আত্মপ্রকাশ দেবাদৃত’র রবীন্দ্রসঙ্গীতের অ্যালবাম “আমার যে গান”


মঙ্গলবার,২১/০১/২০২০
951

বর্তমান সময়ের প্রাসঙ্গিকতাকে তুলে ধরে দেবাদৃতর গাওয়া ‘ঝিল সায়রের গান’ সিঙ্গেলটির যাত্রা শুরু।শ্রীনিবাস মিউজিক থেকে প্রকাশ পাওয়ার তিন মাসের মধ্যে ইউটিউবে ৩০ হাজার দর্শক-শ্রোতার ভালোবাসা পেয়েছে এই গান। এই উপলক্ষে গ্যালারি গোল্ডে বসেছিল সংগীতের আসর। যার মধ্যমণি অবশ্যই দেবাদৃত চট্টোপাধ্যায়। বর্তমান গানের জগতের এক সম্ভাবনাময় উদীয়মান শিল্পী।

অনুষ্ঠানে ‘ঝিল সায়রের গান’ এই অডিও-ভিডিও গানটি হয়ে ওঠার গল্প শোনালেন কুশীলবেরা । অসাধারণ গীত লিখেছেন অভিজিৎ চট্টোপাধ্যায় এবং সুর করেছেন দেবজিত রায়। এই প্রসঙ্গে সুরকার জানালেন,’ঝিল সায়রের গান, দুটো মানুষের প্রেমের গল্প। বহুদিন পর এই ধরনের গান তৈরি হয়েছে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মের জন্য। একেবারেই ভিন্ন স্বাদের গান। খুব যে কালোয়াতি আছে, তা কিন্তু নয়। একটা নির্ভেজাল ভালোবাসার কথা আছে, যা এই সময়ে দাঁড়িয়ে ভীষণই প্রাসঙ্গিক। মানুষে মানুষে প্রেমের কথা বলে।‘ এদিন

দেবাদৃতর গাওয়া রবীন্দ্রসংগীতের অ্যালবাম ‘আমার যে গান’ প্রকাশিত হল শ্রীনিবাস মিউজিক এবং ‘নব রবিকিরণ’এর যৌথ উদ্যোগে। নিজেরই কিছু বাছাই গান গেয়ে শোনান দেবাদৃত। এ প্রসঙ্গে শিল্পী জানালেন,’ঝিল সায়রের গান, ভোলোনি আমার গান এবং গল্প লিখছি শহর – এই গানগুলো আরো বেশি করে শ্রোতাদের শোনাতে চাই। মূলত আমি রবীন্দ্রসংগীত গাই, তাই এই গানগুলো সেইভাবে শোনানো হয় না। আমার এই গানগুলোকে একটু নতুন ভাবে আবিষ্কার করতে পারছি হয়ত।‘

নিজস্বতা, গায়কী, প্রকাশভঙ্গী, সর্বপরি উচ্চারণ – সব মিলিয়ে অতি সহজেই ভালোলাগার আবেশে শ্রোতাদের জড়িয়ে ফেলেন দেবাদৃত।
দেবাদৃতের কথা —-

প্রখ্যাত রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী শ্রাবণী সেনের ছাত্র তিনি। ছোট থেকে রবি গানের সঙ্গে আত্মার আত্মীয়তা গড়ে ওঠে দেবাদৃত চট্টোপাধ্যায়ের। রবীন্দ্রসংগীত ছাড়াও শিল্পী অত্যন্ত দক্ষতা ও নিষ্ঠার সঙ্গে স্বর্ণযুগের বাংলা গান গেয়ে থাকেন। রবীন্দ্র গান নিয়ে পড়াশুনো এবং রবীন্দ্রভারতী থেকে স্নাতক হওয়া।

তাঁর উদাত্ত এবং সুরেলা কন্ঠের গান, শোনা গেছে বিভিন্ন জনপ্রিয় সিরিয়ালে। যেমন – চোখের তারা তুই, চোখের বালি, দ্বিরাগমন, মঙ্গলচণ্ডী, আয় খুকু আয়, চিরদিনই আমি যে তোমার, দুর্গা দুর্গেশ্বরী ইত্যাদি। তাঁর গান নিয়ে তিনি হাজির হয়েছেন কলকাতা দূরদর্শন, তারা টিভি, আকাশ ৮, রূপসী বাংলা, সিটিভিএন চ্যানেলের গানের অনুষ্ঠানে। গানের জলসা বসিয়েছেন বিভিন্ন এফ এম রেডিও চ্যানেলে। পেয়েছেন মির্চি মিউজিক অ্যাওয়ার্ড। বিভিন্ন ফাংশানে সাফল্যের সঙ্গে অংশগ্রহণ করেছেন। করে থাকেনও।

বেশ কয়েকটি রবীন্দ্র গানের অ্যালবাম করার পাশাপাশি বেশ কিছু বাংলা আধুনিক গান গেয়ে ইতিমধ্যেই গানের জগতে আগ্রহ জাগিয়েছেন তরুণ এই প্রতিভা।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট