আজ রায়গঞ্জের বিভিন্ন নদী বাঁধ গুলির অবস্থা কেমন আছে সে বিষয় নিয়ে সরেজমিনে খতিয়ে দেখলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরী


রবিবার,২১/০৭/২০১৯
401

উত্তর দিনাজপুর: পাহাড়ে বৃষ্টির জেরে জল বাড়তে শুরু করায় দু একদিন আগে উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ ব্লকের কুলিক, মহানন্দা ও নাগর নদীতে জল বাড়তে শুরু করেছে। সেই সঙ্গে গৌরী গ্রাম পঞ্চায়েতের কুলিক নদীর বাঁধের দুই জায়গায় বাঁধে ফাটল দেখা দেওয়ায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে সাধারণ মানুষের মধ্যে। ২০১৭ সালে প্রায় দুই কোটি টাকা খরচ করে বাঁধটি নির্মাণ করা হয়েছিল। কিন্তু দুই বছর যেতে না যেতেই সেই বাঁধে ফাটল দেখা দেওয়ায় কাজের গুণমান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন সাধারণ মানুষ।আজ এই রায়গঞ্জ ব্লকের গৌরী গ্রাম পঞ্চায়েতের রহমতপুর, গোয়ালদহ, জুগিয়া মোড়, নিমতলা, অনন্তপুর, দুপদুয়ার, নয়াটুলি, ভিটিয়ার ছাড়াও বাহিন গ্রাম পঞ্চায়েতের একাংশ এলাকাগুলো ঘুরে দেখেন রায়গঞ্জের সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় নারী ও শিশু কল্যাণ দফতরের রাষ্ট্রমন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরী।

এদিন তিনি এইসব এলাকায় নদী বাঁধ গুলির অবস্থা কেমন আছে সে বিষয়ে নিজে গিয়ে সরজমিনে খতিয়ে দেখেন।এই সব এলাকায় গত বৃহস্পতিবার রাত থেকে কুলিকের বাঁধে ফাটল দেখা দেওয়ায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে গৌরী গ্রাম পঞ্চায়েতের বাসিন্দাদের মধ্যে। বছর দুয়ে আগে কুলিক নদীর এই অংশের বাঁধ ভেঙেই প্লাবিত হয়েছিল রায়গঞ্জ এবং ইটাহার ব্লকের একাধিক গ্রাম।২০১৭ সালের বন্যার সময় কুলিক নদীর যে সমস্ত অংশ জলের তোড়ে ভেঙে গিয়েছিল, সেগুলি মেরামতির জন্য প্রায় দুই কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছিল। বিশাহার মৌজায় প্রায় ১ কোটি ৩৩ লক্ষ টাকা বরাদ্দ করে একটি বাঁধ মেরামত করা হয়। আরেকটি বাঁধ সংস্কার করার জন্য ৩৩ লক্ষ টাকা খরচ করা হয়েছিল।কিন্তু এত টাকা বরাদ্দ সত্ত্বেও কীভাবে বাঁধে ফাটল ধরল, তা নিয়ে এবার প্রশ্ন তুললেন স্বয়ং কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরী আজ।

তিনি বলেন গত দু’বছর আগে নির্মাণ হওয়া এই বাঁধের অবস্থা এত তাড়াতাড়ি খারাপ হলো কি করে সে বিষয়ে তিনি জেলাশাসক , মহকুমা শাসক এবং বিডিও র সঙ্গে কথা বলবেন এবং যাতে খুব তাড়াতাড়ি এই বাঁধের অবস্থার প্রয়োজনীয় মেরামতি করে দ্রুত ঠিক করে দেওয়া হয়। তিনি বলেন দুই বছরের একটি বাঁধে যদি এই হাল হয় তাহলে এর থেকেই বুঝা যাচ্ছে যে এর থেকে কতটা কাট মানি গেছে তাদের পকেটএ। তিনি বলেন এইসব ব্যাপারে সচেতন হওয়া দরকার এবং রাজনীতির উর্ধ্বে উঠে এগুলি দেখা উচিত। এদিন তার সঙ্গে ছিলেন বিজেপি জেলা সভাপতি নির্মল দাম সহ এক প্রতিনিধিদল। মন্ত্রী এদিন বেশ কিছু জায়গা ঘুরে দেখেন এবং সাধারণ মানুষের সাথে কথা বলেন এবং তাদের সমস্যার কথা শোনেন।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট