নায়িকা না হয়েও বিকিনিতে নন্দিনী’র ঝড়


সোমবার,২০/০৩/২০২৩
578

‘আন্টি টুউউ’কে মনে আছে ? ঠিক এইভাবেই সুর করে মাসি শাশুড়িকে ডাকত অপু। জি বাংলার বছর কয়েকের পুরনো সিরিয়াল ‘অপরাজিতা অপু’র সংলাপ। দর্শকরা এতো তাড়াতাড়ি কেউ ভুলে যাননি নিশ্চয়ই ? সাহসী, স্বাধীনচেতা অপুর বিডিও হওয়ার স্বপ্নপূরণের কাহিনী নিয়ে শুরু হয়েছিল সিরিয়ালটি। অপু – দীপু জুটির জমাটি রসায়ন ছাড়াও আরও একটি কারণে জনপ্রিয় হয়েছিল এই মেগাসিরিয়ালটি। আর সেটা হল এই আন্টি টু’র কূটনীতির জন্য।
অপুর শাশুড়ি মায়ের বোন যূথিকার চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন কলকাতার অভিনয় জগতের দাপুটে অভিনেত্রী নন্দিনী চট্টোপাধ্যায়। ওই সিরিয়ালে নিজের শাশুড়িকে আন্টি ওয়ান এবং মাসি শাশুড়িকে আন্টি টু বলে ডাকত অপু। নিজের সংসারে অনেক কিছু না পাওয়া থেকে গিয়েছিল যূথিকার। তাই মুখে দরদ দেখালেও আড়ালে দিদির সংসার ধ্বংস করতে চাইতো সে। আর তার জেরেই অপুর সঙ্গে চলতো তার শত্রুতা। শুধু অপরাজিতা অপু নয়, এর আগে এবং পরেও বহু সিরিয়ালে খলনায়িকার চরিত্রে অভিনয় করেছেন নন্দিনী। ছোটপর্দার অত্যন্ত জনপ্রিয় অভিনেত্রী তিনি। পাশাপাশি চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেছেন তিনি। এই মুহূর্তে জি বাংলায় ‘খেলনা বাড়ি’ এবং ‘মন দিতে চাই’ সিরিয়ালে খল চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি। এছাড়া হিন্দি সিরিয়ালেও দেখা গিয়েছে নন্দিনীকে।
প্রিয় পাঠক, কেউ যদি পর্দার নন্দিনীর সঙ্গে যদি বাস্তবের নন্দিনীকে মেলাতে যান, তাহলে কিন্তু বড় ভুল করে ফেলবেন। সিরিয়ালে সবসময় শাড়িতে দেখা গেলেও অফস্ক্রিনে এই অভিনেত্রীর পছন্দ ওয়েস্টার্ন পোশাক। কখনো ডিপ নেক পোশাকে ক্লিভেজের উঁকিঝুঁকি, কখনো পারফেক্ট টোনড ফিগারে বডি হাগিং ড্রেসে ফটোশুট বা রিল ভিডিও বানাতে দেখা যায় তাকে। এমনকী বিকিনিতেও না নেই নন্দিনীর। বয়স যে কোনো পোশাকের ক্ষেত্রেই বাধা নয়, সেটাই বারবার প্রমাণ করে দেন তিনি। বিকিনিতে তার ছবি দেখে বিষম খেতে পারেন বহু যুবতী অভিনেত্রীরাও। নিজেকে এতটাই সুন্দর ভাবে মেনটেইন করে রেখেছেন নন্দিনী। এর পাশাপাশি তার প্রাণখোলা মেজাজও খুবই আকর্ষণীয়।
অপরাজিতা অপু সিরিয়ালটি চলার সঙ্গে সঙ্গেই একটি হিন্দি সিরিয়ালেও অভিনয় করছিলেন নন্দিনী। এই মুহূর্তে খেলনা বাড়িতে ইন্দ্রর সৎ মায়ের ভূমিকায় দেখা যাচ্ছে তাকে। এখানে তার চরিত্রটি মূলত ধূসর। এছাড়াও নতুন শুরু হওয়া মন দিতে চাই সিরিয়ালেও সোমরাজের সৎ মায়ের ভূমিকায় দুর্দান্ত অভিনয় করছেন গ্ল্যামারাস নন্দিনী।

Loading...
https://www.banglaexpress.in/ Ocean code:

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট