অহংকার- এন.কে.মণ্ডল (সপ্তম পর্ব)


শনিবার,২১/০৯/২০১৯
1090

অহংকার– এন.কে.মণ্ডল
(সপ্তম পর্ব)

–আসিফ: এতো ভালো খবর, ঠিক আছে আমি রাজি, কিন্তু শহরের লোকে অনেক কটুকথা বলবে।
–রিয়া: কে কি বলবে তা দেখে আমার বয়ে গেলো।
–আসিফ: ঠিক আছে আগামীকাল সকালে নিয়ে যাব।
–রিয়া: তোমায় আসতে হবে না, আমিই চলে যাব তোমার বাসায়। ঠিক আছে।

তাহলে কাকিমা আমি আসি কিছু কেনাকাটা করতে হবে। ঠিক আছে যাও বাবা। কোনো অসুবিধে হলে আমায় জানাবে কেমন। ঠিক আছে কাকিমা।

–সুজাতা: কি রে মামা হটাৎ করে আসিফের সঙ্গে গ্রামে যেতে চাইছিস, কিছু ঘটনা পাকাচ্ছিস না তো মনে মনে।

–রিয়া: কি যে বল না মা,

–সুজাতা: মায়ের চোখে ফাঁকি দিবি, পারবি তো ধরতে।
–রিয়া: চেষ্টা তো করছি, দেখা যাবে।
–সুজাতা: আসিফ কি জানে এসব কথা,
–রিয়া: না মা জানে না, আসিফ ভাইয়া বোনের মতোই ভালোবাসে। কিন্তু আমি পিছু ছাড়ছি না। যে ভাবে হোক পাকড়াও করব।
–সুজাতা: ঠিক আছে যা বেড়িয়ে আয়, গ্রামের সৌন্দর্য্য অনেক সুন্দর, খুব ভালো লাগবে।

আচ্ছা মা বাবা কিছু বলবে না, নারে না তোর বাবার সবচেয়ে পছন্দ আসিফ কে।
আমার সঙ্গে কথা হয়েছে এর আগে, যে আসিফ যদি বিয়ে করতে রাজি হয় তাহলে বিয়ে দিয়ে দেবে। এবং আসিফের বাবা মা কে এখানে নিয়ে আসবে। আর আসিফকে একখানা বাড়ি গিফট করবে।
–রিয়া: ওহ তাই নাকি আমি তো জানতাম না। আচ্ছা মা যদি ধর্মীয় লোকে বাধা দেয় তাহলে তো হবে না তাই না।

–সুজাতা: আরে গাধা আমরা কি তাদের কথা নেব নাকি, না নিই, আমরা আমাদের কাজ করব, কে কি বলল তা দেখে আমাদের লাভ নেই। আর তাছাড়া শহরে ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেটের বিরুদ্ধে কথা বলবে।

–রিয়া: আচ্ছা মা সেতো বুঝলাম আসিফের মামা বা যদি রাজি না হয়। ওরা তো মুসলিম।

এন.কে.মণ্ডল

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট