শিক্ষাক্ষেত্রে সরকারী হস্তক্ষেপ নিয়ে ক্ষোভ অমর্ত্য সেনের


সোমবার,১৭/০৮/২০১৫
174

খবরইন্ডিয়াঅনলাইনঃ     শিক্ষাক্ষেত্রে সরকারি হস্তক্ষেপ নিয়ে আবারো ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নোবেলজয়ী বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন।

তার লেখা ‘দ্য কান্ট্রি অব ফার্স্ট বয়েজ’ বই প্রকাশ উপলক্ষে রোববার তিনি বলেন, ‘এনডিএ আমলে শিক্ষাক্ষেত্রে সরকারি হস্তক্ষেপ নিত্যদিনের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।’ অমর্ত্য সেন অবশ্য সাবেক ইউপিএ সরকারও এ নিয়ে কলঙ্কমুক্ত ছিল না বলে মন্তব্য করেন।

অমর্ত্য সেনের মতে, বর্তমান এনডিএ শাসনে শিক্ষা ক্ষেত্রে রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ প্রায় সাধারণ ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ সরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠানগুলোতে হিন্দুত্বের ধারণার প্রতি আনুগত্যের ভিত্তিতে নিয়োগ করা হচ্ছে বলে তিনি অভিযোগ করেছেন।

প্রসঙ্গত, সাবেক ইউপিএ সরকার ছিল কংগ্রেস পরিচালিত। বর্তমান এনডিএ সরকার হচ্ছে হিন্দুত্ববাদী বিজেপি পরিচালিত।

সাম্প্রতিক ঘটনার উদাহরণ দিয়ে অমর্ত্য সেন বলেছেন, ‘ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ হিস্টোরিক্যাল রিসার্চ’-এর নবনিযুক্ত প্রধান ইয়েল্লাপ্রাগাদা সুদর্শন রাও ‘ইতিহাস সম্পর্কে গবেষণার জন্য তিনি প্রসিদ্ধ না হলেও, তার হিন্দুত্ববাদী মতামত সর্বজনবিদিত।

‘ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব কালচারাল রিলেশনস’-এর প্রধান হিসেবে লোকেশ চন্দ্র’র নিয়োগ প্রসঙ্গে অমর্ত্য সেন বলেছেন, লোকেশ, মোদিকে ‘ঈশ্বরের অবতার’ বলে দাবি করেছিলেন।

অমর্ত্য সেন তার বইতে নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়ে তার চ্যান্সেলর পদ থেকে সরে যাওয়ার বিষয়টিও তুলে ধরেছেন।

তার কথায় ‘ধর্মনিরপেক্ষ দেশকে নেতৃত্ব দেয়ার বিষয়ে নরেন্দ্র মোদির যোগ্যতা নিয়ে আমি প্রকাশ্যে সন্দেহ প্রকাশ করেছি। ফলে চ্যান্সেলর পদে থাকা নিয়ে সরকারের আপত্তিতে আমি অবাক হইনি।

২০১৪ সালে লোকসভা ভোটের প্রচার চলাকালীন অমর্ত্য সেন বলেছিলেন, তিনি নরেন্দ্র মোদিকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দেখতে চান না। কারণ, সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তায় তিনি তেমন কিছু করে উঠতে পারেননি।

অমর্ত্য সেন বলেছেন, তাকে চ্যান্সেলর পদে রাখা নিয়ে সরকার ও নালন্দার পরিচালন পর্ষদের মধ্যে টানাপড়েনে নালন্দার পুনর্গঠনের পথে বাধা হয়ে দাঁড়ানোয় তিনি পদ ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন।

প্রসঙ্গত, সিঙ্গাপুরের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী জর্জ ইয়োকে নালন্দার নতুন চ্যান্সেলর পদে মনোনীত করা হয়েছে। নতুন চ্যান্সেলর যাতে স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারেন সেদিকে সরকারের নজর দেয়া উচিত বলে মন্তব্য করেছেন অমর্ত্য সেন।

নালন্দা যেন ‘ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ হিস্টোরিক্যাল রিসার্চ’ এবং ‘ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব কালচারাল রিলেশনস’-এর মতো না হয়ে যায় সে কথাও বলেছেন তিনি।

 

Loading...

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট