একজন কিংবদন্তি ভারতীয় অভিনেতা প্রসেনজিৎ চ্যাটার্জি


সোমবার,২০/০৩/২০২৩
399

প্রসেনজিৎ চ্যাটার্জি একজন কিংবদন্তি ভারতীয় অভিনেতা যিনি ভারতীয় চলচ্চিত্র শিল্পে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন। তিন দশকেরও বেশি সময়ব্যাপী ক্যারিয়ারে তিনি 350 টিরও বেশি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। প্রসেনজিৎ তার বহুমুখী অভিনয় দক্ষতার জন্য পরিচিত এবং তার অভিনয়ের জন্য অসংখ্য পুরস্কার জিতেছেন। এখানে তার জীবন এবং কর্মজীবনের কিছু গুরুত্বপূর্ণ হাইলাইট রয়েছে:

প্রারম্ভিক জীবন এবং কর্মজীবন:

প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় 1962 সালের 30 সেপ্টেম্বর ভারতের কলকাতায় জন্মগ্রহণ করেন। 1983 সালে “দুটি পাতা” চলচ্চিত্রের মাধ্যমে 16 বছর বয়সে চলচ্চিত্র জগতে তার আত্মপ্রকাশ ঘটে। প্রসেনজিতের সাফল্য আসে 1986 সালের চলচ্চিত্র “আমি আদু”তে, যেটি বক্স অফিসে হিট হয়েছিল এবং তাকে বাংলা চলচ্চিত্রে একজন শীর্ষস্থানীয় অভিনেতা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছিল।
পেশাগত বৈশিষ্ট্য:

প্রসেনজিৎ রোমান্টিক নাটক থেকে শুরু করে অ্যাকশন মুভি থেকে পিরিয়ড ফিল্ম পর্যন্ত বিভিন্ন ধরনের ছবিতে অভিনয় করেছেন।
তার উল্লেখযোগ্য কিছু চলচ্চিত্রের মধ্যে রয়েছে “চোখের বালি,” “দোসর,” “অটোগ্রাফ,” “জাতিস্বর” এবং “ময়ূরাক্ষী।”
তিনি তার অভিনয়ের জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, ফিল্মফেয়ার পুরস্কার এবং জি সিনে পুরস্কার সহ অসংখ্য পুরস্কার জিতেছেন।
তার অভিনয় জীবন ছাড়াও, প্রসেনজিৎ বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্রও প্রযোজনা করেছেন এবং একটি প্রযোজনা সংস্থা আইডিয়াস ক্রিয়েশনের মালিক।

ব্যক্তিগত জীবন:

প্রসেনজিৎ অর্পিতা পালের সাথে বিবাহিত, এবং এই দম্পতির দুটি সন্তান রয়েছে, ত্রিশনজিৎ এবং প্ররোনা। তিনি জনহিতকর কাজের সাথে সক্রিয়ভাবে জড়িত এবং শিক্ষা, স্বাস্থ্যসেবা এবং অন্যান্য সামাজিক কারণগুলিকে সমর্থন করার জন্য বিভিন্ন সংস্থার সাথে কাজ করেছেন। প্রসেনজিৎ একজন প্রশিক্ষিত শাস্ত্রীয় গায়ক এবং বেশ কয়েকটি অ্যালবাম প্রকাশ করেছেন।

প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় ভারতীয় চলচ্চিত্র শিল্পের অন্যতম দক্ষ অভিনেতা। তার বহুমুখীতা এবং তার নৈপুণ্যের প্রতি উত্সর্গ তাকে শ্রোতা এবং সহ অভিনেতাদের মধ্যে একইভাবে একজন প্রিয় ব্যক্তিত্বে পরিণত করেছে। তার সাফল্য সত্ত্বেও, তিনি স্থির রয়েছেন এবং শিল্পী হিসাবে তাকে চ্যালেঞ্জ করে এমন নতুন প্রকল্পগুলিতে কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।

Loading...
https://www.banglaexpress.in/ Ocean code:

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট