“বিদ্যাসাগরের” মূর্তি বলতে গিয়ে তিনি মুখ ফসকে “বিবেকানন্দের” মূর্তি বলে ফেললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়


বুধবার,১২/০৬/২০১৯
225

মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিদ্যাসাগরের মূর্তি উন্মোচন করতে যান। বিদ্যাসাগরের মূর্তি বলতে গিয়ে তিনি মুখ ফসকে বিবেকানন্দের মূর্তি বলে ফেলেন। সেখান থেকেই বিজেপিকে আক্রমণ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অমিত শাহ কে আক্রমণ করতে গিয়ে তিনি বলেন,”আজ যিনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তার রোড শোতে বিবেকানন্দের মূর্তি ছুড়ে ফেলে দেওয়া হয়েছিল। আমরা এগুলি বরদাস্ত করবো না।”অমিত শাহ কে তিনি প্রশ্ন করেন,”কেন বিবেকানন্দের মূর্তি ভাঙলেন?”পরে অবশ্য তিনি তার কথা তোরে নিজের ভুল শুধরে নেন। হেয়ার স্কুলে থেকে তিনি এ কথা বলেন,”আজ যিনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী,তার জন্য ভেঙেছে বিদ্যাসাগরের মূর্তি। ওরা আমাদের সংস্কৃতি ভেঙে ফেলতে চাই।”তিনি এ কথা উল্লেখ করেন যে,”বাংলাকে গুজরাট করতে দেব না। তাতে আমাকে জেলে যেতে হয় তাও যাব। বাংলার মাটিতে থেকে বাংলা কে অপমান করা যাবে না আমি প্রাণ দিয়ে লড়বো।”তিনি আরো বলেন,”গান্ধীজী গুজরাটে যে সম্মান পাননি,বাংলায় তা পেয়েছেন।বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভেঙে দিয়ে বর্ণপরিচয় ভেঙে দেওয়া যায় না।আমাদের সৃষ্টি কে আঘাত করে বাংলাকে ঘুরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে।”

মুখ্যমন্ত্রী আরো চারটে ব্রোঞ্জের মূর্তি ও কাজী নজরুল ইসলামের মূর্তি তৈরি করার কথা ঘোষণা করেছেন। এর পাশাপাশি এদের রাজ্যপাল কেউ একহাত নেন মুখ্যমন্ত্রী।তিনি বলেন,”রাজ্যপাল ভাষণ দিয়ে বলেছেন,রাজনৈতিক সংঘর্ষে 12 জন খুন হয়েছে।আমি এটাকে সমর্থন করি না।”রাজ্যপাল মৃতের সংখ্যা বাড়িতে বলেছেন বলেও অভিযোগ করেন তিনি।এর পাশাপাশি সংঘর্ষে যে 10 জনের মৃত্যু হয়েছে তার পরিবারের দেখভালের জন্য চিফ সেক্রেটারি কে নির্দেশ দেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

জানা অজানা

সাহিত্য / কবিতা

সম্পাদকীয়


ফেসবুক আপডেট