কৃত্রিম রং আপনার চোখের ক্ষতি করবে : আসন্ন হোলিতে আপনার চোখের প্রতিরক্ষায় বিশেষজ্ঞের পরামর্শ


বৃহস্পতিবার,১৭/০৩/২০২২
156

কলকাতা: হোলি হল রঙের উৎসব এবং অশুভের বিরুদ্ধে শুভের জয় উদযাপন, কিন্তু আমরা অনেক সময় ভুলে যাই যে উদযাপনের সময় আমরা নিজেদের অথবা অন্যদের অজান্তেই ক্ষতি করছি যখন আমরা কৃত্রিম রং ব্যবহার করি। চোখের ওপর কেমিক্যাল-ভর্তি রঙের ক্ষতিকারক প্রভাবের ফলে দীর্ঘমেয়াদি গুরুতর সমস্যা হতে পারে এমনকি এর ফলে শেষপর্যন্ত অন্ধত্বও আসতে পারে। প্রতি বছর হোলির সময় বা তার পর হাজার হাজার চোখের সমস্যার ঘটনা সামনে আসে। এটা খুবই দুঃখের যে রঙের উৎসবের আনন্দ ও ফুর্তি কারো জন্য মোড় নেয় বেদনা ও বিষাদের দিকে। কলকাতার ড. আগরওয়ালস আই ক্লিনিকের কনসালট্যান্ট অপথ্যালমোলজিস্ট ডাক্তার মধুর এ হিঙ্গোরানি নিম্নোক্ত কয়েকটি পরামর্শ দিয়েছেন যা আপনাকে নিরাপদে হোলি খেলতে দেবে এবং চোখকে রাখবে স্বাস্থ্যবান ও উজ্জ্বল।
সিনথেটিক ও টক্সিক কেমিক্যাল কালার চোখে অপরিবর্তনীয় ক্ষতি করতে পারে। শিল্পের বর্জ্য ও ক্ষার থেকে তৈরি এসব রঙে থাকে ক্ষতিকারক রাসায়নিক যেমন পারদ, অ্যাসবেস্টস, সিলিকা, মাইকা ও সিসা যেগুলি খুবই টক্সিক এবং চোখের স্থায়ী ক্ষতি করতে পারে এবং কখনো এর ফলে স্থায়ীভাবে দৃষ্টিশক্তি হারিয়ে যেতে পারে। আজ, সচেতনতা সহ, উন্নততর বিকল্প লভ্য বাজারে যেমন অর্গ্যানিক কালার ও ঐতিহ্যবাহী প্রাকৃতিক রং। এগুলি তৈরি হয় ফুল, হলুদ ও অন্যান্য অর্গ্যানিক প্রডাক্ট ও ডাই থেকে এবং এগুলি আমাদের শরীরের জন্য ক্ষতিকারক নয়।
এরপর ড. মধুর যোগ করেন, ‘চোখে যদি রং ঢোকে তাহলে আমাদের উচিত নয় হাত দিয়ে চোখ ঘসা, কেননা এর ফলে কর্নিয়েল অ্যাব্রেসান এবং কর্নিয়ার ক্ষতি হতে পারে। এইসঙ্গে, এটি চোখে সংক্রমণ ও অন্যান্য জটিলতার সৃষ্টি করতে পারে। যদি দুর্ঘটনাবশত চোখে রং ঢুকে যায়, আমাদের উচিত সঙ্গে সঙ্গে হাত পরিষ্কার করা, হাতের তালুভর্তি জল নিয়ে সেই জলে চোখ রেখে ধীরে ধীরে চোখের পাতা পিটপিট (ব্লিঙ্কিং) করা। আমাদের উচিত নয় চোখের ভেতর জলের ঝাপটা দেওয়া, কেননা এতে আঘাত ঘটতেপারে। এইসঙ্গে, চোখ থেকে কিছু দূর করার জন্য কখনো রুমাল বা টিস্যু ব্যবহার করবেন না কেননা এতে শুধু আরও খারাপই হবে।’
কনট্যাক্ট লেন্সে হাইগ্রোস্কোপিং উপাদান আছে অথবা সহজ ভাষায় বলতে গেলে এগুলি জল শোষণ করে, সুতরাং যদি কোনো জলীয় রং চোখে প্রবেশ করে সেটি অ্যালার্জি ও সংক্রণের ঝুঁকি বৃদ্ধি করে। এর শ্রেষ্ঠ সমাধান হল আপনার গ্লাস ব্যবহার করুন অথবা একটি ডিসপোজেবল কনট্যাক্স লেন্স ব্যবহার করুন, যদি চোখে কোনো জ্বালাপোড়া দেখা দেয় তাহলে সঙ্গে সঙ্গে ফেলে দেওয়া যায়।
উপর্যুক্ত বিষয়গুলির সঙ্গে আরেকটু যোগ করে ড. মধুর বলেন, ‘যদি চোখে কোনো আঘাত বা ক্ষতির সংকেত পাওয়া যায়, তাহলে আমাদের উচিত তৎক্ষণাৎ কোনো চক্ষু বিশেষজ্ঞের সঙ্গে আলোচনা করা। আমরা হয়তো বাধ্য হই কোনো হোম আই রেমেডি লাগাতে অথবা হাতের কাছে লভ্য কোনো আই ড্রপ অথবা অয়েনমেন্ট লাগাতে যাতে আমাদের ভালোবাসার মানুষ অস্বাচ্ছন্দ্য থেকে কিছুটা আরাম পায়, কিন্তু এটা কাউন্টারপ্রডাক্টিভ হতে পারে এবং উপকারের তুলনায় ক্ষতি করতে পারে বেশি। স্থায়ী লালাভ ভাব, জল পড়া, নির্গমন, চুলকানি, অস্বাচ্ছন্দ্য, ট্রমা, রক্তপাত হলে আমাদের উচিত সঙ্গে সঙ্গে নিকটতম চক্ষু বিশেষজ্ঞের কাছে যাওয়া। আঘাতের প্রকৃতি ও ভয়ংকরতা বুঝে চক্ষু বিশেষজ্ঞকে বিচার করতে দিন এবং তিনিই উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণের পরামর্শ দেবেন।
সেজন্য, আগেভাগেই প্রস্তুত হন এবং এই কয়েকটি সতর্কতা গ্রহণ করুন যাতে এই হোলির অভিজ্ঞতা আপনার জন্য হয়ে ওঠে স্বাস্থ্যকর ও আনন্দের।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট