কালিয়াগঞ্জের সরিষা তেল মিল গুলিতে হানা দিল ক্রেতা সুরক্ষা দপ্তর ও খাদ্য সুরক্ষা দপ্তর


বৃহস্পতিবার,৩০/০৭/২০১৫
489

বিকাশ সাহাঃ    উত্তর দিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জ থানার অন্তর্গত বিভিন্ন সরিষার তেল মিলে এদিন বৃহস্পতিবার দুপুরে যৌথভাবে হানা দিল ক্রেতা সুরক্ষা দপ্তর ও খাদ্য সুরক্ষা দপ্তর। এদিন সরিষা তেল মিলগুলি থেকে নমুনা সংগ্রহ করে নিয়ে যান আধিকারিকরা। এই অভিযানে সামিল হয়েছিলেন ক্রেতা সুরক্ষা দপ্তরের আধিকারিক স্বপন কুমার রায়, খাদ্য সুরক্ষা দপ্তরের আধিকারিক বিশ্বজিৎ মান্না সহ জেলা পুলিশের আধিকারিকরা। উল্লেখ্য সরিষা তেল মিলের জন্য বিখ্যাত ছিল কালিয়াগঞ্জ। লোকমুখে কালিয়াগঞ্জকে পশ্চিমবঙ্গের কানপুর বলা হত। মিল গুলির পার্শ্ববর্তী এলাকাবাসীদের মতে, কালিয়াগঞ্জের বেশীরভাগ সরিষা তেল মিলে এখন ঘোরে না মিলের চাকা। কিন্তু কিছু অসাধু ব্যবসায়ীর দৌলতে বন্ধ তেল মিল গুলি থেকে লরি ভর্তি সরিষা তেলের নামধারী টিন জেলা সহ পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন এলাকা ও বিহারের বেশ কিছু যায়গায় পৌঁছে যাচ্ছে অনায়াসে। রাতের অন্ধকারে বড় বড় ট্র্যাঙ্কারে সাদা রঙের এক প্রকার কমদামী তেল এই সব বন্ধ মিল গুলিতে ঢোকে। সেই তেল রাতের অন্ধকারেই টিনে ভরানো হয়। প্রতিটি টিনে দুই এক ফোঁটা কেমিক্যাল দিয়ে ঘেঁটে দিলে আসল সরিষা তেলের মত রঙ ও গন্ধ পাওয়া যায়। বিশাক্ত এই নকল সরিষার তেল তৈরীর পর তা লরিতে করে জেলা সহ ভিন রাজ্যে পাড়ি দেয়। কম দামে পেয়ে ব্যবসায়ীরা বেশি লাভের আসায় আসল তেল বলে খদ্দেরের কাছে বিক্রি করছেন নকল বিসাক্ত এই তেল। খাঁটি সরিষা তেল থেকে কম দামের বিশাক্ত এই তেল খেয়ে যে কোন দিন ভয়ানক অসুখ করার সম্ভাবনা দেখা দিতে পারে বলে মত এলাকাবাসীর।
ক্রেতা সুরক্ষা দপ্তরের আধিকারিক স্বপন কুমার রায় বলেন, আমরা নমুনা সংগ্রহ করেছি। তেলে ভেজাল আছে কিনা তা পরীক্ষা করে বোঝা যাবে।
খাদ্য সুরক্ষা দপ্তরের আধিকারিক বিশ্বজিৎ মান্না বলেন, বিভিন্ন দপ্তর থেকে অভিযোগ এসেছে, কালিয়াগঞ্জে তেলে ভেজাল দেওয়া হচ্ছে। আমরা তেলের নমুনা সংগ্রহ করেছি। কোলকাতার পরিক্ষাগারে নমুনা তেলগুলির পরীক্ষানিরীক্ষার পর আসল তত্ত্ব পাওয়া যাবে।RSCN7246

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট