সুস্থ থাকুন প্রাকৃতিক উপায়ে


মঙ্গলবার,২৭/০৩/২০১৮
6411

বাংলা এক্সপ্রেসঃ
সম্প্রতি নিউইয়র্কের একটি সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে ২০২৫ সালের মধ্যে প্রতিটি ঘরের একজন করে সদস্য বড় কোনো কঠিন অসুখে ভুগবেন। আর এই দূরারোগ্য ব‍্যাধির অন‍্যতম চিকিৎসা হিসাবে আমরা ডাক্তারের পরামর্শ মত কড়া ডোজের নামিদামি ওষুধ কেই যে বেছে নেব তা বলার অপেক্ষা রাখে না। আজ আমরা সামান্য মাথা যন্ত্রতা থেকে ক‍্যান্সার সব ক্ষেত্রেই ওষুধের দোকানের উপর নির্ভরশীল। কিন্তু আমরা কখনো কি ভেবে দেখেছি প্রাচীন কালেও মানুষের রোগব‍্যাধী হত তাঁরা কী উপায়ে চিকিৎসা করতেন? অত্যান্ত সাধারণ উপকরণ ও প্রকৃতিই তাদের একমাত্র ভরসা ছিল। সে সবই এখন অতীত! কিন্তু দৈনন্দিন ব‍্যবহৃত উপকরনই কিছু রোগের মহার্ঘ্য।
শশীরকে নিরোগ রাখতে শশার কোনো দোসর নেই। খিদে পেলে অথবা তেষ্টায় শশা খেয়ে নিন শশীরও ঠান্ডা হবে এবং ক‍্যালোরিও ঝড়বে। এছাড়াও রুক্ষ-শুষ্ক চুলের হাত থেকে রক্ষা পেতে নিয়মিত একটি করে শশা খান।
* সকালে ঘুম থেকে উঠে মুখের দুর্গন্ধ প্রায় প্রত‍্যেরই হয়। তবে অনেকেই আছেন যারা সারা দিন এই সমস্যার ভোগেন। এই সমস্যার থেকে মুক্তি পেতে কাঁচা পেয়ারা খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন।
* কিডনি জনিত সমস্যার জন্য পাকা আম খান।
* বার্ধক্য জনিত সমস্যা বা প্রোস্টেট ক্যান্সার থেকে রেহাই পেতে খান ট‍্যামাটো
* একবিংশ শতাব্দীর অন্যতম সমস্যা ডায়াবেটিস। ডায়াবেটিস কে সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে আনতে কালো জাম খান।
* নিউমোনিয়ায় ভুগছেন এমন কোনো রোগীকে বেশি করে কমলা লেবু খাওয়ার পরামর্শ দিন।
* আপনি কি রক্তশূন্যতা বা জন্ডিসে ভুগছেন তবে নিয়মিত অবশ্যই একটি করে বেদানা খান।
* অশ্ব জনিত সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে প্রতিনিয়ত পাঁকা পেঁপে খান।
* শ্বাস-প্রশ্বাস জনিত কোনো সমস্যার জন্য কাঁচা পেঁয়াজ খান।
* অস্থি বা হাড় জনিত কোনো সমস্যার জন্য আঙুর অর্বথ‍্য।
* হরমোন জনিত কোনো সমস্যায় একটি করে পাঁকা পেয়ারা খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন প্রতিনিয়ত।

চাক‌রির খবর

ভ্রমণ

হেঁসেল

জানা অজানা

সাহিত্য / কবিতা

সম্পাদকীয়


ফেসবুক আপডেট