কলকাতা বন্দর আর শুটিং -এর অনুমতি দেবে না, ভেঙ্কটেশকে


বুধবার,১৬/০৯/২০১৫
461

 খবরইন্ডিয়াঅনলাইনঃ    গঙ্গা বা তার লাগোয়া এলাকায় আর কোনও শ্যুট করতে পারবে না ভেঙ্কটেশ ফিল্মস। বন্দরের জমি জবরদখল করা প্রযোজক সংস্থা এখন থেকে কলকাতা বন্দর কর্তৃপক্ষের কোনও এলাকাতেই আর শ্যুটিংয়ের অনুমতি পাবে না।গঙ্গা এবং গঙ্গাবক্ষ থেকে দুদিকের ১৫০ ফুট পর্যন্ত জমিতে কোনও ছবির শ্যুটিং করতে পারবে না ভেঙ্কটেশ ফিল্মস। জানিয়েছেন বন্দরের এস্টেট ম্যানেজার শুভ্রকমল ধর।বন্দরের এস্টেট ম্যানেজার শুভ্রকমল ধর মঙ্গলবার বলেন, ‘‘যে সংস্থা বন্দরের জমি গায়ের জোরে দখল করে, তাদের সঙ্গে আমরা কোনও ভাবেই সহযোগিতা করব না। সে জন্যই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, কোন্নগর থেকে সাগর পর্যন্ত বন্দরের কোনও এলাকাতেই ভেঙ্কটেশকে আউটডোর শ্যুটিংয়ের অনুমতি দেওয়া হবে না।’’এক কর্তা জানান, কোন্নগর থেকে সাগর পর্যন্ত হল কলকাতা বন্দর কর্তৃপক্ষের সীমানা। এই বিস্তৃত অংশে শুধু নদীবক্ষ নয়, নদীর পাড় থেকে ভেতরে ১৫০ ফুট পর্যন্ত জমিতে যে কোনও কাজকর্মেই বন্দরের অনুমতি বাধ্যতামূলক। সেই অনুমতি সাপেক্ষেই শ্যুটিং হয় কলকাতার বাবুঘাট, প্রিন্সেপ ঘাট, বাগবাজার বা শোভাবাজার ঘাটে। কিংবা হাওড়া সেতু, দ্বিতীয় হুগলি সেতু, স্যুইং ব্রিজ, কখনও বা একেবারে ডকের ভেতর। এ ছাড়া হুগলির তীর ধরে রায়চক, হুগলি পয়েন্ট, নূরপুর, ফলতা, গাদিয়াড়া, গেঁওখালি, হলদিয়ার মতো ‘স্পট’-এ অজস্র শ্যুটিং হয়। বন্দর কর্তৃপক্ষের বক্তব্য, রাজ্যের বিনোদন শিল্পের স্বার্থে বরাবরই তাঁরা প্রযোজনা সংস্থাগুলিকে শ্যুটিংয়ের অনুমতি দিয়ে এসেছেন। একই অনুমতি পেত ভেঙ্কটেশও।কিন্তু আর নয়। শুভ্রকমলবাবুর কথায়, ‘‘যে সংস্থা বন্দরের জমি দখল করে রেখে উল্টে আমাদের অফিসারদের বিরুদ্ধেই মামলা করে, তাদের কী ভাবে শায়েস্তা করতে হয় আমাদের জানা আছে। ওই জমি আমরা নিয়েই ছাড়ব। আর ভেঙ্কটেশের জন্য কলকাতা পোর্ট ট্রাস্টের দরজা চিরতরে বন্ধ।’’ তবে অন্যান্য প্রযোজনা সংস্থা আগের মতোই শ্যুটিংয়ের অনুমতি পাবে বলে বন্দরের কর্তারা জানিয়েছেন।

Loading...
https://www.banglaexpress.in/ Ocean code:

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

    জানা অজানা

    সাহিত্য / কবিতা

    সম্পাদকীয়


    ফেসবুক আপডেট