কাব্যগ্রন্থ পর্যালোচনা-‘অন্ধকারের গম্বুজ’


রবিবার,২৮/০১/২০১৮
1626

আপ্পি হোসেন:

“কম্পাস ছুঁড়ে ফেলে আমরা নেমে যাচ্ছি অধিকতর অরণ্যে/
আর, আমাদের চোখের তারায় ফুটে উঠছে অবিশ্বাস্য অন্ধকারে এক হারানো গম্বুজ/”

২০১৮ কলকাতা বইমেলায় প্রকাশিতব্য-কবি রণদেব দাশগুপ্তের ষষ্ঠ কাব্যগ্রন্থ -‘অন্ধকারের গম্বুজ’.! একজন পরিপুর্ণ কাব্যকারের রচনার ক্ষেত্রে যে যে দক্ষতা বা গুন থাকার দরকার কবি রণদেব দাশগুপ্তের তা আছে বলে আমার বিশ্বাস। যা বাংলা সাহিত্য জগতে এইসময় খুব কম মানুষের আছে,,

“হাঁটতে হাঁটতে আমরা স্বর্গকে তাচ্ছিল্য করেছি/
তামাশা করেছি নরকের কুন্তীপাক নিয়ে/
মানুষের মত দেখতে যা কিছু তার কাছে গচ্ছিত রেখেছি জ্বলন্ত মশাল/”
–এমন দক্ষ কাব্যশ্রমিক নিয়ত শব্দের গাঁথুনিতে যখন নির্মাণ করেন কবিতা তা সুস্থ এবং দৃঢ় হবে এটাই স্বাভাবিক। সেই সুনিপুণ নির্মাণ থেকেই উঠে এসেছে এই ‘অন্ধকারের গম্বুজ’।

–“দূরে তাকিয়ে দেখছি, সমস্ত পথের পাশেই পাহারা দিচ্ছে আমাদের অগণিত ভ্রম ও বিষাদ/
তবুও জানি, ঈশৎ নীলাভ এই দরজার ওপাশেই আছে আবার নতুন করে চলতে থাকার মানচিত্র/”
প্রত্যাহিকি সময়ের সাথে যাপনকারী চালচিত্র ও তার চাহিদা নিয়ে যেরকম ভাবে যে প্রকার শাব্দিক নির্মাণ কবি করেছেন তা শুধু কবিতা নয়, চেতনার গৃহে গম্বুজ হিসাবে অধিষ্ঠান পাবে একথা বলাই বাহুল্য। তাই আসুন, ছুঁয়ে দেখুন আপনার হৃদয়ে নিভৃত সৌধে কেমন ভাবে থাকবে সেই ‘অন্ধকারের গম্বুজ’…!!
প্রাপ্তিস্থান: অসময় প্রকাশনী।
স্টল নম্বর: ৪৩১

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

জানা অজানা

সাহিত্য / কবিতা

সম্পাদকীয়


ফেসবুক আপডেট