গুড় কাহিনি


শুক্রবার,২৭/১১/২০২০
796

রামিজ ইউসুফ : অমিতাভ বচ্চনের সসওদাগর ছবির কথা মনে আছে? মোতির কথা? যার খেজুর গাছের রস থেকে বানানো গুড় বিক্রি করায় পেশা ছিল।রাঢ় বাংলার একটা বড়ো অংশে শীতের শুরুতে এখনও এই সওদাগরদের দেখা যায়। কেউ কেউ স্থানীয় তো কেউ কেউ অন্য জেলার। এরা সাধারণত আশেপাশে অনেক খেজুর গাছ আছে এরকম জায়গা দেখে তাদের তাঁবু খাটায়।বেশিরভাগটাই রাস্তার ধারে দেখা যায়। এরপর খেজুর গাছ গুলোর একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ কান্ডের ছাল ছাড়িয়ে সেটিকে একটি কোণ করে ( ঠিক যেন সিঁড়ির মত) একটি হাঁড়ির মত কলসি গাছের সাথে আটকে দেওয়া হয়

এরপর সারাদিন ধরে রস টুপ টুপ করে ঝরে ঐ কলসির মধ্যে জমা হয়। তারপর একটি নির্দিষ্ট সময় পর, সেটি সংগ্রহ করে প্রক্রিয়ারন করে খেজুরের রস ও পাটালি গুড় তৈরি করা হয়। ( প্রক্রিয়াকরণ নিয়ে অন্য পর্বে বলবো)

তারপর সেগুলো বিক্রি করা শুরু হয়।এই রস ও গুড় এতোটাই খাঁটি ও সতেজ হয় যে এর চাহিদা আকাশছোঁয়া। যাই হোক বীরভূমের এই খেজুরের রসালো কাহিনি কিছু ছবির মাধ্যমে আপনাদের সাথে ভাগ করে নিতে চাই।

 

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট