টাকি রামকৃষ্ণ মিশনের ছাত্রদরদী শিক্ষকের চাকুরির শেষ লগ্নে আবেগাপ্লুত প্রাক্তনীরা


বুধবার,৩১/০১/২০১৮
396

সৌরভ দাশ,টাকি:

টাকি রামকৃষ্ণ মিশনের শিক্ষক দেবেন্দ্রনাথ সামুই মহাশয়ের চাকুরি জীবনের শেষ লগ্নে আবেগাপ্লুত প্রাক্তণ থেকে বর্তমান ছাত্রছাত্রীরা।

বিষ্নুপুর বাসী এই মানুষ টি মাধ্যমিক পরীক্ষায় নিজে চতুর্থ স্থান অধিকার করেছিলেন। টাকি রামকৃষ্ণ মিশনে চাকুরি জীবনের সমস্ত টাই ছাত্রদের জন্য উৎসর্গ করেন।আজ তার অসংখ্য ছাত্রছাত্রী গবেষনা,ডাক্তারি, শিক্ষাজগত,প্রশাসনিক জগত সহ বিভিন্ন দিকে নিজ নামে সুপ্রতিষ্ঠিত।

তার কঠোর অনুশাষন,ভালোবাসা,নিয়মানুবর্তিতা ছাত্র দের বন্ধু হয়ে ওঠা এক অনন্য নজির গড়ে তুলেছে টাকি তথা সমগ্র বসিরহাট মহকুমায়।

সদাহাস্যময় এই মানুষ টি অবসর ও কাটিয়েছেন ছাত্রদের সঙ্গে আর এভাবেই ছাত্রদের সঙ্গে তার আত্মার আত্মীয়তা গড়ে ওঠে।গাছেদের পরিচর্যা, বাগান তৈরি মানুষটির অন্যতম শখ।

বিগত বেশ কিছু বছর ধরে মাধ্যমিক পরীক্ষায় টাকি রামকৃষ্ন মিশনের ছাত্র রা প্রথম সারি তে স্থান পাচ্ছে।আর সেই কৃতিত্বের অনেকটাই এই মানুষটির।

এরকম অনেক ছাত্র ই তাদের প্রিয় স্যারের সাথে দেখা করতে আসে আজ,টাকি তে তার এতদিনের ভাড়া করা ছোট্ট আস্তানায়।ছাত্র দের উপচে পড়া ভিড় আর ভালোবাসার উপহারে পা রাখাই দায় সেই ঘরে।

প্রথাগত স্কুলের ক্লাসের বাইরেও এই মানুষ টি আজীবন বিনা পারিশ্রমিকে ছাত্র দের পড়িয়েছেন,স্কুলে অতিরিক্ত ক্লাস থেকে নিজের বাড়িতে ছাত্র দের দিশা দেখানোর দায়িত্ব সামলিয়েছেন।

তার চাকুরি জীবনের শেষ লগ্নে তার ছাত্র ছাত্রী ও আপন করে নেওয়া টাকি এলাকাবাসী তাকে রাষ্ট্রপতি পুরস্কার প্রদানের দাবি তোলে। এদিন প্রাক্তন, বর্তমান ছাত্র ছাত্রী ও এলাকার শুভানুধ্যায়ী মানুষের ভালোবাসায় আপ্লুত দেবেন্দ্র স্যার বলেন তিনি বাকি জীবন নিজের জন্ম স্থানে কাটাতে চান, এবং আজীবন শিক্ষা প্রসারে ছাত্র ছাত্রীর পাশে থাকবেন বলেও জানান।

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট