মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘোষণা বাস্তবে রূপায়িত হওয়ায় খুশি বিদ্যাসাগরের গ্রাম বীরসিংহ এলাকার বাসিন্দারা


শনিবার,২৬/০৯/২০২০
707

নিজস্ব সংবাদদাতা, পশ্চিম মেদিনীপুর: শনিবার পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার ঘাটালের বীরসিংহ গ্রামে ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের দ্বিশত জন্মবার্ষিকীর সমাপ্তি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় ।এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্র, জেলাশাসক রেশমি কমল, জেলা পরিষদের সভাধিপতি উত্তরা সিংহ হাজরা, সহ সভাধিপতি অজিত মাইতি, জেলার পুলিশ সুপার দীনেশ কুমার,ঘাটালের বিধায়ক শংকর দোলুই সহ আরো অনেকে। করোনা পরিস্থিতির জন্য অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকলেই সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে সামিল হয়েছিলেন। শনিবার থেকে মঙ্গলবার পর্যন্ত বীরসিংহ গ্রামে রাজ্য প্রশাসনের উদ্যোগে অনুষ্ঠান চলবে । প্রতিদিন বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানএর আয়োজন করেছে প্রশাসন। অনুষ্ঠানেও উপস্থিত সকলেই বিদ্যাসাগরের মূর্তিতে ফুলের মালা দিয়ে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন সেই সঙ্গে বীরসিংহ এলাকার কি কি উন্নয়নমূলক কাজ হয়েছে তা তারা বিস্তারিতভাবে বলেন। এতদিন বীরসিংহ অবহেলিত হয়ে পড়েছিল। দীর্ঘ ৩৪ বছরে উন্নয়নের কথা কোনদিনো মনে করেনি তৎকালীন বাম সরকার । তাই অবহেলিত ছিল বিদ্যাসাগরের বীরসিংহ গ্রাম । কিন্তু রাজ্যের বর্তমান সরকারের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ২০১৯ সালের ২৪ শে সেপ্টেম্বর বিদ্যাসাগরের দ্বিশত জন্মবার্ষিকী বছরব্যাপী অনুষ্ঠানের সূচনা করে ঘাটালের বীরসিংহ গ্রামে দাঁড়িয়ে ঘোষণা করেছিলেন যে বীরসিংহ কে উন্নয়ন পর্ষদ হিসেবে ঘোষণা করা হবে।

ঘাটালের বীরসিংহ গ্রামের সিংহ শিশু বিদ্যাসাগরের দ্বিশত বর্ষ জন্মবার্ষিকীর সমাপ্তি অনুষ্ঠানের আগেই সেই স্বীকৃতি পেল বীরসিংহ এলাকারবাসিন্দা। শুধু তার পাশাপাশি ঘাটাল ব্লক এর বেশ কিছু এলাকা ওই উন্নয়ন পর্ষদের আওতাধীন থাকবে বলে প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে। উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান হয়েছেন পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার জেলাশাসক রেশমী কোমল।গতবছর মুখ্যমন্ত্রী প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন উন্নয়ন পর্ষদ গঠন করবে অবশেষে গত বৃহস্পতিবার রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকে বীরসিংহ উন্নয়ন পর্ষদ হিসাবে স্বীকৃতি পায় । যার ফলে এলাকার সর্বস্তরের মানুষ খুশি।এলাকার বাসিন্দারা বলেন বীর সিংহ আর অবহেলিত থাকবেনা। বীরসিংহ উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান তথা জেলাশাসক রেশমি কমল বলেন সরকারি নির্দেশ মতো পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে এবং তিনি বলেন এই এলাকার রাস্তাঘাট পরিকাঠামোর সাথে কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করা যায় সে বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। বিদ্যাসাগরের হাত ধরে পর্যটনশিল্পের উন্নয়ন হবে।ঘাটালের বেশ কিছু এলাকা ওই পর্ষদে অন্তর্ভুক্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। যেভাবে এতদিন অবহেলিত এলাকা ছিল বিদ্যাসাগরের জন্মস্থান বীরসিংহ গ্রাম এখন থেকেই সেই বদনাম খুঁজতে চলেছে বলে এলাকার বাসিন্দারা জানান। তারা বলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বদান্যতায় আগামী দিনে বীরসিংহের সিংহ শিশু ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের জন্মস্থান বীরসিংহ সারাদেশের কাছে তার পরিচয় লাভ করবে। তাই মুখ্যমন্ত্রী প্রতিশ্রুতি দিয়ে প্রতিশ্রুতি রক্ষা করায় খুশি বীরসিংহ সহ ঘাটাল মহকুমার সর্বস্তরের বাসিন্দারা। তাই শনিবার ওই অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকলেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে স্বাগত জানান।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট