জি ডি বিড়লা ঘটনায় মৌন মিছিল স্কুলের অভিভাবকদের


রবিবার,২৩/০৬/২০১৯
308

কলকাতা : কৃত্তিকার মৃত্যু মেনে নিতে পারছেন না অভিভাবক থেকে শুরু করে কেউই। একরত্তি মেয়েটির এইভাবে আত্মহত্যার ঘটনা যেন নাড়া দিয়ে গিয়েছে সকলের হৃদয়ে মননে। কেন এমন ঘটনা ঘটলো? কি এমন অভিমান ঘটেছিল ওই মেয়েটির মনের মধ্যে? উত্তর জানা নেই কারোরই। তার আত্মহত্যার ধরনও দুঁদে গোয়েন্দা অফিসারদের ও ভাবিয়ে তুলেছে। এমন একটা বাচ্চা মেয়ে এমন ভাবে আত্মহত্যা? মুখে প্লাস্টিক জড়িয়ে এমন ভাবনা কোথা থেকে এলো তার? আর কৃত্তিকার সুইসাইড নোটে যেসব ভাষা উল্লেখ রয়েছে তা নিয়েও যেন এক অন্য রকম ইঙ্গিত বহন করছে! আসলে কি বোঝাতে চেয়েছে ওই মেয়েটি? মোটর বাইকে চেপে সে কলকাতা থেকে লন্ডন যেতে চেয়েছিল, ইচ্ছে ছিল স্পেনে চলে যাওয়ার….. এমন ভাষার অর্থ কি?? মানসিক অবসাদ কিসের জন্য? উত্তর সবই অস্পষ্ট। গোয়েন্দা অফিসাররা খতিয়ে দেখছেন বোঝার চেষ্টা করছেন তার শেষ বয়ান এ লিখে যাওয়া ভাষার অর্থ।

আর সে যে স্কুলে পড়তো সেই জি ডি বিড়লার ভূমিকাও বা কতটা কেমন ছিল তা নিয়ে উঠে গিয়েছে নানান প্রশ্ন। ই সি জি ডি বিড়লা যে স্কুলে ধর্ষণের ঘটনা কে কেন্দ্র করে তুমুল শোরগোল পড়ে গিয়েছিল গোটা রাজ্যে। অভিভাবকদের আন্দোলনে তুফান বয়ে গিয়েছিল। সেই আন্দোলনের জেরে স্কুল কর্তৃপক্ষ অনেক দাবি মেনে নিয়েছিল সেই সময়। স্কুলের বিভিন্ন জায়গায় বসানো হয়েছিল সিসিটিভি। কৃত্তিকার মৃত্যুর পিছনে নিরাপত্তাজনিত কোন খামতি ছিল কি? সিসিটিভি মনিটরিং হয়েছিল কি সঠিকভাবে? উত্তর অজানা অভিভাবকদের। রবিবার ছুটির দিন মৌন মিছিল করলেন অভিভাবকরা। কৃত্তিকার মৃত্যু নিয়ে এখনো পর্যন্ত স্কুল সম্পর্কে কোন রকম মন্তব্য না করতে চাইলেও নিরাপত্তা বিষয়গুলি তারা স্কুল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আবারও আলোচনায় বসতে চান বলে জানালেন।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট