ধর্মে ধর্মে বিভাজনের বিরুদ্ধে ছিলেন শ্রী চৈতন্যদেব


মঙ্গলবার,১১/০২/২০২০
293

মানুষে মানুষে বিভাজন বা ধর্মে ধর্মে বিভাজন ভাবধারায় বিশ্বাসী ছিলেন না শ্রীচৈতন্যদেব। মহামিলনের বাণী ছড়িয়ে গিয়েছিলেন তিনি। নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন ঘিরে যখন গোটা দেশ বিভাজনের আবহের মধ্যে চলেছে ঠিক সেইসময় শ্রী চৈতন্যদেবের বাণী সুসংহত দেশ গঠনে সঠিক দিশা দেখাতে পারে। শ্রীচৈতন্যদেবের জন্মোৎসব পালন উপলক্ষে সোমবার উত্তর কলকাতায় এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়। এই শোভাযাত্রায় অংশ নিয়ে বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে শ্রী চৈতন্যদেবের বাণী আরো বেশি করে ছড়িয়ে দেওয়ার আহ্বান জানালেন বাগবাজার গৌড়িয় মিশনের আচার্য ও সভাপতি বিষ্ণুপাদ পরমহংস শ্রীমদ  ভক্তি সুন্দর সন্ন্যাসী মহারাজ। ১০ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হয়ে সাত দিন ধরে চলবে শ্রীচৈতন্য জন্মোৎসব ও মেলা। জানালেন তিনি। বর্তমান সময়ে হিংসা ও হানাহানি রুখতে শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর দেখানো পথ এবং বিশ্বভাতৃত্ব ও শান্তির বার্তা সর্বত্র ছড়িয়ে দেওয়ারও আহ্বান জানান তিনি।

শ্রীচৈতন্য জন্মোৎসব ও মেলা উপলক্ষে বাগবাজার ভগিনী নিবেদিতা উদ্যান থেবে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা ও নগর সংকীর্তনও অনুষ্ঠিত হয়। এই শোভাযাত্রায় গৌড়ীয় মিশনেরর সন্ন্যাসীরা ছাড়াও সমাজের বিভিন্ন অংশের মানুষ অংশগ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানের বিভিন্ন দিনে উপস্থিত থাকবেন রাজ্যের একাধিক মন্ত্রী, সাংসদ সহ বিশিষ্ট মানুষরা। ধর্মীয় আলোচনা ছাড়াও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সহ বিভিন্ন কর্মসূচি থাকছে বিভিন্ন দিনে। বিভিন্ন অনুষ্ঠানেরর মধ্য দিয়ে শ্রীচৈতন্যের আদর্শে যুবসমাজকে উদ্বুদ্ধ করার উদ্দেশ্যও নেওয়া হয়েছে মেলার মধ্য দিয়ে।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট