৫ বছরের শিশুকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে মেরে ফেলার অভিযোগ


রবিবার,০২/০২/২০২০
653

হাওড়া,আমতা: হাওড়া আমতা বসন্তপুর মহিষ পাড়ায় শনিবার ভোর রাতে ৫ বছরের শিশুকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে মেরে ফেলার অভিযোগ উঠলো।কয়েকঘণ্টা খোঁজাখুঁজির পর বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে একটি খাল থেকে ওই শিশুপুত্রের দেহ উদ্ধার করা হয়। শনিবার সকালে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে হাওড়ার আমতার বসন্তপুরে মহিষ পাড়া এলাকা।পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে,সঞ্জয় মালিক ও স্ত্রী দোলন মালিকের একটি কন্যাসন্তান রয়েছে। পাঁচ মাস আগে পুত্রসন্তানের জন্ম দেন দোলন। শুক্রবার রাতে পাঁচ মাসের শিশুপুত্রকে নিয়ে ঘুমোচ্ছিলেন ওই দম্পতি। ভোরের দিকে ঘুম ভাঙলে তাঁরা দেখেন, মাঝে শিশুপুত্র নেই। আঁতকে ওঠেন তাঁরা। কান্নাকাটি শুরু করে দেন দম্পতি। ডাকাডাকি শুরু করলে প্রতিবেশীরা জড়ো হয়ে যান।সকলেই খোঁজাখুঁজি শুরু করে । কিছুক্ষণ পর বাড়ি থেকে প্রায় ৫০০ মিটার দূরে একটি খালে শিশুর দেহ ভাসতে দেখা যায়। দেহ উদ্ধারের পরই নিহত শিশুর মা তার দেহ কোলে তুলে নেন।
অভিযুক্তকে দ্রুত গ্রেফতারের দাবিতে শিশুর দেহ কোলে নিয়ে উদয়নারায়নপুর-মুন্সিরহাট রোড অবরোধ করেন গ্রামবাসীরা।

খবর পেয়ে আমতা থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী ও র‌্যাফ ঘটনাস্থলে পৌঁছয়। পুলিশ অবরোধ তুলতে গেলে অবরোধকারীদের সঙ্গে পুলিশের ধস্তাধস্তি শুরু হয়ে যায়। বাধ্য হয়ে পরিস্থিতি সামাল দিতে লাঠিচার্জ করে পুলিশ। এরপরই অবরোধ উঠে যায়। শিশুর দেহ ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে।হাওড়া (গ্রামীণ) পুলিশ সুপার সৌম্য রায় বলেন, একটি অস্বাভাবিক খুনের মামলা রুজু করা হয়েছে।এক জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের পরই জানা যাবে কীভাবে মৃত্যু হল শিশুটির। কে বা কারা শিশু খুনের ঘটনায় জড়িত, তা এখনও জানা যায়নি। আমতা থানার পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট