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্যের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করল তৃণমূল। ভাঙড় থানায় এফআইআর দায়ের করেন ভাঙড় ১ নম্বর ব্লকের তৃণমূল কর্মাধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম। নজরুল ইসলামসহ কয়েকজন তৃণমূল কর্মীদের বাড়িতে গিয়ে হুমকি দেওয়ার অভিযোগে বিকাশের বিরুদ্ধে এফআইআর বলে জানা গেছে। লিখিত অভিযোগে বিকাশবাবুসহ কয়েকজন সিপিএম কর্মীর নাম রয়েছে।তৃণমূল কর্মীদের বাড়িতে বিকাশ। শনিবার।

রবিবার বিকালে ভাঙড়ে প্রচারে এসেছিলেন যাদবপুরের তৃণমূল প্রার্থী অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী। ভাঙড় ১এ ব্লকের সভাপতি কাইজার আহমেদের খাস তালুক প্রাণগঞ্জ এবং নারায়নপুর অঞ্চলে কর্মীসভা করেন মিমি।মিমিকে সামনে রেখেই কাইজার হুমকি দিয়ে ছিলেন বিকাশ রঞ্জনের বিরুদ্ধে এফআইআর করার। তারপর তৃণমূলের কর্মাধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম ভাঙড় থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।ভাঙড়ে কর্মীসভায় মিমি, সুভাশীষ ও কাইজার। রবিবার।

উল্লেখ্য শনিবার ভাঙড় ১এ ব্লকের প্রাণগঞ্জ অঞ্চলের মরিচা গ্রামে জান বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য। সিপিএমের পতাকা খুলে নিয়েছে তৃণমূলের লোকজন এই খবর পেয়ে বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য সটান চলে যান তৃণমূল কর্মীদের বাড়িতে। মরিচা গ্রামের স্থানীয় সিপিএম কর্মীরা বিকাশ বাবুকে জানান যে ,পতাকা খোলায় জড়িত ভাঙড় ১ ব্লকের কর্মাধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম ছাড়াও মাজহারুল ইসলাম এবং আকবর আলী। এদিন বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য প্রথমে নজরুল ইসলাম এবং পরে মাজহারুলের বাড়িতে যান। মাজহারুল ইসলামকে বাড়িতে পাওয়া গেলেও নজরুল ইসলামকে পাওয়া যায়নি । নজরুল ইসলামকে না পেয়ে বিকাশ বাবু তাঁর স্ত্রীকে বলে আসেন যে, “বলবেন যাদবপুরের সিপিএম প্রার্থী বিকাশবাবু বাড়িতে এসেছিলেন, আমাদের পতাকা আর যেন না খোলা হয় ,খুললে খারাপ হবে।”কর্মাধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম। সোমবার।

মাজহারুল ইসলামকে অবশ্য বাড়িতে পাওয়া যায়। বিকাশ বাবু মাজহারুলকে বলেন ,” আপনি আমাদের পতাকা গুলো খুলে দিলেন? “মাজহারুল তা অস্বীকার করেন। বিকাশ বাবু বলেন,” ঠিক আছে আপনি হয়তো খোলেননি কিন্তু আপনার দলের কেউ খুলেছে। একটু আপনার ছেলে-পুলেদের লক্ষ্য রাখবেন।” তারপর বিকাশ বাবু গ্রামের কয়েকজন সিপিএম কর্মীকে নিয়ে কিছু বক্তব্য রাখেন।বিকাশ বাবুর সঙ্গে ছিলেন সিপিএম নেতা তুষার ঘোষ এবং কিছু কর্মী- সমর্থক।কর্মাধ্যক্ষ এর স্ত্রী আমিনা বেগম। সোমবার।

এ বিষয়ে তৃণমূল নেতা কাইজার আহমেদ বলেন, “এসব হুমকি দিয়ে লাভ হবে না ,ওদের কর্মী নেই। ফালতু মিথ্যে কথা বলে বেড়াচ্ছে বিকাশ বাবু। জানতাম বিকাশবাবু একজন ভদ্রলোক। কিন্তু এদিন উনি তো দাদাগিরি করে গেলেন।” নজরুল ইসলাম বলেন, “আমাদের চোখে সিপিএমের পতাকা পড়েনি। নিজেরা কোথায় একটা পতাকা লাগিয়ে, নিজেরাই তা খুলে মিথ্যা অপপ্রচার করছে। আর আমাকে টার্গেট করছে ওরা। গ্রামের কেউ বলতে পারবে না যে ,আমরা এই ধরনের কাজের সঙ্গে যুক্ত। রাজনীতি করলেও আমি বিভিন্ন সমাজসেবামূলক কাজের সঙ্গে যুক্ত। সবার সঙ্গে আমার ওটা বাসা।” নজরুলের স্ত্রী আমিনা বেগম বলেন,” বিকাশ বাবু এদিন ২০-৩০ জনকে নিয়ে বাড়িতে আসেন। স্বামী বাড়িতে নেই বললেও জোর করে তারা  বাড়ির ভিতরে প্রবেশ করে। বলে যায় এবার পতাকা খুললে খারাপ হবে, দৌড় করানো হবে। সে সময় আমি বাড়িতে আমার বাচ্চাকে নিয়ে ছিলাম। আমি আতঙ্কে আছি,আবার কখন কি হয়।”

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট