খড়্গপুরে শেষ বেলার প্রচারে অন্য্ রাজনৈতিক দল গুলিকে টেক্কা দিল তৃণমূল


রবিবার,২৪/১১/২০১৯
419

পশ্চিম মেদিনীপুর :- এক পাগল কে নিয়ে চলেছেন খড়্গপুরের মানুষ। কখনো বলছেন গরুর দুধের সোনা আছে, কখনো বলছেন এনআরসি করে সবাইকে তাড়িয়ে দেব। সাড়ে তিন বছর খড়গপুর এর বিধায়ক ছিলেন ।বিধানসভায় খড়গপুর এর জন্য একটা কথাও বলেননি। উনি উন্নয়ন বোঝেন না । উন্নয়ন করতেও জানেন না । নির্বাচনী প্রচারে শেষ দিনে এসে দিলীপ ঘোষকে এভাবে আক্রমণ করলেন রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম।

প্রচার এর শেষ দিনে খড়গপুর সদর বিধানসভার উপনির্বাচনের তৃণমূল প্রার্থী প্রদীপ সরকার এর সমর্থনে রাজ্যের মন্ত্রী তথা কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম।খড়গপুর শহরের পাঁচবেড়িয়া, ঈদগা, কাজী মহল্লা সহ একাধিক জায়গায় দলীয় প্রার্থী কে সঙ্গে নিয়ে সঙ্গে নিয়ে বাড়ি বাড়ি প্রচার প্রচার করেন ফিরহাদ হাকিম । সভায় বিজেপিকে করা ভাষায় আক্রমন করে ফিরহাদ বলেন , বিজেপি যদি দেশের বিকাশ চায় তবে নোট বন্দির পর কেন এত বেকারত্ব বাড়লো ? দেশের অর্থনীতি ধ্বংসের মুখে ।রেলে নিয়োগ বন্ধ । বিজেপি দেশের বিকাশ নয় , বিনাশ চায়।

এদিকে এদিন বিকেলে খড়্গপুরের বিভিন্ন এলাকায় রোড শো করে প্রচার চালান রাজ্যের পরিবেশ ও পরিবহন মন্ত্রী শুভেন্ধু অধিকারী । একটি পথ সভায় তিনি বলেন , ‘ এই খড়্গপুর থেকেই বিজেপির শেষের শুরু । এখান থেকেই শুরু হবে বিজেপি নামক বিষবৃক্ষ উপরে ফেলার কাজ । আর এতে মানুষ তৃণমূলের পাশে দাঁড়িয়েছে । ‘ এর পাশাপাশি আজ সকাল থেকেই তৃনমূলের সংগে সমানে টক্কর দিতে রাজনৈতিক ময়দানে বিজেপি ও এক ইঞ্চি জমিও ছাড়েনি। এদিকে শেষ বেলার প্রচারে ঝড় তোলে বিজেপিও । বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা নিয়ে বিশাল মিছিল করেন বিজেপি কর্মী সমর্থকরা । হুড খোলা গাড়িতে ছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি তথা সাংসদ দিলীপ ঘোষ , কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গী,প্রার্থী প্রেমচাঁদ ঝা , জেলা সভাপতি শমিত দাস । রিলায়েন্স পেট্রল পাম্প থেকে চাঁদমারি হাসপাতাল মোড় পর্যন্ত যায় ।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট